মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯
logo
পশ্চিমবঙ্গ হচ্ছে বাংলা! বিধানসভায় প্রস্তাব পাশ
প্রকাশ : ৩০ আগস্ট, ২০১৬ ১৪:২৮:৪২
প্রিন্টঅ-অ+
পশ্চিম ওয়েব

কলকাতা: রাজ্যের নাম বদলানোর প্রস্তাব পাশ হয়ে গেল বিধানসভায়। পশ্চিমবঙ্গ বদলে রাজ্যের নাম ‘বাংলা’ রাখতে দ্রুত কেন্দ্রীয় সরকারকে যোগাযোগ করবে রাজ্য সরকার। বিধানসভার অধিবেশনের পরে সাংবাদিকদের জানিয়ে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। আজ ও কাল, দু’দিন ধরে চলবে রাজ্যের নাম বদলের আলোচনা। তারপর চূড়ান্ত হবে কী হবে রাজ্যের নাম।
এদিন বিধানসভায় মন্ত্রী পার্থ চ্যাটার্জি রাজ্যের নাম ‘বাংলা’, ইংরেজিতে ‘বেঙ্গল’, হিন্দিতে ‘বঙ্গাল’ হোক, এই প্রস্তাব রাখেন। কংগ্রেসের তরফে অসিত মিত্র, তামিলনাড়ু এবং মাদ্রাজের প্রসঙ্গ টেনে এনে বলেন, রাজ্যের নাম পরিবর্তনের আগে সর্বস্তরের একটি কমিটি গঠন করা হোক। বামফ্রন্টের তরফে সুজন চক্রবর্তী বলেন, রাজ্যের নাম পরিবর্তন একটি ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত। তাই সর্বস্তরের মতামত নেওয়া প্রয়োজন। ফিরাদ হাকিম এদিন বলেন, বাংলা নামটির মধ্যে আবেগ আছে। ধর্মের নামে পশ্চিমবঙ্গ–পূর্ববঙ্গ ভাগ করেছিল ব্রিটিশরা।
টিভি চ্যানেলে বসে যাঁরা বক্তব্য রাখেন, রাজ্যের নাম পরিবর্তন করতে গেলে কী তাঁদের মতামত নিতে হবে? বিধানসভায় এদিন অশোক দিন্দাও ‘বাংলা’ নাম রাখার সমর্থনেই কথা বলেন। বসিরহাটের বিধায়ক দীপেন্দু বিশ্বাস বলেন, আমরা যখন বাইরে খেলতে যাই, তখন জার্সিতে ‘বেঙ্গল’ লেখা থাকে। যখন ট্রফি জিতে রাজ্যে ফিরি, তখনও বাংলাই বলা হয়। সুতরাং, বাংলাতে আপত্তি থাকার কোনও কারণ নেই।
এছাড়াও বাংলা নামের সঙ্গে আলাদা আবেগ জড়িয়ে আছে। গত শুক্রবার মেয়ো রোডে তৃণমূলের ছাত্র পরিষদের প্রতিষ্ঠা দিবসে মঞ্চে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা পশ্চিমবঙ্গের নাম পরিবর্তন করতে চাই। বি জে পি বলছে দিল্লি এটা আটকাবে। দেখা যাক! আপনারা বলুন, কী নাম হওয়া উচিত। এর পর ‘বঙ্গ’ এবং ‘বাংলা’র মধ্যে যে কোনও একটি বেছে নিতে বলেন মমতা। দেখা যায়, অধিকাংশ ছাত্রছাত্রীই বাংলা নামের পক্ষে মত দিয়েছেন।
সোমবার বিধানসভায় বেলা ১২টা পর্যন্ত বি জে পি–র তরফে দিলীপ ঘোষ কোনও মন্তব্য করেননি। গত শুক্রবার তৃণমূল ছাত্র পরিষদের প্রতিষ্ঠা দিবস মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন নৃসিংহপ্রসাদ ভাদুড়ি। তিনিও সেদিন ‘বাংলা’ নামকেই সমর্থন করেন।

পশ্চিম বাংলা এর আরো খবর