শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০
logo
গুরু আমরা, মালিকানা দাবি করে আর একজন!
প্রকাশ : ০৪ এপ্রিল, ২০১৬ ১৬:০৪:০৭
প্রিন্টঅ-অ+
বিশেষ ওয়েব

ঢাকা : আগামী মাসে জাতীয় পার্টির ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিল। এ মাসে কাউন্সিল হওয়ার কথা থাকলেও নানা কারণে পিছিয়েছে দলটি। কাউন্সিলে কে আসবেন আর কে আসবেন না তা নিয়েও এখন থেকেই চলছে কানাঘুষা।
দলের চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ আর তার স্ত্রী সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদের মধ্যে চলছে কর্তৃত্ব নিয়ে মন কষাকষি। প্রকাশ্যে তাদের দুটি গ্রুপ। ১৪ মে অনুষ্ঠিতব্য পার্টির কাউন্সিলে রওশন আসবেন তো? না আসলে সংগঠনের পক্ষ থেকে কী ব্যবস্থা নেয়া হবে?
এমন নানা প্রশ্ন সাংবাদিকদের মনে। সোমবার এক প্রশ্নের জবাবে জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান জি এম কাদেরও বলেছেন, ‘যারা আসবে না তাদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে কাউন্সিলররা।’
অর্থাৎ রওশন এরশাদ ও তার পক্ষের নেতাদের কাউন্সিলে না আসার সম্ভাবনা একেবারে উড়িয়ে দেয়া যাচ্ছে না। জি এম কাদেরকে দলের কো-চেয়ারম্যান করায় এর আগে বেঁকে বসেছিলেন দলের কয়েকজন শীর্ষ নেতা।
রওশন এরশাদকে ইঙ্গিত করে একটু শ্লেষের হাসি হেসে জি এম কাদের সোমবার সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘গুরু আমরা, মালিকানা দাবি করে আর একজন।’
সোমবার (৪ এপ্রিল) দুপুরে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের বনানীর কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে জাতীয় পার্টির ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিল ১৬ এপ্রিলের পরিবর্তে ১৪ মে অনুষ্ঠিত হবে বলে জানান দলটির মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদার। ওইদিন রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে কাউন্সিল হবে। সংবাদ সম্মেলনে জি এম কাদের এ শ্লেষের হাসি হাসেন।
এ সময় ইউপি নির্বাচন নিয়ে জি এম কাদের বলেন, ‘১৩টি ইউনিয়ন পরিষদে আমরা জয়লাভ করেছি। কিন্তু সরকারদলীয় সন্ত্রাসীদের জাল ভোট, ভয়-ভীতি, অনিয়মের কারণে আমাদের আরও প্রার্থী জয়লাভ করতে পারেনি।’
তিনি আরো বলেন, ‘জয়লাভের সম্ভাবনা এমন ৩৫টি ইউপির ১১১টি কেন্দ্রের অনিয়মের ভিডিও ফুটেজ নির্বাচন কমিশনকে দিয়েছি আমরা। সেসব ইউপি নির্বাচন বাতিল করে পুনরায় দেয়ার দাবি জানিয়েছি।’
এ সময় উপস্থিত ছিলেন পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও দক্ষিণের সভাপতি সৈয়দ আবুল হোসেন বাবলা, উত্তরের সভাপতি এস এম ফয়সাল হোসেন সৃষ্টি প্রমুখ।

বিশেষ সংবাদ এর আরো খবর