সোমবার, ২৬ জুলাই ২০২১
logo
অনর্থক কাউকে হত্যা করা কবিরা গুনা
প্রকাশ : ০২ জুন, ২০১৫ ১৬:২৪:৪৮
প্রিন্টঅ-অ+
ধর্ম ওয়েব

অনর্থক রক্তপাত বা কাউকে হত্যা করা জঘন্য কবিরা গুনা। রসুলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, কোনো মুমিনের হত্যাকাণ্ড আল্লাহর কাছে দুনিয়া ধ্বংসের চেয়েও বেশি মারাত্দক। বুখারি, মুসলিম, নাসায়ি। ইসলামে হত্যাকাণ্ড বিশেষত অনর্থক রক্তপাতকে কতটা দোষণীয় ভাবা হয় রসুলুল্লাহ (সা.)-এর আরেকটি হাদিস তার প্রমাণ। বুখারির ওই হাদিসে বলা হয়েছে রসুলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, কেউ কোনো অমুসলিম নাগরিককেও যদি অনর্থক হত্যা করে তবে সে বেহেস্তের ঘ্রাণও পাবে না। পবিত্র কোরআনেও হত্যা-ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে কঠোর হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করা হয়েছে। সুরা আল ইমরানের ৫৪ নম্বর আয়াতে বলা হয়েছে, 'আর তারা চক্রান্ত করেছিল, আল্লাহও কৌশল করেছিলেন, আল্লাহ কৌশলীদের শ্রেষ্ঠ।' রূপক অর্থে আল্লাহ মানুষকে সতর্ক করে দিয়েছেন কেউ যখন অন্যের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে তখন আল্লাহ তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেন, অর্থাৎ তার জন্য খারাপ পরিণাম অপেক্ষা করে। কোরআনে আরও কিছু আয়াতে অনর্থক রক্তপাত, হত্যা ও ষড়যন্ত্র বিষয়ে মুমিনদের হুঁশিয়ার করা হয়েছে। সুরা আন নিসার ৯৩ নম্বর আয়াতে আল্লাহ ঘোষণা করেছেন, 'যে লোক ইচ্ছাকৃতভাবে কোনো বিশ্বাসী মুমিনকে খুন করবে, তার পরিণাম হবে চিরকালীন দোজখবাস।' সুরা আল মায়েদার ৩২ নম্বর আয়াতে বলা হয়েছে, 'এ কারণেই আমি বনি ইসরায়েলের প্রতি লিখে দিয়েছি যে কেউ কোনো হত্যার বিনিময় অথবা পৃথিবীতে গোলযোগ সৃষ্টি করার অপরাধ ছাড়া কাউকে হত্যা করল, সে যেন সমগ্র মানবকুলকে হত্যা করল; আর যে কারও জীবন বাঁচাল সে যেন সমগ্র মানবকুলের জীবন বাঁচাল।' মানুষ হলো সৃষ্টির সেরা জীব। আল্লাহ তার পিয়ারা হাবিবকে সৃষ্টি করেছেন মানুষের মধ্য থেকে। মানব জাতি মানবিক গুণাবলি অর্থাৎ সব ক্ষেত্রে সদাচরণের অধিকারী হবে এমনটিই সৃষ্টিকর্তার ইচ্ছা। সুরা আল ফুরকানের ৬৮-৭০ আয়াতে আল্লাহর ঘোষণা : 'আর যারা আল্লাহর সঙ্গে অন্য কোনো প্রভুকে আহ্বান করে না, আল্লাহ কর্তৃক নিষিদ্ধ প্রাণকে যথার্থ কারণ ছাড়া হত্যা করে না এবং ব্যভিচার করে না (আল্লাহর প্রিয় বান্দা তারাই)। আর যারা এসব করে, তারা মহাপাপী। বিচার দিবসে তাদের শাস্তি দ্বিগুণ করা হবে এবং সেথায় তারা অপমানিত হয়ে চিরকাল অবস্থান করবে। কিন্তু যারা তওবা করে বিশ্বাস স্থাপন করে তারা এবং নেক আমল করে উক্ত আজাব থেকে পরিত্রাণ পাবে।' ষড়যন্ত্র ও অনর্থক হত্যাকাণ্ড পারিবারিক, সামাজিক এবং রাষ্ট্রীয় জীবনে বার বার বিপর্যয় ডেকে এনেছে। প্রত্যেক মুমিন মুসলমানের উচিত ষড়যন্ত্র ও হত্যার অপচর্চা থেকে দূরে থাকা এবং সমাজবদ্ধ সব মানুষকে এ ধরনের গুরুতর গুনা থেকে দূরে থাকতে উদ্বুদ্ধ করা। আল্লাহ আমাদের সবাইকে শান্তি ও কল্যাণের পথে চলতে তওফিক দিন।
মাওলানা আবদুর রশিদ

ধর্ম এর আরো খবর