শুক্রবার, ১৮ জুন ২০২১
logo
স্বাভাবিক হচ্ছে আবহাওয়া, সদরঘাটে শুরু লঞ্চ চলাচল
প্রকাশ : ২১ মে, ২০১৬ ২১:২২:২০
প্রিন্টঅ-অ+
রাজধানী ওয়েব

ঢাকা : বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় ‘রোয়ানু’র আঘাত ক্রমশ কমে আসায় এবং বৈরী আবহাওয়ায় কিছুটা কমতে থাকায় সদরঘাট নৌ-বন্দর থেকে ৩৬টি নৌ-রুটের ৬৫ ফিটের নীচের (ছোট লঞ্চ) যাত্রীবাহী লঞ্চ চলাচলের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
শনিবার (২১ মে) বিকেল সাড়ে ৫টা থেকে এই লঞ্চ চলাচলের নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)।
সদরঘাট নৌ-বন্দরের যুগ্ম পরিচালক (যান্ত্রিক) জয়নাল আবেদিন বাংলামেইলকে এ তথ্য জানিয়েছেন।
তিনি বলেন, ৬৫ ফিটের নীচের লঞ্চ চলাচলের নির্দেশ দিয়েছি। তবে বৈরী আবহাওয়া পুরোপুরি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত ৬৫ ফিটের উপরে কোনো লঞ্চ চলাচল করতে পারবে না।’
এর আগে শুক্রবার (২০ মে) বিকেলে সাড়ে ৪টা থেকে বিআইডব্লিউটিএ এক ঘোষণায় পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত সারা দেশের নৌপথে নৌযান চলাচল বন্ধের নির্দেশ দেয়।
আবহাওয়া পুরোপুরি অনুকূলে না আসা পর্যন্ত ৬৫ ফিটের উপরে যেকোনো লঞ্চ চলাচল বন্ধ থাকার আদেশ বলবৎ থাকবে বলে জানিয়েছেন জয়নাল আবেদিন।
এর আগে শনিবার বিকেল থেকে সন্ধ্যার মধ্যে ঘূর্ণিঝড় ‘রোয়ানু’ বাংলাদেশের উপকূলে আঘাত হানতে পারে। ঘূর্ণিঝড়টি দেশের চট্টগ্রাম ও নোয়াখালী উপকূলে আঘাত হেনে মিয়ানমারের দিকে চলে যেতে পারে। শুক্রবার (২০ মে) আবহাওয়া অধিদপ্তর এ তথ্য জানায়।
দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. শাহ কামাল শুক্রবার সাংবাদিকদের বলেন, ‘আজ উপকূলের ১৮ জেলার সাড়ে ২১ লাখ মানুষকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নেয়া হচ্ছে।’
শুক্রবার আবহাওয়া অধিদপ্তর আরো জানায়, ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে উপকূলীয় জেলা চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর, বরগুনা, পটুয়াখালী, ভোলা, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরগুলোর নিম্নাঞ্চল স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে চার-পাঁচ ফুটের বেশি উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হতে পারে।
ঘূর্ণিঝড় অতিক্রমকালে কক্সবাজার, চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর, বরগুনা, পটুয়াখালী, ভোলা, বরিশাল, পিরোজপুর জেলা এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরগুলোতে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিসহ ঘণ্টায় ৬২-৮৮ কিলোমিটার বেগে দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে।
এদিকে শনিবার বিকেল পর্যন্ত পাওয়া তথ্য মতে, উপকূলীয় অঞ্চলের বিভিন্ন জেলায় ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে অন্তত ১৫ জনের প্রাণহানি হয়েছে।

রাজধানী এর আরো খবর