সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০
logo
রিভিউ করার সিদ্ধান্ত
আমি ফেলনা লোক নই
প্রকাশ : ২৯ জুলাই, ২০১৫ ১৬:৪০:১৩
প্রিন্টঅ-অ+
বিশেষ ওয়েব

গাজীপুর: একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধকালে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে সর্বোচ্চ আদালতের দেয়া ফাঁসির রায় শুনে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরী বলেনছেন, তিনি ফেলনা লোক নন, আইনের সর্বোচ্চ লড়াই তিনি লড়বেন। তার আশা, রিভিউয়ে তিনি ন্যায়বিচার পাবেন।
বুধবার আপিল বিভাগ থেকে দেয়া রায়ের পর তাকে মৃত্যুদণ্ড বহালের বিষয়টি জানানো হয়। এ সময় কাশিমপুর কারাগারের পার্ট-১ এ বন্দি সালাহ উদ্দিন কাদের চৌধুরী এমন প্রতিক্রিয়া দেখান।
বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কাশিমপুর কারাগারের পার্ট-১ এর জেলার ফরিদুর রেজা রুবেল।
নিজেকে নির্দোষ এবং রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার বলে দাবি করে সাকা চৌধুরী আরও বলেন, ‘আমি দেশের জন্য, জনগণের জন্য রাজনীতি করেছি। আমিতো ফেলনা লোক নই। আজ হয়তো আমার কিছু কথার কারণে অনেকেই ক্ষুব্ধ। আজ আমাকে হয়রানি করা হচ্ছে।’
ফরিদুর রেজা রুবেল জানান, ২০১০ সালের ১৬ ডিসেম্বর গ্রেপ্তার বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সাকা চৌধুরী ২০১২সালের ২৩ অক্টোবর থেকে এ কারাগারে অন্তরীণ রয়েছেন। হাইকোর্টের দেয়া ফাঁসির রায়ের পর তাকে কনডেম সেলে রাখা হয়। সকালে জেলখানায় বসেই রেডিওতে আপিল বিভাগের দেয়া নিজের সর্বোচ্চ সাজা বহাল থাকার সংবাদ শোনেন তিনি।
জেলার আরও জানান, এর আগে তিনি স্বাভাবিকভাবে সকালের নাস্তা সারেন। পরে সকাল ১০টার দিকে সেলে গিয়ে তাকে আনুষ্ঠানিকভাবে রায়ের কথা জানানো হয়। তবে মৃত্যুদণ্ডের রায় শোনার পরও সাকা ছিলেন বেশ হাসি-খুশি।
এদিকে, এ রায়কে কেন্দ্র করে কারাগার এলাকায় নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। নজরদারিও বাড়ানো হয়েছে হয়েছে বলেও জানা জেলার ফরিদুর রেজা রুবেল।
প্রসঙ্গত, মুসলিম লীগ নেতা ফজলুল কাদের চৌধুরীর ছেলে সাকা চৌধুরী। চট্টগ্রামের রাউজানে কুণ্ডেশ্বরী ঔষধালয়ের মালিক নূতন চন্দ্র সিংহকে হত্যা, সুলতানপুর ও ঊনসত্তরপাড়ায় হিন্দু বসতিতে গণহত্যা এবং হাটহাজারীর এক আওয়ামী লীগ নেতা ও তার ছেলেকে অপহরণ করে খুনের চার অভিযোগে তাকে মৃত্যুদণ্ড দেয় আদালত। প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার নেতৃত্বে চার সদস্যের আপিল বেঞ্চ বুধবার এ রায় ঘোষণা করেন

বিশেষ সংবাদ এর আরো খবর