শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৯
logo
সংখ্যাগুরু-সংখ্যালঘু তত্ত্বে বিশ্বাস করি না: খালেদা
প্রকাশ : ১১ অক্টোবর, ২০১৬ ১২:৪৩:৪১
প্রিন্টঅ-অ+
রাজনীতি ওয়েব

ঢাকা: বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বলেছেন, ‍‍‍বাংলাদেশ ধর্মীয় সম্প্রীতির দেশ। যেকোন ধরনের অশুভ তৎপরতা সম্পর্কে ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সবাইকে সজাগ থাকতে হবে। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপি এ দেশের প্রতিটি মানুষের ধর্মীয় স্বাধীনতা রক্ষায় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। আমরা সংখ্যাগুরু ও সংখ্যালঘু তত্ত্বে বিশ্বাস করি না। আমরা সবাই বাংলাদেশি-এটাই হোক আমাদের বড় পরিচয়।
দুর্গাপূজা ও বিজয়া দশমী উপলক্ষে সোমবার এক বাণীতে বিএনপি চেয়ারপরসন এসব কথা বলেন।
খাদেলা জিয়া বলেন, যুগ যুগ ধরে শারদীয় দুর্গাপূজা উপমহাদেশ এবং বাংলাদেশসহ অন্যান্য জনগোষ্ঠীর হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব। সুদীর্ঘকাল ধরে এই ধর্মীয় উৎসবটি সাড়ম্বরে পালিত হয়ে আসছে। বাংলাদেশেও দুর্গাপূজা সবসময় উৎসবমুখর পরিবেশে পালিত হয়।
সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, যেকোনো ধর্মীয় উৎসবই মানুষে মানুষে নিবিড় বন্ধন রচনা করে ও ভ্রাতৃত্ববোধ জাগরিত হয়। সব ধর্মের মর্মবাণী শান্তি ও মানবকল্যাণ। মানুষ হিসেবে হিংসা-বিদ্বেষ ও রক্তারক্তি পরিহার করে সমাজে শান্তি ও সাম্য প্রতিষ্ঠায় ব্রতী হওয়া আমাদের সবার কর্তব্য।
তিনি বলেন, দুর্গাপূজার অন্তর্নিহিত বাণীই হচ্ছে- হিংসা, লোভ ও ক্রোধরূপী অসুরকে বিনাশ করে সমাজে স্বর্গীয় শান্তি প্রতিষ্ঠা করা। যেখানে ন্যায় ও সুবিচার নিশ্চিত হবে।
নির্যাতন, নিপীড়ন ও প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার মধ্য দিয়ে যারা সমাজকে, মানব সভ্যতাকে ধ্বংস করতে চায়, প্রতিষ্ঠিত করতে চায় দুঃশাসন- তাদের বিরুদ্ধে সংগ্রাম করে মানবকল্যাণ প্রতিষ্ঠা এই উপাসনার মূল লক্ষ্য বলেও মন্তব্য করেন বিএনপি চেয়ারপারসন।
সেই বাণীকে আত্মস্থ করেই দুর্গাপূজার উৎসবের আনন্দকে ভাগ করে নিতে সবার প্রতি আহ্বান জানান সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম জিয়া।
তিনি বলেন, “শারদীয় দুর্গাপূজা ও বিজয়া দশমী উপলক্ষে আমি হিন্দু ধর্মাবলম্বী সবাইকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাই। তাদের সুখ শান্তি ও কল্যান কামনা করি।আমি শারদীয় দূর্গোৎসবের সর্বাঙ্গীন সাফল্য কামনা করি।”
 

রাজনীতি এর আরো খবর