মঙ্গলবার, ০২ জুন ২০২০
logo
ভারতরত্নের কবরে কুকুর-বেড়ালের প্রাতঃকৃত্য!
প্রকাশ : ২৪ ডিসেম্বর, ২০১৫ ১০:৪০:১৭
প্রিন্টঅ-অ+
বিশেষ ওয়েব

চাঁদপুর: বিখ্যাত বিজ্ঞানী, রাষ্ট্রপতিও ছিলেন। রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ সম্মান ভারতরত্নে ভূষিত হয়েছিলেন। আর সেই মানুষটির শেষশয্যা কি না ছেয়ে আছে কুকুর-বিড়ালের প্রাতঃকৃত্যে? সমাধির আশপাশে এক ধ্যানে জাবর কাটছে গরু। হজম করে নাদছেও! শুধু তাই-ই নয়, সমাধির ব্যারিকেড ভেঙে কবরের প্রায় ঘাড়ের উপর উঠে ছবি নিচ্ছেন দর্শকরা। রামেশ্বরমে এমনই অবহেলায় অযত্নে পড়ে রয়েছে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি এপিজে আবদুল কালামের সমাধি।
মাত্র মাস পাঁচেক আগের কথা। দেশবাসীকে কাঁদিয়ে চিরতরে চলে যান ভারতরত্ন প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি এপিজে আবদুল কালাম। তার মতো শিক্ষক, কাছের মানুষকে হারিয়ে শোকস্তব্ধ হয়ে পড়েছিল ভারতবাসী। পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় পিপলস্ মোদিসহ অন্যান্য নেতানেত্রীরা শেষ শ্রদ্ধা জানিয়েছিলেন বিজ্ঞানী কালামকে। অবনমিত রাখা হয়েছিল জাতীয় পতাকা।
শোকের আব হএখনও কাটেনি। সবেমাত্র পেরিয়েছে পাঁচ মাস। রামেশ্বরমে ১৫০ একর জায়গায় অবস্থিত প্রাক্তন রাষ্ট্রপতির সমাধি আজ পড়ে রয়েছে বেনজির অবহেলায়।
আবদুল কালামের যথার্থ স্মৃতিসৌধ তৈরির দাবিতে সোচ্চার অ্যারোস্পেস ও ডিফেন্স জার্নালিস্ট অনন্থ কৃষ্ণণ নিউজ মিনিটকে বলেছেন, ‘কালামের সমাধির পাশেই মলত্যাগ করছে কুকুর-বেড়াল। দর্শকরা ব্যারিকেড ভেঙে চুরি করে ছবি তুলছেন। সেখানে কোনো সিস্টেম নেই, নেই কোনো নির্দেশিকা।’ অনেকেই এখনও শ্রদ্ধা জানাতে আসেন প্রয়াত ভারতরত্নকে। এই ছবি দেখে তারা খুবই হতাশ হয়ে পড়েন।
 
কারাইকুডির এক ইঞ্জিনিয়ারিং ছাত্র বলছেন, যদি সরকার কালামের কোনো স্মৃতিসৌধ তৈরি করতে না পারেন, তবে ছাত্ররাই তা তৈরি করবে। কালাম ফাউন্ডেশনের পরামর্শদাতা ড. অনন্থ কৃষ্ণণ আক্ষেপের সুরে বলেছেন, ‘একজন ভারতরত্নকে কিছুতেই এভাবে শায়িত রাখা যায় না।’

বিশেষ সংবাদ এর আরো খবর