সোমবার, ২৬ জুলাই ২০২১
logo
হিজলায় আ.লীগ-ছাত্রলীগ সংঘর্ষে আহত ৭
প্রকাশ : ৩১ মে, ২০১৫ ২০:২৯:৪২
প্রিন্টঅ-অ+

ফাইল ছবি

জেলা ওয়েব

বরিশাল: হিজলা উপজেলায় আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ হয়েছে। এতে আহত হয়েছে উভয় গ্রুপের অন্তত ৭ নেতাকর্মী।
রোববার বেলা সাড়ে ১১ দিকে উপজেলা পরিষদের সামনের সড়কে এ সংঘর্ষ হয়।
প্রত্যক্ষদর্শী ও একাধিক সূত্র জানায়, পূর্ব বিরোধকে কেন্দ্র করে স্থানীয় হরিণাথপুর ইউনিয়নয় চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা তৌফিকুর রহমান সিকদারের সঙ্গে উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা লোকমান হোসেনের বাকবিতণ্ডা হয়। এসময় ছাত্রলীগ নেতার সহযোগিরা আওয়ামী লীগ নেতা তৌফিকুর রহমান সিকদার, একই ইউনিয়নের সদস্য (মেম্বর) আজিজুল হক মুন্না ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল লতিফ খানকে লাঞ্ছিত করেন।
এ ঘটনা দ্রুত উপজেলায় ছড়িয়ে পড়লে তৌফিকুর রহমান সিকদারের অনুসারীদের সঙ্গে একই স্থানে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। এতে উভয় গ্রুপের সাত নেতাকর্মী আহত হন।
ইউপি চেয়ারম্যান তৌফিকুর রহমান সিকদার জানান, বেলা ১২টার দিকে উপজেলা পরিষদে উন্নয়ন সমম্বয় কমিটির সভা ছিল। ওই সভায় যোগদানের জন্য তারা পরিষদে যাচ্ছিলেন। পরিষদের সামনের সড়কে পৌঁছনো মাত্রই লোকমানের নেতৃত্বে একদল যুবক তাদের ওপর হামলা চালায়।
এ বিষয়ে জানতে ছাত্রলীগ নেতা লোকমান হোসেনের মুঠোফোনে একাধিকবার কল করা হলেও তিনি রিসিভ করেন নি।
তবে সংঘর্ষের বিষয়টির অস্বীকার করে হিজলা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম সরোয়ার বাংলামেইলকে জানান, পূর্ব বিরোধের জের ধরে দু’পক্ষের মধ্যে হাতাহাতির খবর পাওয়া গেছে। তবে এ ঘটনায় কোনো পক্ষ অভিযোগ করেনি।
ইউপি সদস্য আজিজুল হক মুন্না জানান, স্থানীয় সংসদ সদস্য পংকজ দেবনাথ গত ২৬ মে হরিণাথপুর লঞ্চঘাট থেকে লঞ্চে ওঠে ঢাকায় যান। এ সময় লঞ্চঘাটে স্লোগান দেয়া নিয়ে ছাত্রলীগের একদল নেতাকর্মীর সঙ্গে হরিণাথপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতাদের বাকবিতণ্ডা হয়।
এ ঘটনার জের ধরে দুদিন পরে স্থানীয় লোকজন ছাত্রলীগকর্মী রফিককে মারধর করে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ছাত্রলীগ নেতা লোকমানের নেতৃত্বে তাদের ওপর হামলা চালানো হয়।
এ ঘটনায় উপজেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে ছাত্রলীগ নেতা লোকমানসহ সব হামলাকারীকে অভিযুক্ত করে মামলা দায়ের করা হবে বলে জানান আজিজুল হক মুন্না।
 

জেলা এর আরো খবর