মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯
logo
তিন নম্বরে খেলতে প্রস্তুত ইমরুল
প্রকাশ : ২৩ আগস্ট, ২০১৭ ১৩:১৩:৩৩
প্রিন্টঅ-অ+
মূলত ওপেনার হিসেবেই ইমরুল কায়েসের পরিচিতি। ২৮ টেস্টের ক্যারিয়ারে ২৫ ম্যাচেই তিনি ইনিংস ওপেন করেছেন বাংলাদেশে পক্ষে। তবে অস্ট্রেলিয়া সিরিজে ওপেনিংয়ে নয়, তাকে তিন নম্বরে নামানোর পরিকল্পনা টাইগারদের। ইমরুলও বাস্তবতা মেনে নিয়ে তিন নম্বরের জন্য প্রস্তুত করছেন নিজেকে।
 
মঙ্গলবার মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে এক সংবাদ সম্মেলনে ‘দলের স্বার্থে’ যে কোনও জায়গায় খেলার কথা জানিয়ে ইমরুল বলেছেন, ‘দলের জন্য, দলের স্বার্থে যে কোনও কিছু মেনে নিতে হবে। টিম প্ল্যানের কারণেই আমি তিন নম্বরে খেলবো। টিম ম্যানেজমেন্ট এটাই ভাবছে। সৌম্য ওপেনিংয়ে গত কয়েকটা ম্যাচে ভালো করেছে। এ কারণে কোচ আমাকে তিন নম্বরে খেলানোর কথা ভাবছেন।’
 
ওপেনার হিসেবে টেস্টে তার রান ১ হাজার ২৫৮, সেঞ্চুরি ২টি। টেস্ট ক্যারিয়ারের সেরা ইনিংসও উদ্বোধনী ব্যাটসম্যানের ভূমিকায়। ২০১৫ সালে খুলনায় পাকিস্তানের বিপক্ষে ১৫০ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলার পথে তামিম ইকবালের সঙ্গে ৩১২ রানের জুটি গড়েছিলেন ইমরুল, যা এখনও বাংলাদেশের রেকর্ড উদ্বোধনী জুটি।
 
তিন নম্বরে নেমে যাওয়া ‘দুর্ভাগ্যজনক’ কিনা এমন প্রশ্নে ইমরুলের জবাব, ‘না, আমি মনে করি জাতীয় দলের হয়ে খেলাই সবচেয়ে বড় করা। বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করতে পেরে নিজেকে ভাগ্যবান মনে করি। ব্যাটিংয়ে পছন্দের জায়গা থাকতে পারে, কিন্তু দল যা ভালো মনে করে সেটাই করতে হবে। ওপেনিং কিংবা তিন নম্বর যেখানে হোক, আমি ব্যাটিং করতে পারলেই খুশি।’
 
ইমরুলের অবশ্য তিন নম্বরে  ভালোই পারফরম্যান্স। টেস্টে তার ৩টি সেঞ্চুরির একটিও  তিন নম্বরে। গত মার্চে বাংলাদেশের শততম টেস্টেও ওপেন করার সুযোগ পাননি। ওই ম্যাচের প্রসঙ্গ টেনে ইমরুলের মন্তব্য, ‘শ্রীলঙ্কায় শেষ টেস্টে আমি তিনে ব্যাটিং করেছিলাম। কোচ আমাকে বলেছেন তিনে ব্যাটিং করার জন্য। নেটে সেভাবেই অনুশীলন করছি। ওপেনার থেকে তিন নম্বরে নেমে যাওয়া কঠিন, তবে মানিয়ে  নিতে হবেই।’
 
অবশ্য একটা সুবিধাও খুঁজে পাচ্ছেন এখান থেকে, ‘একদম নতুন বলে ব্যাটিং করার অসুবিধাও কিন্তু আছে। আমি মনে করি তিনে ব্যাটিং করার সুবিধাই বেশি। অনেক বিখ্যাত ব্যাটসম্যানও তিন নম্বরে ব্যাটিং করেছেন।’
 
২০১৩ সালে টেস্ট অভিষেক থেকে চার নম্বরে খেললেও ২০১৪ সালের জিম্বাবুয়ে সিরিজ থেকে তিন নম্বরে ব্যাট করছেন মুমিনুল হক। গত শনিবার অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ঘোষিত প্রথম টেস্টের দলে শুরুতে না থাকলেও পরদিনই তাকে ফিরিয়ে আনা হয়েছে। তিন নম্বরে মুমিনুলের সঙ্গে লড়াই প্রসঙ্গে ইমরুলের বক্তব্য, ‘এ ধরনের প্রতিযোগিতাকে ইতিবাচক বলতেই হবে। প্রতিযোগিতা থাকলে টিম ম্যানেজমেন্ট সবচেয়ে যোগ্যকে খেলানোর জন্য বেছে নিতে পারে। আমি তো বলবো এটা দলের জন্যই ভালো।’

খেলা এর আরো খবর