বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০১৯
logo
‘ভয়ালবাড়ির’ দম্পতির গল্প
প্রকাশ : ১৯ মার্চ, ২০১৭ ১৫:০৯:০৩
প্রিন্টঅ-অ+
বিশেষ ওয়েব
বার্লিন: তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তারা নারীদের প্রলোভন দেখিয়ে ঘরে নিয়ে অত্যাচার করতেন৷ সে সময় দুজন ছিলেন স্বামী-স্ত্রী৷ পরে ছাড়াছাড়ি হয়ে গেলেও মামলার কারণে তারা একইসঙ্গে দাঁড়িয়েছেন কাঠগড়ায়৷ সেখানেই শুরু হয়ে যায় ঝগড়া৷

জার্মানির হ্যোক্সটার শহরে তখন স্বামী-স্ত্রী হিসেবে এক সঙ্গেই থাকতেন তারা৷ স্বামী উইলফ্রেড ডাব্লিউ সংবাদপত্রে ক্লাসিফায়েড বিজ্ঞাপন দিয়ে মেয়েদের প্রলুব্ধ করতেন৷ বিজ্ঞাপন দেখে অনেক মেয়েই ছুটে যেতেন বাসায়৷ যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই তাদের আটকে ফেলা হতো এবং তারপর থেকে চলত অবর্ণনীয় অত্যাচার৷ উইলফ্রেডের তখনকার স্ত্রী আঙ্গেলিকা ডাব্লিউ সব কিছুর জন্য তার সাবেক স্বামীকে দায়ী করেছেন৷

উইলফ্রেড ডাব্লিউ অবশ্য সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন৷

মূল অভিযোগ অবশ্য আঙ্গেলিকার কাছ থেকে আসেনি৷ দুজন নারী হ্যোক্সটারের ওই বাড়ি থেকে পালিয়ে এসে আদালতে অভিযোগ দায়ের করেন৷ তাদের অভিযোগ, উইলফ্রেড ও আঙ্গেলিকার অত্যাচারে কমপক্ষে দু'জন নারী মারা গেছেন৷

জার্মান সংবাদমাধ্যম হ্যোক্সটারের ওই বাড়ির নাম দিয়েছে ‘হরর হাউস অফ হ্যোক্সটার'৷ সেই বাড়ির সাবেক কর্তা-কর্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা চলছে পাডারবর্ন শহরের আদালতে৷

জেরার মুখে উইলফ্রেড ডাব্লিউ সব অভিযোগ অস্বীকার করে দাবি করেন, শৈশব থেকেই প্রতিকূলতার মধ্য দিয়ে যেতে হয়েছে তাকে৷ মদ্যপ বাবা প্রায়ই তাঁকে পেটাতেন৷ বাবা-মায়ের ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়৷ নতুন জীবনসঙ্গী বেছে নেন মা৷ মায়ের নতুন সঙ্গীকেও বাবা হিসেবেই দেখতেন উইলফ্রেড৷ কিন্তু তিনি অল্প সময়ের মধ্যেই উইলফ্রেড এবং তার বোনের ওপর যৌন নিপীড়ন শুরু করেন৷

বিশেষ সংবাদ এর আরো খবর