মঙ্গলবার, ১৫ জুন ২০২১
logo
রাবি শিক্ষক হত্যার বিচার দাবিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে স্মারকলিপি
প্রকাশ : ০৬ মে, ২০১৬ ১৩:১৭:৩২
প্রিন্টঅ-অ+
শিক্ষা ওয়েব

ঢাকা : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যায়ের (রাবি) অধ্যাপক রেজাউল করিম সিদ্দিকীর হত্যাকারীদের খুঁজে বের করে সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে অনতিবিলম্বে গ্রেপ্তার ও দ্রুত বিচারের দাবিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশন।
 
বৃহস্পতিবার (০৫ মে) দুপুরে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশনের সভাপতি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ ও মহাসচিব অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামালের নেতৃত্বে ৬ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে এ স্মারকলিপি প্রদান করেন।
 
প্রতিনিধি দলের অন্য সদস্যরা হলেন- রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. শাহ আজম শান্তনু, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মো. সাইফুদ্দিন এবং বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মো. এহসান।
শিক্ষকদের সঙ্গে আলাপকালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রেজাউল করিম হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িতদের গ্রেপ্তারে তড়িৎ কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে আশ্বাস দেন। জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস দমনেও তিনি তার প্রতিশ্রুতি পুর্নব্যক্ত করেন।
শিক্ষক নেতারা অভিযোগ করেন, অধ্যাপক রেজাউল করিম হত্যাকাণ্ডের পর সরকারের কোনো নির্বাচিত প্রতিনিধি রাবিতে গিয়ে শিক্ষকদের সাথে সংহতি প্রকাশ করেনি। এমনকি সহমর্মিতা জানাতে অধ্যাপক রেজাউল করিমের বাসভবনেও কেউ যাননি।
শিক্ষকদের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে মন্ত্রী জানান, তিনি আগামী ১৪ মে শনিবার রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে যাবেন এবং সেখানে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও নাগরিকদের সঙ্গে জঙ্গিবাদ দমন নিয়ে আলোচনা করবেন। জঙ্গিবাদ দমনে আরও তৎপর করতে পুলিশ প্রশাসনকে প্রয়োজনে ঢেলে সাজানোর উদ্যোগও নেবেন বলে শিক্ষক নেতৃবৃন্দকে জানান।
 
স্মারকলিপিতে শিক্ষকরা বলেন, ‘তদন্ত কাজে সহযোগিতার নামে যুক্তরাষ্ট্র এ দেশের অভ্যন্তরীণ কর্মকাণ্ডে হস্তক্ষেপ করতে চাইছে। ইতোমধ্যে রাষ্ট্রদূত তার বক্তব্যে তদন্তে সহযোগিতা করার ইচ্ছা পোষণ করেছেন। আমরা যুক্তরাষ্ট্রের এসব অশুভ তৎপরতার প্রেক্ষিতে আপনি ও আপনার মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে সরকারকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানাচ্ছি।’
স্মারকলিপিতে আরো বলা হয়, সংঘটিত এসব ঘটনাকে পুলিশ প্রশাসন বিচ্ছিন্ন ঘটনা বলে চিহ্নিত করলেও প্রকৃত অর্থে এগুলোকে কোনো বিচ্ছিন্ন ঘটনা ভাববার অবকাশ নেই। প্রকৃত ঘটনা উদঘাটনে পুলিশ প্রশাসনের ব্যর্থতাও ইতোমধ্যে জনদৃষ্টিতে স্পষ্ট হয়ে ওঠেছে। আমরা পুলিশি কর্মকাণ্ডের স্থবিরতাও প্রত্যক্ষ করছি।
প্রসঙ্গত, রাবি শিক্ষক হত্যার প্রতিবাদে এবং দ্রুত হত্যাকারীদের সনাক্ত করে বিচারের দাবিতে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশনের আহ্বানে গত ২ মে থেকে দেশের ৩৭টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে একযোগে সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত ০৩ ঘণ্টার কর্মবিরতি, কালো ব্যাজ ধারণ ও দুপুর ১২টা থেকে ১টা পর্যন্ত অবস্থান কর্মসূচি পালিত হয়েছে। পর দিন গত ৩ মে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় নেতাদের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত হয়েছে প্রতিবাদ সমাবেশ।

শিক্ষাঙ্গন এর আরো খবর