শনিবার, ০৮ মে ২০২১
logo
পরিবেশকে ভালবাসুন, গাছ লাগান: প্রধানমন্ত্রী
প্রকাশ : ১৬ জুন, ২০১৬ ১১:১৬:৩৪
প্রিন্টঅ-অ+

ঢাকা: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের পরিবেশের প্রতি যত্নবান হবার আহ্বান জানিয়ে বর্ষা মৌসুমে সবাইকে বৃক্ষরোপণে অংশগ্রহণের আহবান জানিয়েছেন।
তিনি বলেন, “মানুষের অধিকতর সুরক্ষা নিশ্চিত করার জন্যই আমাদের পরিবেশকে ভালবাসতে হবে এবং রক্ষা করতে হবে।”
প্রধানমন্ত্রী বুধবার দুপুরে তার সরকারি বাসভবন গণভবনে বাংলাদেশ কৃষক লীগ আয়োজিত বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির উদ্বোধনকালে একথা বলেন।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বর্ষাকালে সবাইকে অন্তত একটি ফলজ, একটি বনজ এবং একটি ওষুধি গাছের চারা রোপণে তার আহ্বান পুনর্ব্যক্ত করেন।
কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী এবং পরিবেশ ও বনমন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।
কৃষক লীগের সাবেক সভাপতি একেএম রহমত আলী, আওয়ামী লীগের কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ড. আব্দুর রাজ্জাক এবং সাংগঠনিক সম্পাদত আফম বাহাউদ্দিন নাছিম অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন।
অনুষ্ঠানের শুরুতেই কৃষক লীগের সভাপতি মো. মোতাহার হোসেন মোল্লা এবং সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খন্দকার শাসুল হক রেজা ‘চ্যাম্পিয়ন অব দি আর্থ’ মনোনীত হওয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ফুলের তোড়া উপহার দিয়ে অভিনন্দন জানান।
উল্লেখ্য, ১৯৮৫ সাল থেকেই কৃষক লীগ প্রতিবছর বর্ষার মওসুমে সারাদেশে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি পালন করে আসছে।
প্রধানমন্ত্রী অনুষ্ঠানে বিভিন্ন জেলার সেরা বৃক্ষরোপণকারীদের পুরস্কৃত করেন এবং বাংলাদেশ কৃষক লীগ নেতৃবৃন্দের মাঝে গাছের চারা বিতরণ করেন।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, গাছ আমাদের খাদ্য ও জীবনের প্রয়োজনীয় অধিকাংশ উপকরণের জোগান দেয়। তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বলেছেন যে বাংলাদেশের মতো উর্বর ভূমির একটি দেশের মানুষ না খেয়ে থাকতে পারে না।
শেখ হাসিনা বলেন, ভৌগলিক অবস্থানের কারণে বাংলাদেশ জলোচ্ছাস ও ঘূর্ণিঝড়ে অধিক আক্রান্ত হওয়ায় এসব দুর্যোগের ঝুঁকি থেকে উপকূলীয় অঞ্চলকে রক্ষায় তার সরকার ব্যাপক বৃক্ষরোপণের কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। এ প্রসঙ্গে তিনি পর্যটন শহর কক্সবাজারকে রক্ষায় এর উপকূলে ঝাউবন গড়ে তোলার উদ্যোগের কথা উল্লেখ করে বলেন, বর্তমান সরকারের আমলে দেশে বনায়নের পরিমাণ ৭ থেকে ১৭ শতাংশ হয়েছে এবং তা ২৫ শতাংশে সম্প্রসারণের লক্ষ্যে কাজ চলছে।
প্রধানমন্ত্রী সবুজ-শ্যামলিমার ঢাকা মহানগরের পুরানা বিমান বন্দর থেকে শাহবাগ পর্যন্ত সড়ক দ্বীপগুলোর কৃষ্ণচূড়ার গাছ কাটার জন্য সব সামরিক একনায়ক বিশেষ করে জিয়াউর রহমানের সমালোচনা করে বলেন, উন্নয়নের নামে সামরিক এক নায়কেরা সব জলাশয়, পুকুর, খাল-নর্দমা ও প্রাচীন গাছ ধ্বংস করেছে।
প্রধানমন্ত্রী ৩১ বছর থেকে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি পরিচালনা ও প্রকৃতির সুরক্ষায় জনগণকে উদ্বুদ্ধ করার জন্য কৃষক লীগকে ধন্যবাদ জানান।
তিনি বনায়ন কর্মসূচি জোরদার এবং নিজে গাছ লাগানো ও অন্যকে গাছ লাগাতে উদ্বুদ্ধ করতে সবার প্রতি আহ্বান জানান।
শেখ হাসিনা দেশের অগ্রযাত্রায় কৃষক লীগের অবদানের কথা উল্লেখ করে বলেন, অর্থনৈতিক উন্নয়নে আমাদের মতো কৃষি নির্ভর দেশে কৃষক সংগঠনগুলোর ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।
তিনি বলেন, তাঁর সরকার কৃষি গবেষণায় গুরুত্বারোপ করায় দেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছে। সরকার এখন মাংস উৎপাদনে নজর দিয়েছে।
প্রধানমন্ত্রী সংগঠনকে শক্তিশালী এবং কৃষি উন্নয়নে সরকারের কর্মসূচি তুলে ধরতে কৃষক লীগের প্রতি আহ্বান জানান। -বাসস।

জাতীয় এর আরো খবর