সোমবার, ২৫ মে ২০২০
logo
আইসিটিখাতে কাজ পাবে ২০ লাখ বেকার
প্রকাশ : ২০ জুন, ২০১৬ ১৪:১২:৪৮
প্রিন্টঅ-অ+
জাতীয় ওয়েব

সংসদ থেকে : দেশের তথ্য ও প্রযুক্তিখাতে আইসিটিখাতে আগামী ৫ বছরে ২০ লাখ তরুণ-তরুণীর কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা হবে বলে জানিয়েছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক।
সোমবার (২০ জুন) জাতীয় সংসদে ২০১৬-১৭ বাজেটের উপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এ কথা জানান। এরআগে সকাল সোয়া ১১টায় স্পিকার ড. শিরীন শারমীন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদের বৈঠক শুরু হয়।
তিনি জানান, ২০০৯ সাল থেকে আইসিটিতে আমাদের প্রায় ৯ লাখ তরুণ-তরুণীর কর্মসংস্থান হয়েছে। ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার থেকে শুরু করে বিজনেস প্রসেস, আউটসোর্সিং সেন্টার, সফটওয়্যার ডেভলপমেন্ট, মোবাইল গেমিং, মোবাইল এ্যাপ্লিকেশন থেকে শুরু করে আমাদের আইটি সেক্টরে ফিল্যান্সিং, ওডেস্ক সবমিলিয়ে এইমূহুর্তে আমরা প্রায় ৪০০ মিলিয়ন ডলার বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করছি।
প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘প্রযুক্তি গ্রহণ হারে বাংলাদেশ বিশ্বের কাছে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। বর্তমানে আমাদের ১৩ কোটিরও বেশি মোবাইল ফোন ব্যবহারকারী আমাদের দেশে রয়েছে। ৬ কোটির বেশি মানুষ বর্তমানে ইন্টারনেট ব্যবহার করে।’
তিনি বলেন, ‘গত সাড়ে সাত বছরে আমরা প্রায় ২৫ হাজার সরকারি অফিসে আমরা ইন্টারনেটে হাইস্পিড ফাইবার অপটিক ক্যাবল স্থাপন করেছি। জনগণের দোরগড়ায় সেবা পৌছঁছে দিতে সারা বাংলাদেশে ৫ হাজার ২শ ৭৫টি ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার থেকে প্রায় প্রতি মাসে ২০০ ধরনের সেবা গ্রহণ করছে মানুষ। এবং প্রায় ৪৫ লাখ মানুষ এই ডিজিটাল ইউনিয়ন সেন্টারের সেবা গ্রহন করছে।’
জুনায়েদ আহমেদ পলক বলেন, ‘প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত ৪ কোটি ছাত্র-ছাত্রী পড়াশুনা করছে। তাদের প্রযুক্তি শিক্ষায় শিক্ষিত করতে আইসিটি বিষয়কে ষষ্ঠ শ্রেণি থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।’
আইসিটি প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের আরেকটি সম্ভাবনাময় খাত ই-কমার্স। আলীবাবা, আমাজন ডটকম এখন বিশ্ব দখল করেছে। আমাদের বাংলাদেশেও সিন্দাবাদডটকমসহ বিভিন্ন দেশীয় প্রতিষ্ঠান তৈরি হচ্ছে। আইসিটি ডিভিশন ই-শপ কর্মসূচির নামে সেন্টার ফর রিসার্চ এন্ড ইনফরমেশন (সিআরআই) এবং ইয়াংবাংলা প্লাটফর্মের সাথে আমরা যৌথভাবে সারা বাংলাদেশে ১ হাজার উদ্যোক্তা তৈরি করছি। যার মাধ্যমে আমাদের আড়াই লাখ গ্রামীণ তরুণ-তরুণীর ই-কমার্স সেক্টরে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হবে।
আইসিটি খাতের সমৃদ্ধির লক্ষ্যে অর্থমন্ত্রীর কাছে ই-কর্মার্সের ট্যাক্স ও ভ্যাট মওকুফের দাবি জানান তিনি।

জাতীয় এর আরো খবর