মঙ্গলবার, ১২ নভেম্বর ২০১৯
logo
যে মন্ত্রীর জন্য পাগল ৪৪ হাজার পাত্রী!
প্রকাশ : ২৩ অক্টোবর, ২০১৬ ১৮:১০:০৩
প্রিন্টঅ-অ+
পশ্চিম ওয়েব

কলকাতা: রাস্তা নিয়ে বার্তা দিতেই হোয়াটস অ্যাপ নম্বর দেয়া হয়েছিল। তবে সেখানে রাস্তার সমস্যা নিয়ে কোনো অভিযোগ না আসলেও প্রণয় বার্তায় তা হয়েছে পরিপূর্ণ।
 
আর এতে বেশ বিব্রত ওই নম্বরে অভিযোগ দেয়ার নির্দেশনা দেয়া বিহারের উপমুখ্যমন্ত্রী তথা পূর্ত ও সড়কমন্ত্রী।
 
বিহারের রাস্তার হাল-হকিকত জানতে চেয়েছিলেন বিহারের 'মোস্ট এলিজিবল ব্যাচেলর'খ্যাত উপমুখ্যমন্ত্রী তথা পূর্ত ও সড়কমন্ত্রী তেজস্বী যাদব। এ জন্য তিনি তৈরি করেন একটি ‘হোয়াটস অ্যাপ’ গোষ্ঠী- অভিযোগ গ্রহণের ব্যবস্থা। তবে জনগণের থেকে আসা বার্তাগুলোর বেশিরভাগই অভিযোগ নয়, ছিল গুচ্ছ গুচ্ছ প্রেমের প্রস্তাব।
 
আর এসব বার্তা কেবল বিহার নয়, দিল্লি, হরিয়ানা, পাঞ্জাব, গুজরাট এবং মহারাষ্ট্র থেকেও আসছে। ইতিমধ্যেই প্রায় ৪৪ হাজার 'প্রণয় বার্তা'য় উপচে পড়ছে ওই হোয়াটস অ্যাপ নম্বর।
 
বিহারের দফতর সূত্রের খবর, পাটনা থেকে একটি মেয়ে মেসেজ পাঠিয়েছেন, “আমার গোত্র অনুযায়ী আমি উচ্চবর্ণের। তবে আপনাকে বিয়ে করতে আমার কোনো আপত্তি নেই। শহরের সেন্ট জোসেফ স্কুল থেকে পড়াশোনা শেষ করেছি। আপনাকে বিয়ে করে রাজনীতিতে ক্যারিয়ার বানাতে চাই।”
 
দিল্লির লেডি শ্রীরাম কলেজের একটি মেয়ে বার্তা পাঠিয়েছেন, “শুধু আপনাকেই বিয়ে করতে চাই।”
 
এদিকে দফতরের নম্বরে প্রেম ও বিয়ের প্রস্তাব আসার বিষয়টি জানেন তেজস্বী নিজেও।
 
তিনি বলেন, “আমি নিজে ওই গ্রুপের বার্তা দেখি না। রাস্তা সংক্রান্ত অভিযোগের জন্য ওই গ্রুপের বার্তা দেখার নির্দিষ্ট একটি টিম রয়েছে। তাই কেমন বার্তা এসেছে বলতে পারব না। তবে শুনেছি ওই হোয়াটস অ্যাপ নম্বরে প্রায় ৪৭ হাজার মেসেজ এসেছে। তার ১০ শতাংশও রাস্তা সংক্রান্ত নয়।”
 
গ্রুপের দায়িত্বে থাকা দফতরের সাবেক এক জুনিয়র প্রকৌশলী বলেন, “সকলেই ভাবছেন এটা তেজস্বীর নিজস্ব নম্বর। তাই বার্তা পাঠাচ্ছেন।”
 
এদিকে ছেলের জনপ্রিয়তায় খুশি যাদব কুলপতি লালু প্রসাদ। স্ত্রী রাবড়ী দেবীর ১০ নম্বর সার্কুলার রোডের বাড়িতে বসে নিজস্ব কায়দায় তিনি বলেন, “মেয়ে ভাল হলে জাতপাত নিয়ে কোনো সমস্যা হবে না। তেজস্বীর বিয়ে দিয়ে দেব।” -সংবাদমাধ্যম।

পশ্চিম বাংলা এর আরো খবর