মঙ্গলবার, ১৫ জুন ২০২১
logo
জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে সফলতার শীর্ষে বাংলাদেশ
প্রকাশ : ২৮ মে, ২০১৬ ১৬:২৯:১৫
প্রিন্টঅ-অ+
হাইলাইটস ওয়েব

ঢাকা : জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে বাংলাদেশের অবস্থান সফলতার শীর্ষে। মূলত ১৯৮৮ সাল থেকে শুরু হওয়া শান্তিরক্ষা মিশনে বাংলাদেশের সেনারা দায়িত্ব পালনকালে তাদের সততা, দক্ষতা, নিরপেক্ষতা, দুঃস্থদের সহযোগিতা, যুদ্ধরত উপদলগুলোর মধ্যে শান্তি স্থাপন, যুদ্ধে ক্ষতিগ্রস্তদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করে আসছে। আর এর জন্য বাংলাদেশের ১৩০ জন শান্তিসেনাকে আত্মত্যাগও করতে হয়।
এমনটাই জানানো হয় সিএলএনবি আয়োজিত এক আলোচনা সভায়। এতে সভাপতিত্ব করেন হারুনূর রশিদ।
এতে বক্তারা বলেন, বর্তমানে শান্তিরক্ষা মিশনে কর্মরত বাংলাদেশর ৯ হাজার ৪৩২ জন শান্তিসেনার মধ্যে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর সদস্য ১ হাজার ১১১ জন, অবশিষ্ট বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর সদস্য।
১৯৮৮ সাল থেকে এ পর্যন্ত বাংলাদেশ ৪০ দেশের ৫৪টি মিশনে ১ লাখ ৪৪ হাজার ৭৩৯ জন শান্তিসেনা প্রেরণ করেছে। এর মধ্যে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর সদস্য সংখ্যা ১৬ হাজার ১৯৪ জন, অবশিষ্ট বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর সদস্য। জাতিসংঘ শান্তিক্ষা মিশন এখন বাংলাদেশের তৃতীয় বৃহৎ আয়ের খাত।
অনুষ্ঠানে শান্তিসেনাদের সফলতা ও আত্মত্যাগকারী শহীদ শান্তিসেনাদের রুহের মাগফেরাত কামনা করা হয়। অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন কর্নেল (অব.) দিদারুল আলম বীরপ্রতীক।
আলোচন সভায় বক্তব্য রাখেন শ্রমিক কর্মচারী ঐক্য পরিষদ-স্কপের হারুনার রশিদ ভুইয়া, বাংলাদেশ সংযুক্ত শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক মোকাদ্দেম হোসেন, প্রশিকার পরিচালক নার্গিস জাহান বানু, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের সিনিয়র আইনজীবী আফজাল হোসেন, নাগরিক পরিষদের আহ্বায়ক মোহাম্মদ শামসুদ্দিন, সাবেক ব্যাংকার নওয়াব আলী ভূইয়া, স্বাধীনতা পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফয়েজ হোসেন, শ্রমিক নেতা বজলুর রহমান বাবলু, সমাজতান্ত্রিক মজদুর পার্টির সাধারণ সম্পাদক ডা. সামছুল আলম, সাবেক ছাত্রনেতা হাসান মঞ্জুর, মানবাধিকার কর্মী মো. হানিফ, গার্মেন্টস শ্রমিক নেত্রী কামরুন্নার, মানবাধিকার কর্মী মাহববু নেওয়াজ চৌধুরী প্রমুখ।

হাইলাইটস এর আরো খবর