বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১
logo
গোল্ডেন বল পুরস্কার প্রত্যাখান করেছেন মেসি!
প্রকাশ : ০৬ জুলাই, ২০১৫ ২০:৩২:০৯
প্রিন্টঅ-অ+
ক্রীড়া ওয়েব

চাঁদপুর: গ্রুপ পর্বে প্যারাগুয়ের বিপক্ষে ২-০ গোলে এগিয়ে থেকেও শেষ পর্যন্ত ২-২ গোলে ড্র করতে হয়েছিল আর্জেন্টিনাকে। যে কারণে রাগে-ক্ষোভে ওই ম্যাচের ম্যাচ সেরার পুরস্কার নিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছিলেন মেসি। এমনকি তার ভয়ে আর্জেন্টিনা দলের কোন সতীর্থই মেসির পক্ষে সেই পুরস্কার গ্রহণ করেননি।
সেই ক্ষোভ না হয় পুরণ করা গেছে মেসির। পরের ম্যাচগুলোতে অসাধারণ খেলে আর্জেন্টিনাকে তুলে এনেছিলেন ফাইনালে। নিজের প্রথম এবং দেশকে ২২ বছর পর কোন শিরোপা উপহার দেওয়ার একেবারে দ্বারপ্রান্তে দাঁড়িয়েও সতীর্থদের কারণে আরও একবার হতাশ হতে হলো মেসিকে। চিলির কাছে টাইব্রেকারে হেরে যাওয়ার কারণে ক্ষোভে-দুঃখে তাই টুর্নামেন্টের সেরার পুরস্কার গোল্ডেন বলই প্রত্যাখ্যান করেছেন মেসি।
বোঝাই যাচ্ছে চিলির কাছে কোপা আমেরিকার ফাইনালে টাইব্রেকারে পরাজয়ের পর খুবই দুঃখ পেয়েছেন আর্জেন্টিনা অধিনায়ক। চিলির ডিফেন্ডারদের কারণে আক্রমণভাগে অনেকটাই প্যাকেট হয়ে ছিলেন। বাধ্য  হয়ে খেলতে হয়েছে নিজেদের অর্ধে নেমে। তবুও পুরো ম্যাচে অসাধারণ খেলেছিলেন। তৈরী করেছিলেন অনেকগুলে সুযোগ। কিন্তু সেই সুযোগগুলো কাজে লাগিয়ে সতীর্থদের কেউ গোল করতে পারেননি।
শেষ পর্যন্ত টাইব্রেকারে যখন খেলা গড়াল, সেখানেও মেসি নিজের বুদ্ধিমত্তা দিয়ে ফাঁকি দিলেন নিজের ক্লাব সতীর্থ এবং কোপা ফাইনালে শত্রুপক্ষের অধিনায়ক চিলি গোলরক্ষক ক্লদিও ব্রাভোকে। নিজের কাজ সঠিকভাবে সমাধা করতে পারলেও সতীর্থদের যারপরনাই ব্যর্থতায় আবারও শিরোপা বঞ্চিত থাকতে হলো মেসিকে।
এই ছবিতে দেখা যাচ্ছে (গোল চিহ্নিত) স্টেজে গোল্ডেন বল পুরস্কার রাখা
বিশেষ করে বললে, সতীর্থ গঞ্জালো হিগুয়াইন। সার্জিও আগুয়েরোর পরিবর্তে মাঠে নামার পর বেশ কিছু সুযোগ তাকে তৈরি করে দিয়েছিলেন মেসি। কিন্তু কোনোটাই কাজে লাগাতে পারেননি তিনি। সর্বশেষ যখন টাইব্রেকারে আর্জেন্টিনার হয়ে দ্বিতীয় শটটি পোস্টের অনেক ওপর দিয়ে গ্যালারিতে পাঠিয়ে দিলেন, সঙ্গে সঙ্গেই ঘুরে দাঁড়ান মেসি।
তখনই তিনি যেন নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিলেন, বল তো বাইরে পাঠায়নি, তাদের স্বপ্নকেই গ্যালারিতে আছড়ে ফেলেছেন হিগুয়াইন। পরের শটটিও যখন এভার বানেগা নিলেন একেবারে দুর্বলভাবে এবং অভিজ্ঞ গোলরক্ষক ক্লদিও ব্রাভো সেটি ঠেকিয়ে দিলেন, তখন একরাশ হতাশা প্রকাশ করা ছাড়া আর কিই বা করার থাকতে পারে মেসির!
এই ছবিতে (গোল চিহ্নিত) দেখা যাচ্ছে, গোল্ডেন বলের পুরস্কার সরিয়ে নেওয়া হয়েছে
আলেক্সিজ সানচেজ যখন সার্জিও রোমেরোকে বোকা বানিয়ে আলতো টোকায় বলটি আর্জেন্টিনার জালে জড়িয়ে জার্সিখুলে বুনো উল্লাসে মেতে উঠলেন, তখন এক পাশে মাথা নীচু করে দাঁড়িয়ে রইলেন মেসি। যেন নিজের চোখকে বিশ্বাস করাতে পারছেন না, যেন নিজের মনকে বোঝাতে পারছেন না, এটা কী ঘটে গেল। যেন এটাই বলতে চাইছিলেন, যা ঘটে গেছে তা স্বপ্ন, বাস্তব নয়।
গোল্ডেন বল পুরস্কার প্রত্যাখান করেছেন মেসি!
কিন্তু এভাবে তো আর বাস্তবতাকে অস্বীকার করতে পারেন না। মেনে নিতেই হবে। কিন্তু প্রচণ্ড হতাশা, ক্ষোভ আর অভিমান থেকে আরও একবার পুরস্কার নিতে অস্বীকৃতি জানালেন মেসি। শিরোপা জিততে না পারলেও অবিসংবাদিতভাবে টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড় হিসেবে গোল্ডেন বল জেতার কথা মেসির। হলোও সেটা। কিন্তু আগে থেকেই সেটি প্রত্যাখ্যান করেন আর্জেন্টাইন অধিনায়ক।
এ কারণে পুরস্কার বিতরণের ঠিক আগ মুহুর্তেই দেখা গেলো মঞ্চ থেকে গোল্ডেন বলের পুরস্কারটি নামিয়ে নেওয়া হচ্ছে। ছোট্ট একটি ভিডিওতে ধরা পড়েছে বিষয়টি। সংবাদটি প্রকাশ করেছে আজেন্টিনার এমআই মিনুটুনো ডটকম নামে একটি অনলাইন। সঙ্গে ভিডিও’ও।
পুরস্কার বিতরণের সময়ও দেখা যায়নি গোল্ডেন বলটি কারও হাতে তুলে দিতে। এমনকি মেসিকেও দেখা গিয়েছিল রানারআপ মেডেলটি গলা থেকে হাতে নিয়ে দ্রুত টানেল হয়ে ড্রেসিংরুমে প্রবেশ করে যেতে।

খেলা এর আরো খবর