মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০
logo
জিন্স দিয়ে আমেরিকা দখল দুই জার্মানের!
প্রকাশ : ১৫ মে, ২০১৬ ১৭:১৩:০৪
প্রিন্টঅ-অ+
লাইফ ওয়েব

চাঁদপুর: জার্মানরা দুটো বিশ্বযুদ্ধ হারতে পারে। কিন্তু, একটা বিষয়ে আজও তারা মুচকি হাসে, আর সেটা হল ‘জিন্স’।
জানেন কি, দুই জার্মানের বুদ্ধিতে আজ আমেরিকা ‘জিন্স’-এর গোলাম হয়ে গিয়েছে!
রূপকথার মতো শোনালেও এটাই সত্যি। দুই জার্মান আমেরিকাকে ‘জিন্স’পরতে শিখিয়েছে। আর এর জন্যই আজ আমেরিকার জাতীয় পোশাকে পরিণত হয়েছে ‘জিন্স’। আর এর সমাদর আমেরিকা ছাড়িয়ে এখন বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে।
১৮০০ সালের শেষ দিকে ক্যালিফোর্নিয়ায় আবিষ্কার হয় সোনার খনি। ‘গোল্ড মাইন’-এর লোভে আস্তে আস্তে ভীড় বাড়তে থাকে ক্যালিফোর্নিয়ায়। একদিকে সোনার খনির ডলার অন্যদিকে লোকের ভীড়।
সানফ্রান্সিসকোতে এসে দোকান খুললেন বর্ন লিওয়ব স্ট্রস নামে এক জার্মান। জার্মানিতে তাদের পারিবারিক ডাই এবং কাপড়ের ব্যবসা ছিল। সেই ব্যবসারই শাখা সানফ্রান্সিসকোতে খুলেছিলেন লিওয়ব স্ট্রস।
যদিও, আমেরিকা আসার আগে লিওয়ব তার নামটা লিভাই করে নিয়েছিলেন। তার দোকানের নিয়মিত খরিদ্দার ছিলেন জার্মান দর্জি জেকব ডেভিস।
হতদরিদ্র ডেভিসও জার্মানি থেকে আমেরিকা এসেছিলেন ভাগ্যের অন্বেষণে।
লিভাইয়ের দোকানে একধরনের নীল মোটা কাপড় পাওয়া যেত। জেকব ওই কাপড় দিয়ে সোনার খনিতে কাজ করা শ্রমিকদের জন্য প্যান্ট বানাতেন।
কিন্তু, প্যান্ট বানানোর সময় বারবারই জেকব দেখতেন শ্রমিকদের প্যান্টগুলো কোমরের কাছে পকেটে কাছটা ছিঁড়ে যাচ্ছে।
তাই জেকব এমন একটা প্যান্টের নকশা তৈরি করলেন যাতে তা সহজে ছিঁড়বে না এবং পকেটের কাছে তামার ‘রিভেট’ পাত ছোট করে লাগানো থাকলে ওই জায়গাটা ফেঁসে যাবে না। ফলে, এই প্যান্ট বহুদিন টিকবে এবং শ্রমিকদের পকেটের সাশ্রয়ও হবে।
জেকবের তৈরি প্যান্ট শ্রমিকদের মধ্যে বিপুল জনপ্রিয়তাও পায়।
পাশাপাশি প্যান্টের রঙ গাঢ় নীল হওয়ায় সহজে তা নোংরা হত না।
জেকব চেষ্টা করছিলেন যাতে এই প্যান্টের পেটেন্ট নেয়া যায়। কিন্তু, তার কাছে অর্থ না থাকায় তিনি ধরলেন দেশওয়ালি লিভাই স্ট্রসকে। এর পরে দুজনে মিলিতভাবে একটি সংস্থা খুললেন যার নাম দিলেন ‘লিভাই স্ট্রস অ্যান্ড কোং’।
২০ মে, ১৮৭৩ সালে এই বিশেষ ধরনের জিনিস তৈরির পেটেন্ট পেল ‘লিভাই স্ট্রস অ্যান্ড কোং’। ১৮৮০ সালে নিজের আলাদা সংস্থা খুললেন লিভাই স্ট্রস।
১৮৯০ সালের মধ্যে তাঁর সংস্থার তৈরি ‘জিন্স’আমেরিকায় বিপুল জনপ্রিয়তা পেল। ১৯২০ সালের মধ্যে আমেরিকা ছেয়ে ফেলল লিভাইস-এর তৈরি করা ‘ডেনিম ওয়েস্ট’ ‘জিন্স’।

লাইফস্টাইল এর আরো খবর