শুক্রবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯
logo
টাকা গোনার মেশিন আপনার টাকা মারছে
প্রকাশ : ০৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৫:২২:১৬
প্রিন্টঅ-অ+
তথ্য ওয়েব

ঢাকা: টাকা গোনার কাজটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। একাজে সামান্য ভুলচুক হলে দিতে হতে পারে আর্থিক খেসারত। সেই কারণেই আজকাল মোটা অঙ্কের আর্থিক লেনদেনের ক্ষেত্রে অনেকে ভরসা করেন টাকা গোণার মেশিনের উপর। কিন্তু জানেন কি, এই মেশিনও আসলে ততটা নির্ভরযোগ্য নয়?
কারেন্সি কাউন্টিং মেশিন এমনিতে যথেষ্ট সুবিধাজনক। অতি দ্রুত মোটা মোটা টাকার বাণ্ডিল গুনে ফেলতে পারে এই যন্ত্র। ফলে যত্ন ও মনোযোগ সহকারে টাকা গোনার ঝামেলা থেকে মেলে মুক্তি। তাছাড়া অনেকেরই ধারণা থাকে, টাকা গোনার কাজে মানুষের ভুল হতে পারে, কিন্তু যন্ত্রের নিশ্চয়ই ভুল হবে না। সেই কারণে যন্ত্রের উপরে তাঁদের ভরসাও থাকে বেশি। দিনে দিনে এই সব কারণে এই যন্ত্রের জনপ্রিয়তাও বাড়ছে। প্রথম প্রথম শুধু ব্যাংকে এই যন্ত্রের দেখা মিলত। এখন বিভিন্ন দোকানেও দেখা মিলছে এই মেশিনের।
বিশেষত যেসব দোকানে মোটা অঙ্কের লেনদেনের ব্যাপার থাকে, সেখানে তো দেখা যায় এই যন্ত্র।
কিন্তু বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সম্প্রতি এক ধরনের চাইনিজ টাকা গোনার যন্ত্র এসেছে বাজারে। এই যন্ত্রের বিশেষত্ব হল, এই যন্ত্র টাকা গোনার সময় এক বিশেষ কায়দায় একগুচ্ছ টাকার মধ্যে থেকে কিছু টাকা লুকিয়ে ফেলে যন্ত্রের ভিতরে থাকা একটা গুপ্ত প্রকোষ্ঠের মধ্যে। তার ফলে কী হয়?
ধরুন, কোথাও আপনাকে ১০ হাজার টাকা দিতে হবে। আপনি গুনে গুনে ১০০ টাকার ১০০টি নোট দিলেন। যিনি টাকাটা নিলেন, তিনি টাকার বাণ্ডিলটি নিয়ে বসিয়ে দিলেন টাকা গোণার মেশিনে। মেশিনের ডিসপ্লে বোর্ডে সংখ্যা ভেসে উঠল ৯৭। আপনি ভাবলেন, আপনার গুনতে কোথাও ভুল হয়েছিল। কাজেই আপনি পকেট থেকে আরও ৩ টি ১০০ টাকার নোট বের করে দিলেন। কিন্তু যেটা আপনি জানতে পারলেন না তা হল, আপনি কিন্তু প্রথমবারে ১০০ টি নোটই দিয়েছিলেন। গোনার সময় তা থেকে ৩টি নোট মেশিনটি লুকিয়ে ফেলেছে নিজের ভিতরে। আর আপনি দিয়েছেন অতিরিক্ত ৩টি ১০০ টাকার নোট। ফলে যিনি টাকাটা গুণছিলেন তাঁর পকেটে আপনার অলক্ষ্যে ৩০০ টাকা ঢুকে গেল।
বিশ্বাস হচ্ছে না যে, যন্ত্রও এভাবে ঠকাতে পারে? তাহলে প্রমাণ হিসেবে রইল ভিডিও।
https://www.youtube.com/watch?time_continue=93&v=wuVGYZB7xmc
 
কিন্তু এই প্রতারণা ঠেকাবেন কীভাবে? বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সবচেয়ে ভাল হল, টাকা গোণার মেশিনকে এড়িয়ে চলা। ক্রেডিট বা ডেবিট কার্ডে টাকা দিলে সবকিছুরই একটা লিখিত হিসেব থাকে। ফলে কার্ডে পেমেন্ট করা সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য। আর যদি নগদ টাকাতেই পেমেন্ট করতে হয়, তাহলে যিনি টাকা নিচ্ছেন, তাঁকে অনুরোধ করুন, তিনি যেন আপনার সামনে টাকাটা গুনে নেন।

তথ্য-প্রযুক্তি এর আরো খবর