মঙ্গলবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২০
logo
ট্রাম্পের ব্যাপারে সুর বদলালেন ওবামা
প্রকাশ : ১৬ নভেম্বর, ২০১৬ ১১:২৭:২৯
প্রিন্টঅ-অ+
আন্তর্জতিক ওয়েব
নিউইয়র্ক: হঠাৎ করেই নব নির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ব্যাপারে সুর বদলালেন বারাক ওবামা। ওবামা আগে বলতেন, এমন একটা বদমেজাজি লোক কোনো ভাবেই দেশের প্রেসিডেন্ট হওয়ার যোগ্য নয়। আর এখন বলছেন, হোয়াইট হাউসে গেলেই মেজাজ ঠিক হয়ে যাবে ডোনাল্ড ট্রাম্পের।

ক্ষমতা হস্তান্তর নিয়ে ‘প্রেসিডেন্ট ইলেক্ট’-এর সঙ্গে গত বৃহস্পতিবারই ওভাল অফিসে বৈঠক করেছিলেন বিদায়ী প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। তারপর এই প্রথম সাংবাদিকদের মুখোমুখি হলেন তিনি। এরপর বললেন, ‘‘আপনারা তাকে একটা সুযোগ দিন। হোয়াইট হাউসের মধ্যেই মানুষকে জাগিয়ে তোলার একটা ক্ষমতা আছে। তাই আমার বিশ্বাস, পদমর্যাদা, দায়িত্ব আর বাস্তবের মুখোমুখি হলে নিয়ন্ত্রণে আসবে মেজাজও।’’

তবু ওবামার সতর্ক শব্দ বাছাইয়ের অন্য অর্থ বের করছেন মার্কিন কূটনীতিকদের একাংশ। তাদের মতে, এ যেন ছোট ভাইকে সবটা বুঝিয়ে দিয়েই রিটায়ার করছেন বড় ভাই। বড় ভাই তো! প্রথম বার প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়ে, বুশ জামানা শেষ করে ২০০৯-এর ২০ জানুয়ারি হোয়াইট হাউসে এসেছিলেন বারাক ওবামা। চার বছর পরে রিপাবলিকান পদপ্রার্থী মিট রোমনিকে হারিয়ে আরও এক বার ক্ষমতায় গেলেন তিনি। এ বার বিদায়ের পালা। ২০১৭-র ২০ জানুয়ারি ওভাল অফিসে পা রাখছেন ট্রাম্প। হোয়াইট হাউসের পুরনো চেয়ারে নতুন প্রেসিডেন্ট।

পূর্বসূরির নির্দেশ ট্রাম্প কতটা গুরুত্ব দিয়ে শুনেছেন, তা অবশ্য জানা যায়নি। কিন্তু প্রশাসনের শীর্ষ কর্তা বেছে নিতে বিশেষ দেরি করেননি ট্রাম্প। বেছে নিয়েছেন এমন দু’জনকে, যারা তার হোয়াইট হাউস দখলের লড়াইয়ের প্রধান দুই সেনাপতি। স্টিফেন কে ব্যানন হচ্ছেন হোয়াইট হাউসে তার মুখ্য মন্ত্রণাদাতা এবং ‘চিফ অব স্টাফ’ হচ্ছেন রেইন্স প্রিবাস। তার মধ্যে অবশ্য চরমপন্থী বলে কুখ্যাত ব্যাননকে ওবামা-সহ ডেমোক্র্যাটদের কেউই পছন্দ করেন না।

এর মধ্যেই রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে ফোনে কথাও হয়ে গেছে তার। সেই পুতিনই ভোটের প্রচারেই নেতা হিসেবে ওবামার চেয়ে বেশি নম্বর দিয়েছিলেন ট্রাম্পকে!
 

আন্তর্জাতিক এর আরো খবর