মঙ্গলবার, ২১ মে ২০১৯
logo
শিশুকে বাইরে রেখে মাকে আটক
ওসিসহ দুই পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহারের নির্দেশ বহাল
প্রকাশ : ০৬ এপ্রিল, ২০১৭ ১৩:০৫:০৭
প্রিন্টঅ-অ+
আইন ওয়েব
ঢাকা: দুই শিশুকে বাইরে রেখে দুই মাকে ১৩ ঘণ্টা থানায় আটকে রাখার ঘটনায় মাদারীপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাসহ (ওসি) দুই পুলিশকে প্রত্যাহারের নির্দেশ বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগ।

বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে দুই পুলিশের করা আবেদনের শুনানি শেষে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে চার সদস্যের বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

বেঞ্চের অপর সদস্যরা হলেন বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন, হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী, মির্জা হোসাইন হায়দার।

এ আদেশে ওসি জিয়াউল মোরশেদ ও উপপরিদর্শক (এসআই) মো. মাহাতাবকে অবিলম্বে প্রত্যাহারের  নির্দেশ বহাল রাখা হয়।

এর আগে গত ২৯ মার্চ মাদারীপুর সদর থানার ওই দুই পুলিশকে অবিলম্বে প্রত্যাহারের নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি মোহাম্মদ উল্লাহর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

একই সঙ্গে ঘটনা তদন্ত করে ৮ মের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করতে পুলিশের আইজিকে নির্দেশ দিয়েছিলেন আদালত।

এর আগে গত ২০ মার্চ বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত প্রতিবেদন সংযুক্ত করে জনস্বার্থে হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় এ রিট দায়ের করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী রানা কাওসার।

পরে রিটকারী আইনজীবী রানা কাওসার সাংবাদিকদের জানান, গত ১২ মার্চ সকাল ১০টার দিকে বিরোধপূর্ণ একটি জমির তদন্ত কাজে যান মাদারীপুর সদর থানার এসআই মাহাতাব হোসেন। এ সময় তিনি লক্ষ্মীগঞ্জ এলাকার বিরোধপূর্ণ জমির পাশের বাড়ির খালেক বেপারীর ছেলে পনির হোসেনের কাছে মামলা-সংক্রান্ত বিষয়ে জানতে চান। পনির হোসেন মামলার বিষয়ে কিছু জানে না বলে জানান।

এতে এসআই মাহাতাব ক্ষিপ্ত হয়ে পনিরকে থাপ্পড় দেন। এতে পনির হোসেন পুলিশের সঙ্গে বাগবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন। এতে আরো বেশি ক্ষিপ্ত হন মাহাতাব। পরে ফোন করে সদর থানা থেকে তিন গাড়ি পুলিশ নিয়ে পনিরের বাড়িতে ব্যাপক তাণ্ডব চালান তিনি।

এ সময় পনির ও তার বড় ভাই-বোনের ঘরের মূল্যবান আসবাব ও নিত্যপ্রয়োজনীয় তৈজসপত্র ও চুলা ভেঙে ফেলে পুলিশ। একপর্যায়ে পনিরের স্ত্রী ঝুনু বেগম ও তার বড় ভাইয়ের স্ত্রী আকলিমা বেগমকে টেনেহিঁচড়ে পুলিশের গাড়িতে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়।

তখন ঝুনু বেগমের তিন মাসের শিশু ও আকলিমা বেগমের ১৮ মাসের শিশুকে কোল থেকে রেখে যেতে বাধ্য করে পুলিশ। পরে রাত ১২টার দিকে ভয়-ভীতি দেখিয়ে সাদা কাগজে মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়।

আইন আদালত এর আরো খবর