মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯
logo
দেশের শত্রু কারা, প্রশ্ন নয় ভারতের কোনো বাবাকে!
প্রকাশ : ৩১ অক্টোবর, ২০১৬ ১৮:৩৯:০৬
প্রিন্টঅ-অ+
পশ্চিম ওয়েব
কলকাতা: ভারতকে তিনি যতটা ভালোবাসেন, নিজের দেশকে ততটা ভালোবাসেন না বহু ভারতীয়৷ তার উপর, এমন অনেক ‘দেশপ্রেমিক’ মানুষের সঙ্গে তার সাক্ষাৎ হয়েছে, যারা নিজেদের দেশের মহিলাদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার, গরিবদের ঘৃণা এবং সহনাগরিকদের শোষণ করেন৷ তা হলে, ‘আধুনিক, সভ্য, ধর্মনিরপেক্ষ, গণতান্ত্রিক ভারতে’র শত্রু কারা? এমনই প্রশ্ন করেছেন তিনি৷

তবে, ভারতের কোনো ‘বাবা’ অথবা ‘বাবা’র সিইও কিংবা সিইও-র কোটি কোটি টাকার বিষয়ে প্রশ্নের অনুমতি দেয়া হবে না বলে তিনি উদ্বিগ্ন! কারণ, শুধুমাত্র যে প্রশ্ন করার অনুমতি মিলবে না, তা-ই নয়৷ আসলে মুখ বন্ধ রাখতে হবে এবং বলতে হবে বাক স্বাধীনতা রয়েছে! আর, জাতীয়তাবাদ? এই বিষয়টি এখন ধর্মের মতো হয়ে উঠছে৷ তাই, কেউ যদি ধর্মীয় ব্যক্তি অথবা জাতীয়তাবাদী না হন, তা হলে তিনি শারীরিক নিগ্রহের শিকার হতে পারেন! আর, এ ভাবেই দেশপ্রেম, জাতীয়তাবাদ সহ ভারতের গণতন্ত্র, বাক স্বাধীনতার বিষয়ে প্রশ্ন তুলে দিলেন লেখিকা তসলিমা নাসরিন৷

ওয়াকিবহাল মহলের বিভিন্ন অংশ এমন মনে করছে যে, একের পর এক বিভিন্ন ঘটনার পরিপ্রক্ষিতে লেখিকা এ ভাবে একের পর এক টুইট করেছেন৷ আর, তার ওই সব টুইট বার্তায় যেমন বিভিন্ন প্রশ্ন তুলে দিয়েছেন তিনি৷ তেমনই, কঠোর সমালোচনাও করেছেন৷ একের পর এক টুইটে কী বলেছেন তসলিমা নাসরিন? তিনি এমন বলেছেন, “ধর্মের মতো হয়ে উঠছে জাতীয়তাবাদ৷ আপনি যদি ধর্মীয় ব্যক্তি অথবা জাতীয়তাবাদী না হন, তা হলে আপনি শারীরিক নিগ্রহের শিকার হতে পারেন৷” আর, দেশপ্রেম নিয়ে টুইট বার্তায় তিনি কী বলছেন?

লেখিকা এমন বলেছেন, “এমন অনেক মানুষের সঙ্গে তার সাক্ষাৎ হয়েছে, যারা নিজেদের দেশপ্রেমিক হিসেবে বিবেচনা করেন৷ কিন্তু, ওই সব মানুষ তাদের দেশের মহিলাদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন৷ তাদের দেশের গরিব মানুষকে ঘৃণা করেন ওই সব দেশপ্রেমিক৷ এবং, ওই সব দেশপ্রেমিক মানুষ তাঁদের সহ নাগরিকদের শোষণ করেন৷’ একই সঙ্গে তিনি এমনও বলেছেন যে, বহু ভারতীয়র তুলনায় ভারতকে তিনি অনেক বেশি ভালোবাসেন৷” শুধুমাত্র তাই নয়৷ বাক স্বাধীনতার বিষয়ে তসলিমা নাসরিন যেভাবে প্রশ্ন তুলে দিয়েছেন, তা নিয়েও বিভিন্ন মহলে জারি রয়েছে বিতর্ক৷

কী সেই মন্তব্য? টুইটারে তসলিমা নাসরিন এমন বলেছেন, “ভারতে দেখা যাচ্ছে, কোনো বাবা, বাবার সিইও, সিইও-র কোটি কোটি টাকা, আয়ুর্বেদ নিয়ে কোনো প্রশ্ন করার অনুমতি দেয়া হবে না৷ আপনাকে মুখ বন্ধ রাখতে হবে এবং বলতে হবে, আপনার বাক স্বাধীনতা রয়েছে৷” আর, অন্য একটি টুইটে তিনি প্রশ্ন এই তুলেছেন, ‘‘আধুনিক, সভ্য, ধর্মনিরপেক্ষ, গণতান্ত্রিক ভারতে’র শত্রু কারা?’

পশ্চিম বাংলা এর আরো খবর