বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯
logo
ঈদে ভিখারিদের পকেট গরম!
প্রকাশ : ০৭ জুলাই, ২০১৬ ১৫:২৪:৪৪
প্রিন্টঅ-অ+
বিশেষ ওয়েব

ঢাকা : এক মাস সিয়াম সাধনার পর ধনী-গরিব সবা জীবনে খুশির বার্তা নিয়ে এসেছে পবিত্র ঈদুল ফিতর। সারাদেশের উন্মুক্ত ময়দান ও মসজিদে সকাল ৭টা থেকে ১১টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হয়েছে ঈদের জামাত।
মুসল্লিরা ঈদগাহে পৌঁছানোর আগেই আশপাশের রাস্তা চলে যায় ভিখারিদের দখলে। তারা অপেক্ষা করতে থাকেন কখন বের হবেন মুসল্লিরা। কখন মিলবে তাদের কাঙ্ক্ষিত খয়রাত।
ঈদের দিন সকাল থেকে রাজধানীর বায়তুল মোকাররমের আশপাশের রাস্তায় ছিল হাজার হাজার ভিখারি। কদম পোয়ারা থেকে পল্টন হয়ে দৈনিক বাংলা পর্যন্ত নারী, পুরুষ, প্রতিবন্ধী মিলিয়ে ভিক্ষার থালা হাতে, ভ্যানে, হুইলচেয়ারে বসে ভিক্ষা করছিলেন।
নামাজ শেষে তোপখানার ফুটপাতে বসে খয়রাতি টাকা গুনছিলেন প্রতিবন্ধী সিরাজ মিয়া। তিন হাজার টাকা তার সহকর্মীর হাতে তুলে দিয়ে সিরাজ বললেন, আরও ২ হাজার টাকা হবে। পাশেই বসা ছিল তার পরিচিত কয়েকজন। সবাইকে এক গ্লাস করে মাঠা কিনে দিয়ে নিজেও খেলেন এক গ্লাস। বোঝা গেল, তার পকেট আজ গরম।
সত্তর  বছর বয়সী তোতা মিয়া থাকেন খিলগাঁয়ের বস্তিতে। তার মেয়ে ঝর্নাই সবসময় ঠ্যালাগাড়ি ঠেলে তাকে এদিকে-ওদিক আনা-নেয়ার কাজ করেন।  পল্টনের ফুটপাতে  বসে তিনিও টাকা গুনছেন। তাকে বেশ ফুরফুরে মনে হলো। কত টাকা পেলেন জানতে চাইলে বলেন, ‘তেমন একটা  না। তিন হাজার টাকার  মতো।’
বায়তুল মোকাররম থেকে নামাজ শেষে বের হন আনোয়ার হোসেন। পকেটে হাত দিয়ে একজনকে ভিক্ষা দিতে গেলে তাকে ঘিরে ধরল আরও কয়েকজন ভিক্ষুক। তাদের কয়েকজনের হাতে টাকা দিতে গেলে আসলেন আরও বেশ কিছু ভিখারি।
আনোয়ার হোসেন কিছুটা বিরক্ত হয়ে  বিড়বিড় করে বলতে লাগলেন, ‘এভাবে আসলে তো মুশকিল। কতজনকে দেব?’

বিশেষ সংবাদ এর আরো খবর