শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২০
logo
কার জন্য, কীসের বাজেট?
প্রকাশ : ০৩ জুন, ২০১৬ ১৩:৫৭:৩৭
প্রিন্টঅ-অ+
রাজনীতি ওয়েব

ঢাকা: জাতীয় সংসদে উত্থাপিত ২০১৬-১৭ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটকে ‘লুটেরা বাজেট’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান।
তিনি বলেন, ‘শুনেছি, বাজেটে সবকিছুর ওপর ১৫ শতাংশ ভ্যাট আরোপ করা হয়েছে। এর ফলে জনগণের দৈনন্দিন ব্যয় বেড়ে যাবে। সুতরাং জনগণের ব্যয় বাড়ার বাজেট কখনোই সমর্থনযোগ্য নয়। তাহলে কার জন্য, কীসের বাজেট?’
বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর কাকরাইলের ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে জাতীয়তাবাদী শ্রমিক দলের এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ সব কথা বলেন নজরুল ইসলাম। বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৩৫তম শাহাদাৎবার্ষিকী উপলক্ষে এ সভার আয়োজন করা হয়।
নজরুল ইসলাম খান বলেন, জনগণের প্রতিনিধিরা জনগণের জন্য বাজেট দিবে, এটিই প্রত্যাশিত। কিন্তু আমরা তো তাদের (ক্ষমতাসীনদের) জনগণের প্রতিনিধি বলেই মনে করি না। আর বাজেটে কী লিখবে তারা? এই যে ব্যাংক ও শেয়ারমার্কেট লুট, এগুলোর কী হবে? শুনলাম, প্রস্তাবিত বাজেটে সবকিছুর ওপরে ১৫ শতাংশ ভ্যাট আরোপ করা হয়েছে। যারা জিনিসপত্র কেনে তারাই তো ভ্যাট দেয়। ভ্যাট দেয় জনগণ, আর পুরস্কার নেয় মালিক। এটা লুটেরা বাজেট।
প্রস্তাবিত বাজেটকে চুরি ও দুর্নীতির বাজেট আখ্যা দিয়ে দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, সাংবাদিক বন্ধুরা বাজেটের প্রতিক্রিয়া দিতে বলছেন। কীসের প্রতিক্রিয়া? ভোটারবিহীন অবৈধ সরকারের বাজেট। এর মধ্যে জনগণের কোনো অংশিদারিত্ব নেই, তাদের কোনো সমর্থন নেই। কিসের জন্য এই বাজেট?
তিনি আরো বলেন, ‘এটি মিথ্যা ও চোরদের বাজেট, চুরির বাজেট। এখানে মানুষের কোনো অধিকার থাকবে না, জনকল্যাণ হবে না। যে দেশে চোর (চৌর্যবৃত্তি) ও দুর্নীতিবাজরা দেশপ্রেমিক হয়, তাদের বাজেট যে দুর্নীতির বাজেট হবে, দুর্নীতি প্রটেকশনের বাজেট হবে-সেটি বলার অপেক্ষা রাখে না।’
শ্রমিক দলের সভাপতি আনোয়ার হোসাইনের সভাপতিত্বে এবং প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মঞ্জুরুল ইসলাম মঞ্জুর সঞ্চালনায় এতে অন্যদের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন-সংগঠনের সহ-সভাপতি আবুল কালাম আজাদ ও মেহেদী আলী খান, সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম খান নাসিম, যুগ্ম সম্পাদক কাজী শেখ নুরুল্লাহ বাহার প্রমুখ।
প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার বিকেলে জাতীয় সংসদে ২০১৬-১৭ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট উপস্থাপন করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। এবারের বাজেট হচ্ছে ৩ লাখ ৪০ হাজার ৬০৫ কোটি টাকার। বিদায়ী ২০১৫-১৬ অর্থবছরের তুলনায় এ বছরের বাজেটের আকার ৪৪ হাজার ৯০৫ কোটি টাকা বেশি। আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকারের দ্বিতীয় মেয়াদে তৃতীয় বাজেট এটি।

রাজনীতি এর আরো খবর