শুক্রবার, ০২ অক্টোবর ২০২০
logo
মেয়াদোত্তীর্ণ দই-মাঠা, লেবেল পাল্টালেই নতুন!
প্রকাশ : ০৮ এপ্রিল, ২০১৬ ১৬:২৮:২১
প্রিন্টঅ-অ+
বিশেষ ওয়েব

ঢাকা : বাজারজাত করার পর নির্দিষ্ট সময়ের পরও কোনো পণ্য থেকে গেলে তা নষ্ট না করে শুধু বোতলের গায়ের লেবেলটা পাল্টিয়ে দেয়া হয়। সেগুলোই আবার নতুন পণ্য বলে বাজারজাত করা হয়। আর এ কাজের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট রাজধানীর দু’টি প্রতিষ্ঠানকে ১ লাখ টাকা জরিমানা করেছে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন-৫)। সেই সঙ্গে ধ্বংস করা হয়েছে ৩ লাখ টাকা মূল্যের মেয়াদোর্ত্তীণ পণ্য।
বৃহস্পতিবার এপিবিএন-৫ এর অপারেশনাল টিম, ঢাকা জেলা প্রশাসন এবং বিএসটিআই’র যৌথ উদ্যোগে রাজধানীর বরুড়া, খিলক্ষেত এলাকায় ভেজাল বিরোধী এ অভিযান পরিচালনা করে। এতে দেখা যায়, মেয়াদোত্তীর্ণ দই, মাঠা ও কোনো ধরনের ল্যাবরেটরি পরীক্ষা ছাড়া নোংরা পরিরেশে ‘বিশুদ্ধ’ পানি প্রক্রিয়াজাত করছে।
অভিযানে দেখা যায়, আরএসএফ এগ্রো লিমিটেড কোম্পানি নামে একটি প্রতিষ্ঠান মেয়াদোর্ত্তীণ দই, মাঠা ও তরল দুধের প্যাকেটের লেবেল পরিবর্তন করে আবার বাজারে পাঠাচ্ছে। আর এ অভিযোগে ফ্যাক্টরির মালিককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা ও মেয়াদোর্ত্তীণ ৩ লাখ টাকা মূল্যের পণ্য ধ্বংস করা হয়।
এছাড়া ডাইয়ান ফুড বেভারেজ একুয়া কুল পানি ফ্যাক্টরি বিএসটিআই’র অনুমোদন ছাড়াই ‘বিশুদ্ধ’ পানি প্রক্রিয়াজাত ও বাজারজাত করছে। এ অপরাধে ফ্যাক্টরি মালিককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। ঢাকা জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সিফাত-ই-জাহান এ জরিমানা করেন। অভিযানে বিএসটিআই পরিদর্শক মো. খাইরুল ইসলামও উপস্থিত ছিলেন।    
অপারেশনের নেতৃত্ব দেন এপিবিএন-৫ এর মিডিয়া অফিসার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আমিরুল ইসলাম। তিনি জানান, এপিবিএন-৫ এর একটি গোয়েন্দা টিমের তথ্যের ভিত্তিতে দীর্ঘ ২ মাস পর্যবেক্ষণের পর এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। রাজধানীতে এসব অসাধু ব্যক্তি বিএসটিআই’র অনুমতি না নিয়ে নিজেদের খেয়াল খুশিমতো ফ্যাক্টরি খুলে কোনো রকম পরীক্ষা-নিরীক্ষা ছাড়াই পানি প্রক্রিয়াজাত করে ঢাকা শহরের বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ করে আসছে। এছাড়াও যেসব দই, মাঠা ও তরল দুধ মেয়াদোর্ত্তীণ তা পুনরায় প্যাকেটজাত করে বাজারজাত করে কিছু প্রতিষ্ঠান।

বিশেষ সংবাদ এর আরো খবর