রোববার, ১৬ মে ২০২১
logo
প্রচারণায় বাঁধা ও হুমকি-ধমকি দেয়ার অভিযোগ
কচুয়ায় স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুস সামাদ আজাদের অফিস ভাংচুর ॥ আহত ১০
প্রকাশ : ২৭ মে, ২০১৬ ১০:২৫:২৭
প্রিন্টঅ-অ+
চাঁদপুর ওয়েব ডেস্ক

চাঁদপুর: কচুয়া উপজেলার ৫নং পশ্চিম সহদেবপুর ইউনিয়নে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মোঃ আব্দুস সামাদ আজাদের (আনারস) নির্বাচনী অফিস ভাংচুরে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী মোঃ শামসুদ্দীন মুন্সীর কর্মী সমর্থকদের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ উঠে। এসময় আব্দুস সামাদ আজাদের অন্তত ১০ জন সমর্থক আহত হয়েছে। আহতরা হচ্ছে-আল-আমিন ভুইয়া সুমন (২৮), সোহাগ হোসেন (২৭), মাসুদ (২৫), মোরশেদ (৩০) কালাম (৩২)। আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।
খবর পেয়ে পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিত নিয়ন্ত্রণে আনে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে ওই ইউনিয়নের দারাশাহী-তুলপাই বাজারে হামলা ও ভাংচুরের এ ঘটনা ঘটে।
৫নং পশ্চিম সহদেবপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি স্বতন্ত্র পদে আনারস মার্কার চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুস সামাদ আজাদ অভিযোগ করে বলেন- শামসুদ্দীন মুন্সীর কর্মী সমর্থকরা দেশীয় অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে তার তুলপাই বাজারস্থ নির্বাচনী অফিসে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করে। এসময় তার সমর্থক ও ব্যবসায়ীসহ অন্তত  ১০ জন কর্মীকে অন্যায়ভাবে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। তাছাড়া তিনি আরও বলেন- আনারস প্রতীকে ইউনিয়নে বিভিন্ন স্থানে গনসংযোগ করতে গেলে গত কয়েকদিন শামসুদ্দীন মুন্সীর কর্মী সমর্থকরা বাধা সৃষ্টি ও বিভিন্ন ভাবে হুমকি ধমকি ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করছে। তিনি বলেন-নির্বাচন করা সবার নাগরিক অধিকার। আমি এলাকাবাসী ও সাধারন মানুষের সমর্থন নিয়ে প্রার্থী হয়েছি। আমার বিশ্বাস আগামী দিন সাধারন মানুষ আনারস প্রতীকে ভোট দিয়ে আমাকে বিপুল ভোটে জয়যুক্ত করবে। তিনি আরও বলেন-শান্তিপূর্ন পরিবেশে সাধারন মানুষ যাতে ভোট কেন্দ্রে গিয়ে নির্ভয়ে ভোট দিতে পারে তার জন্য প্রশাসন, মিডিয়া কর্মী ও নেতাকর্মীদের সহযোগিতা কামনা করেছেন।
ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মফিজুর রহমান বলেন-পশ্চিম সহদেবপুর ইউনিয়নে আনারস প্রতীকের গনজোয়ার উঠেছে। এ জোয়ার দেখে শামসুদ্দীন মুন্সী ও তার কতিপয় ব্যক্তিরা অস্থির হয়ে উঠেছে। যার ফলে আমাদের অফিস ভাংচুর ও নেতাকর্মীদের বিভিন্নভাবে হয়রানির চেষ্টা করছে। সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আব্দুল আউয়াল বলেন- দলমত নির্বিশেষে এবার আমরা ইউনিয়নের উন্নয়নের স্বার্থে আব্দুস সামাদ আজাদ ভাইকে আনারস প্রতীকে ভোট দিয়ে বিজয়ী করব। গত কয়েকদিনে প্রচার-প্রচারনা ও জনসমর্থনে আব্দুস সামাদ আজাদ এগিয়ে রয়েছে বলেও তিনি জানান।
আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী শামসুদ্দীন মুন্সী উপরোক্ত অভিযোগ সঠিক নয় দাবী করে উল্টো বলেন- আমার নেতাকর্মীদের আব্দুস সামাদ আজাদের কর্মী-সমর্থকরা বিভিন্ন ভাবে হয়রানি সহ নির্বাচনী কাজে বাধা দিচ্ছে। এদিকে তুলপাই বাজারে আব্দুস সামাদ আজাদের অফিস ভাংচুরের এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে তুলপাই এলাকায় উভয় পক্ষের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। ফের যাতে কোন সংঘর্ষ বেধে না যায়, সে লক্ষ্যে শান্তিপূর্ন পরিবেশ বজায় রাখতে ওই এলাকায় বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে।
কচুয়া থানার ওসি মোহাম্মদ ইবরাহীম খলিল জানান, কচুয়ায় ১২টি ইউনিয়নে ইউপি নির্বাচনে শান্তিপূর্ন পরিবেশ বজায় রাখতে র‌্যাব সহ বিজিবি সদস্যরা বিভিন্ন স্থানে টহল দিচ্ছে।
 

চাঁদপুর : স্থানীয় সংবাদ এর আরো খবর