বুধবার, ১২ মে ২০২১
logo
শেখ হাসিনার ওপর হামলা
মামলার ৬ বছর পর সাক্ষ্য গ্রহণ
প্রকাশ : ২৭ মে, ২০১৬ ০৯:৫৯:৩১
প্রিন্টঅ-অ+
আইন ওয়েব

চট্টগ্রাম: তৎকালিন বিরোধীদলীয় নেত্রী ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওপর হামলার চেষ্টা ও গণহত্যা মামলায় ছয় বছর পর সাক্ষ্য গ্রহণ শুরু হয়েছে।
বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম বিভাগীয় বিশেষ জজ আদালতের বিচারক মীর রুহুল আমিনের আদালতে সাক্ষ্য দেন প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অনুপম সেন। আদালত আগামী ২৬ জুন পরবর্তী সাক্ষ্য গ্রহণের দিন ধার্য করেছেন।
২০০৯ সালের ১০ আগস্ট এ মামলাটির সর্বশেষ সাক্ষ্য গ্রহণ হয়েছিল। ১৯৮৮ সালের ২৪ জানুয়ারি সরকার পতনের ডাকে চট্টগ্রাম নগরের লালদীঘি মাঠের সমাবেশে তৎকালীন স্বৈরশাসকের নির্দেশে পুলিশের গুলিতে ২৪ জন নিহত হন।
ঘটনার পাঁচ বছর পর মামলা দায়েরকারী আইনজীবী শহীদুল হুদাও মারা যান। গত জানুয়ারি মাসে মামলাটি বিচারের জন্য প্রথম অতিরিক্ত চট্টগ্রাম মহানগর দায়রা জজ আদালত থেকে বিভাগীয় বিশেষ জজ আদালতে স্থানান্তরিত হয় বিচারের জন্য।
সরকারি কৌঁসুলি মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরী বলেন, এই মামলায় প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অনুপম সেন আজ (বৃহস্পতিবার) আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন।
সাক্ষ্যদানের সময় তিনি আদালতকে জানান, আদালত ভবনে আইনজীবীদের সঙ্গে বৈঠক ও সমাবেশে যোগ দিতে ট্রাকে করে তিনিও তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে লালদীঘি মাঠে আসতে ছিলেন। পুরোনো বাংলাদেশ ব্যাংকের সামনে এ সময় পুলিশ নির্বিচারে গুলি করলে ২৪ জন নিহত হন। আহত হন কয়েকশ লোক।
অনেককে মৃত্যুযন্ত্রণায় কাতরাতে দেখেছেন বলে আদালতে সাক্ষ্য দেন তিনি।
আদালতকে তিনি আরো বলেন, পুলিশ নিহত ব্যক্তিদের লাশ তাদের স্বজনদের দেয়নি। লাশগুলো শ্মশানে নিয়ে পুড়িয়ে ফেলা হয়। সেদিন ভাগ্যক্রমে বেঁচে যান বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তাকে আইনজীবীরা চট্টগ্রাম আদালত ভবনে নিয়ে যান।
অ্যাডভোকেট মেজবাহ চৌধুরী আরো বলেন, ২০০৯ সালের ১০ আগস্ট মামলাটির সর্বশেষ সাক্ষ্য গ্রহণ হয়েছিল। এরপর আর কোনো সাক্ষী হাজির হননি। ১৬৮ সাক্ষীর মধ্যে আজ একজনসহ মাত্র ৩৬ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়েছে।
 

আইন আদালত এর আরো খবর