শুক্রবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯
logo
কলকাতায় পাঁচ জেএমবিসহ ৬ জঙ্গি গ্রেফতার
প্রকাশ : ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৬:৩২:৩৪
প্রিন্টঅ-অ+
পশ্চিম ওয়েব

কলকাতা: ভারতের কলকাতা শহর থেকে জেএমবির পাঁচসদস্যসহ ছয় জঙ্গিকে গ্রেফতার দেশটির পুলিশ। গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে দুজন ‘র’ ও এনআইএস'র তালিকায় থাকা মোস্ট ওয়ান্টেড জঙ্গি বলে দাবি পুলিশের।
পুলিশ বলছে, তারা খাগড়াগড় সন্ত্রাসী কাণ্ডে যুক্ত ছিল। বাংলাদেশের জামাতের সঙ্গে তাদের যোগসূত্র পাওয়া গেছে। সোমবার দেশটির পুলিশের বরাদ দিয়ে এ খবর দিয়েছে কলকাতা২৪।
এতে আরো বলা হয়, পূজোর আগে কলকাতায় নাশকতার ছক কষতে তারা এসেছিল বলে জানাচ্ছে কলকাতা পুলিশ। তাদের মধ্যে একজনকে অসমের কাছাড় থেকে গ্রেফতার করা হয়।
অন্যান্যদের রোববার রাতে বারাসত ও বসিরহাট থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে এসটিএফ।
এসটিএফ জানায়, গ্রেফতারকৃতদের সঙ্গে বাংলাদেশের জঙ্গি সংগঠনের ‌যোগা‌যোগ ছিল। সোমবারই তাদের ব্যাঙ্কশাল আদালতে তোলা হবে। ওইসব জঙ্গিদের কাছ থেকে বেশকিছু আপত্তিকর নথি উদ্ধার করা হয়েছে। পাওয়া গেছে বেশকিছু জাল নোট। এ ছাড়াও ছিল ল্যাপটপ, মোবাইল ও ভুয়া পরিচয়পত্র, তার কাটার যন্ত্র, বৈদ্যুতিক সরঞ্জামের বই।
জঙ্গিরা দেশে বেশ কয়েকটি নাশকতার সঙ্গে জড়িত ছিল বলেও দেশটির আইন শৃঙ্খলাবাহিনী দাবি করছে।
কলকাতার যুগ্ম পুলিশ কমিশনার (অপরাধ দমন শাখা) বিশাল গর্গ সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, জঙ্গিরা কী উদ্দেশে কলকাতায় এসেছিল, তা জেরা করে জানার চেষ্টা করবে পুলিশ।
গ্রেফতারকৃত জঙ্গিদের একজন হল- মওলানা ইউসুফ। যিনি বাংলাদেশের বাসিন্দা বলে খবরে বলা হয়।
এতে আরো বলা হয়, তিনি জেএমবি সদস্যদের ট্রেনিং দেয়ার জন্য একে নিযুক্ত হয়েছিলেন।
এ ছাড়া ধৃত আনোয়ার হুসেনও বাংলাদেশের বাসিন্দা। শাহিদুল ইসলাম নামের এক জঙ্গি অসমের বরপেটার বাসিন্দা।
পুলিশ জানিয়েছে, নাশকতার পরিকল্পনা করাই ছিল ওই জঙ্গির কাজ।
বাংলাদেশি জঙ্গি মহম্মদ রুবেল ছিল এনআইএ'র মোস্ট ওয়ান্টেডের তালিকায়। রুবেল আইইডি তৈরিতে সিদ্ধহস্ত। অসমের বরপেটার বাসিন্দা আরো এক জঙ্গি আব্দুল কালামকেও গ্রেফতার করা হয়েছে।
এনআইএ'র মোস্ট ওয়ান্টেড তালিকায় থাকা আরো এক জঙ্গিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। যার নাম জামরুল ইসলাম ওরফে জাহিদুল ইসলাম। তাকেই অসমের কাছাড় থেকে গ্রেফতার করা হয় বলে পুলিশের দাবি।
খবরে বলা হয়, সম্প্রতি কেন্দ্রীয় সরকার সিআইএসএফকে কলকাতায় বড়সড় নাশকতার ব্যাপারে একটি সতর্ক করে। আশঙ্কা করা হয়েছিল কলকাতা বিমানবন্দর, পার্কস্ট্রিটের মতো জায়গায় হামলার আশঙ্কা করা হয়েছিল।
কেন্দ্রের ওই সতর্কবার্তার পরই কলকাতা ও কলকাতা লাগোয়া দুই ২৪ পরগনার বিভিন্ন জায়গায় তল্লাশি চালাতে শুরু করে দেশটির পুলিশ।

পশ্চিম বাংলা এর আরো খবর