মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০১৯
logo
তিস্তা চুক্তি সময়ের ব্যাপার: ওবায়দুল
প্রকাশ : ২৫ মার্চ, ২০১৭ ১৬:২১:৪৪
প্রিন্টঅ-অ+
রাজনীতি ওয়েব
ঢাকা: তিস্তা চুক্তি এবার না হলেও কিছুদিন পরে হবে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেছেন, “গঙ্গা চুক্তি যার হাত ধরে হয়েছে, তিস্তা চুক্তি তিনিই করবেন। তিস্তা চুক্তি সময়ের ব্যাপার। এই চুক্তি সময়মতো হবে। সব প্রক্রিয়া শেষ পর্যায়ে।”

শুক্রবার সকালে রাজধানীর মহানগর নাট্যমঞ্চে বঙ্গবন্ধুর ৯৭তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ কৃষক লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

ভারতের সঙ্গে আমাদের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব বিকিয়ে দিয়ে বন্ধুত্ব চাই না উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, আমরা সমতার ভিত্তিতে সম্পর্ক চাই। চুক্তি সামরিক-অসামরিক যে চুক্তিই হোক, তা হবে বাংলাদেশের স্বার্থে। চুক্তি হবে বাংলাদেশের সার্বভৌমত্ব এবং জাতীয় স্বার্থকে সমুন্নত রেখে। এর বাইরে কোনো চুক্তি হবে না।

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে আওয়ামী লীগ-সমর্থিত প্রার্থীদের পরাজয়ের বিষয়ে কাদের বলেন, দলের চেয়ে ব্যক্তি উন্নয়ন করতে গিয়ে দল ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। সারা দেশের ৯০ ভাগ জেলায় আইনজীবী সমিতিতে আমরা নির্বাচনে বিজয়ী হয়েছি। সেখানে ঢাকায় দুটি আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে আমরা হেরে গেলাম।

‍“ঢাকা সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে বৃহস্পতিবার দুপুরে যখন নির্বাচন চলছিল, তখন নেত্রী সংশয়ের কথা আমাকে জানালেন। নেত্রী যে সংশয় করেছিলেন ফলাফল তা-ই হয়েছে,” -বলেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

দলীয় কোন্দল-কলহ মিটিয়ে আগামী জাতীয় নির্বাচনে নেতা-কর্মীদের প্রস্তুতি নেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

কুমিল্লা সিটি করপোরেশনে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড না হলে নির্বাচন হবে না, বিএনপি নেতাদের এমন বক্তব্যের বিষয়ে কাদের বলেন, “বিএনপির লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড বলতে কী বুঝায় জানেন? এমন একটা অবস্থার সৃষ্টি, যেন তাদের জয় নিশ্চিত হয়। এই লেভেল প্লেয়িং ফিল্ডের নিশ্চয়তা তো আমরা দিতে পারব না। দিতে পারে দেশের জনগণ।”

জঙ্গিবাদের ঘটনা সরকার অতিরঞ্জিত করছে বিএনপি নেতাদের এমন দাবির বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, “গত কয়েক মাসে যে ঘটনাগুলো হলো, এই সব ঘটনা কী অতিরঞ্জিত? আসলে জঙ্গিবাদকে যারা পৃষ্ঠপোষকতা করে, জঙ্গিবাদকে মদদ দিয়ে, তাদের দুঃসাহসের মাত্রা বাড়িয়ে দিয়েছে। আজকে সরকারের জঙ্গিবাদবিরোধী কর্মকাণ্ডে তাদের অন্তর্জ্বালা ও গা জ্বালা ধরেছে।”

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ কৃষক লীগের সভাপতি আবদুস সালামের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য দেন কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি মোতাহার হোসেন মোল্লা, সাধারণ সম্পাদক শামসুল হক প্রমুখ।
 

রাজনীতি এর আরো খবর