শুক্রবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯
logo
জিয়ার মরদেহ নয়, বাক্স দাফন হয়েছে: হানিফ
প্রকাশ : ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১১:৪৩:০৭
প্রিন্টঅ-অ+
রাজনীতি ওয়েব

কুষ্টিয়া: জিয়াউর রহমানের মরদেহ নয়, বাক্স দাফন করা হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ। তিনি বলেন, “জিয়া মারা যাওয়ার পরে তার যে মরদেহ, সেটি পুড়িয়ে ছাই করে দেয়া হয়েছিল। সেখান থেকে পরবর্তী পর্যায়ে একটি বাক্স নিয়ে এসে মাটি দেয়া হয়েছে। এটার মধ্যে কি ছিল কেউ জানে না। এটা যদি জিয়াউর রহমানে মরদেহ হতো তাহলে তো সেসময় তার স্ত্রী সন্তানরা দেখতো। সেটা কেউ দেখে নাই। খোলাও হয়নি।”
শনিবার বেলা ১২টার দিকে গড়াই নদীর তীরে নির্মাণাধীন ইকোপার্কের কাজ পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ দাবি করেন হানিফ।
তিনি বলেন, বলেন, “মিডিয়াতে এ ব্যাপারে অজস্র প্রমাণ আছে যে, জিয়াউর রহমানের মরদেহ বলে যে বাক্স দাফন করা হয়েছে তা কেউ খুলে দেখেনি। এ রকম অজানা বিষয় নিয়ে মাজার তৈরি করে সংসদের নিরাপত্তা ও পবিত্রতা নষ্ট করা হচ্ছে। এটা দেশবাসী চায় না। সেই হিসাবে পরবর্তী পর্যায়ে এটা যদি সরানোর সিদ্ধান্ত হয়ে থাকে তাহলে জনগণ মনে করবে সিদ্ধান্ত সঠিক।”
হানিফ বলেন, “জিয়াউর রহমান কোনো আলেম বা পীর ছিলেন না। একজন সাধারণ মানুষ ছিলেন। সে হিসাবে তিনি মৃত্যুবরণ করলে ইসলামী রীতি অনুযায়ী দাফন করতে হবে।”
তিনি বলেন, “জাতীয় সংসদ এলাকা সাধারণ মানুষের কবরস্থান নয়। জায়গাটা সংসদীয় কার্যালয়ের। এই জায়গায় জিয়াউর রহমানের কবরের নাম করে যে মাজার বানানো হয়েছে সেটা সংসদকে অপমানিত করা হয়েছে।”
এ সময় জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজগর আলী, কুষ্টিয়া জজকোর্টের পিপি অনুপ কুমার নন্দীসহ অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে বৃহস্পতিবার বিকালে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন “জিয়াউর রহমানের কবরে জিয়াউর রহমানের দেহ নেই। আমি চ্যালেঞ্জ করছি। ডিএনএ টেস্ট করান। যদি সেখানে জিয়ার দেহ থাকে, তাহলে নাকে খত দিয়ে জাতির কাছে ক্ষমা চাইব।”
রাজধানীর ধানমন্ডির ডব্লিউভিএ মিলনায়তনে ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি আয়োজিত আলোচনা সভায় এ কথা বলেন আ ক ম মোজাম্মেল হক। ‘৭১-এর গণহত্যা থেকে গুলশান হত্যাকাণ্ড বিচার বিঘ্নিতকরণের চক্রান্ত’ শীর্ষক আলোচনা সভা ছিল এটা।

রাজনীতি এর আরো খবর