শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯
logo
সন্ত্রাসী হামলার হুমকিতে বাড়ল তাজমহলের নিরাপত্তা
প্রকাশ : ১৮ মার্চ, ২০১৭ ১৪:৫৬:০৮
প্রিন্টঅ-অ+
আন্তর্জতিক ওয়েব
দিল্লী: আনুষ্ঠানিক সতর্কতা জারি না হলেও ১৭ শতকের মার্বেল পাথরে নির্মিত স্থাপনাটির নিরাপত্তায় যেন কোনো ধরনের খুঁত না থাকে, সেজন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতা বেড়েছে বলে ‘দি হিন্দু’র এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

ছয় ঘণ্টা পরপর করা হচ্ছে মহড়া; নিবন্ধিত কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে এতে অংশ নিচ্ছেন পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। অন্যান্য বাহিনীর সঙ্গে সেন্ট্রাল ইন্ডাস্ট্রিয়াল সিকিউরিটি ফোর্সকেও তাজমহলের নিরাপত্তায় যুক্ত করা হয়েছে।

পুলিশ বলছে, তাজমহল এবং এই সপ্তাহ থেকে শুরু হতে যাওয়া তাজ মহোৎসব ঘিরে এমনিতেই নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। তার উপর গণমাধ্যমে প্রকাশিত হামলার হুমকির পর তা আরও বাড়ানো হয়েছে।

গত সপ্তাহে আইএসঘনিষ্ঠ একটি মিডিয়া গ্রুপে প্রকাশিত এক ছবিতে তাজমহলকে নতুন হামলার ‘নিশানা’ হিসেবে অভিহিত করা হয়।

গ্রাফিক্স দিয়ে বানানো ওই ছবিতে সামরিক পোশাকে সজ্জিত এক জঙ্গিকে অ্যাসল্ট রাইফেল ও রকেটচালিত গ্রেনেড নিয়ে তাজমহলের কাছে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে। একই গ্রাফিক্সে তাজমহলের আরেকটি ছবির নিচে লেখা রয়েছে- ‘নিউ টার্গেট’। সঙ্গে আরবি ভাষায় লেখা- ‘আগ্রা ইস্তিহাদি’ (আগ্রায় শহীদ হওয়ার অপেক্ষায়)।

‘আহ্‌ওয়াল উম্মত মিডিয়া সেন্টার’র ওই ছবি মঙ্গলবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টেলিগ্রামে প্রকাশিত হয় বলে জঙ্গি তৎপরতা পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা সাইট ইন্টেলিজেন্স গ্রুপ। এরপর তা অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও গণমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।

তৎপরতা বাড়ায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীও। বৃহস্পতিবার তাজমহল সংলগ্ন যমুনা নদীর তীর এলাকায় ভারতের উর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাদেরও মহড়ায় অংশ নিতে দেখা গেছে।

পুলিশের এসপি সুশীল গুল ওই মহড়ায় নেতৃত্ব দেন বলে হিন্দুর প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে। যমুনা নদী পার হওয়ার সময় তার সঙ্গে তাজমহলে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তা ছাড়াও সোয়াট ও বোমা নিষ্ক্রিয়করণ দলের সদস্যদের দেখা গেছে।

সিনিয়র পুলিশ সুপারিনটেন্ডেন্ট প্রীতিন্দর সিং জানান, তারা কোনো হুমকি পাননি, তাই আনুষ্ঠানিক কোনো সতর্কতাও জারি হয়নি।

“তারপরও গণমাধ্যমের প্রতিবেদন দেখে তাজমহল এলাকার নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে।”

এদিকে ১৮ মার্চ থেকে আগ্রায় শুরু হবে ১০ দিনের তাজ মহোৎসব; তাজমহলের পূর্ব দিকের প্রবেশপথ থেকে মূল উৎসবস্থল শিল্পগ্রামের দূরত্ব মাত্র এক কিলোমিটার।

উৎসব ও তাজমহলের জন্য বাড়তি নিরাপত্তার অংশ হিসেবে এখন প্রতি ছয়ঘণ্টা পরপর একজন নিবন্ধিত কর্মকর্তার উপস্থিতিতে মহড়া অনুষ্ঠিত হচ্ছে বলে জানান তিনি।

“আমরা সারাবছরই তাজমহলসহ গুরুত্বপূর্ণ সব স্থাপনায় যে কোনো পরিস্থিতির জন্য প্রস্তুত থাকি। তাজমহলের নিরাপত্তা সময় অনুযায়ী পর‌্যালোচনা করা হয় এবং প্রয়োজন অনুযায়ী বাড়ানো কমানো হয়,” বলেন প্রীতিন্দর।

তবে আগ্রা জোনের ডেপুটি ইন্সপেক্টর জেনারেল মহেশ কুমার মিশ্র তাজমহলে হামলার হুমকি বিষয়ে গোয়েন্দাদের কাছ থেকে কোনো তথ্য পেয়েছেন কি না, তা বলতে রাজি হননি।
 

আন্তর্জাতিক এর আরো খবর