বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০১৯
logo
মন্ত্রী পরিবারে বিয়ে, ৫০ বিমানে অতিথি!
প্রকাশ : ০৯ ডিসেম্বর, ২০১৬ ১৬:২০:৪৬
প্রিন্টঅ-অ+
পশ্চিম ওয়েব
কলকাতা: ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলছেন, বড়লোকের কালো টাকা উদ্ধার করে গরিবের কল্যাণ করবেন। গোটা দেশে নোটের আকালে নাকানিচুবানি খাচ্ছে মানুষ। কিন্তু দেশটির কেন্দ্রীয় সড়ক পরিবহণ মন্ত্রী নিতিন গডকড়ীর মেয়ের বিয়ের ঘটা দেখলে এমনটা বুঝার হওয়ার উপায় নেই।

নাগপুরের ওয়ার্ধা রোডে রানি কোঠিতে সোমবার বিয়ের আসর বসেছে। সেখানে নিমন্ত্রিত অসংখ্য ভিভিআইপি।

স্থানীয় বিভিন্ন সূত্রের দাবি, অতিথিদের ৫০টি চার্টার্ড বিমানে উড়িয়ে আনা হচ্ছে নাগপুর। অতিথিদের তালিকায় রয়েছেন ১০ হাজারেরও বেশি মানুষ।

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংহ, বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ, মুকেশ অম্বানী এবং রতন টাটা, কুমারমঙ্গলম বিড়লার মতো শিল্পপতি তো আছেনই।

বাদ যাননি সাবেক উপ-প্রধানমন্ত্রী লালকৃষ্ণ আডবাণী, মহারাষ্ট্র নবনির্মাণ সেনার প্রধান রাজ ঠাকরে, শিবসেনা প্রধান উদ্ধব ঠাকুরও।

ফলে নাগপুরগামী সব বিমানে এই দু’দিনে কোনো টিকিটই পাননি সাধারণ যাত্রীরা।

গডকড়ীর তরফে অবশ্য বলা হচ্ছে, ৫০টা নয়, মাত্র ১০টা বাড়তি বিমান নেমেছে নাগপুরে।

কিছু দিন আগে কর্নাটকের সাবেক বিজেপি মন্ত্রী জি জনার্দন রেড্ডির মেয়ের বিয়ের আড়ম্বর নিয়েও অনেক প্রশ্ন উঠেছিল। আয়কর দফতর নজরও রেখেছিল। কিন্তু গডকড়ীর মতো কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রাজনৈতিক ধারে ও ভারে অনেকটাই এগিয়ে। বিরোধী শিবির থেকে আমন্ত্রিত কংগ্রেস সহ-সভাপতি রাহুল গাঁন্ধী। আসবেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার, এনসিপি প্রধান শরদ পওয়ারও।

থাকবেন রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের (আরএসএস) প্রধান মোহন ভাগবত। নাগপুরে এমন ভিভিআইপি অতিথি সমাগম হয়েছিল ছ’বছর আগে। সে বার ছিল গডকড়ীর বড় ছেলে নিখিলের বিয়ে। গডকড়ী তখন ছিলেন বিজেপি সভাপতি।

এই রবিবাসরীয় সন্ধ্যায় গডকড়ীর মেয়ে কেতকীর বিয়ে নাগপুরেরই সন্ধ্যা এবং রবীন্দ্র কাশখেদিকরের ছেলে আদিত্যর সঙ্গে।

আমেরিকায় ফেসবুকে কাজ করেন আদিত্য। বিয়ে মিটলেই আগামীকাল মঙ্গলবার থেকে দু’সপ্তাহ ধরে মহারাষ্ট্রের বিধানসভার অধিবেশন শুরু। তাই সব বিধায়কও হাজির থাকবেন হাই প্রোফাইলের এই বিয়েতে।

এদিকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী নোট বাতিলের জেরে তৈরি হওয়া অর্থনৈতিক সঙ্কট নিয়ে বারবার দেশবাসীকে পাশে থাকতে বলছেন, সেখানে তার দলেরই মন্ত্রীর মেয়ের বিয়েতে এমন আয়োজন নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকেরই।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আরএসএসের এক স্বয়ংসেবকের মন্তব্য, ‘‘গডকড়ী তো সঙ্ঘের মতাদর্শ জানেন। তিনি নিজে এখনো স্বয়ংসেবক। এ ধরনের এলাহি আয়োজন আমাদের সঙ্ঘের সঙ্গে একেবারেই খাপ খায় না।’’

পশ্চিম বাংলা এর আরো খবর