মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯
logo
মিয়ানমারে ভূমিকম্পে বিপুল প্রত্নতাত্ত্বিক ক্ষয়ক্ষতি
প্রকাশ : ২৪ আগস্ট, ২০১৬ ২২:৩২:৫৬
প্রিন্টঅ-অ+
আন্তর্জাতিক ওয়েব

ঢাকা: মিয়ানমারে বুধবার বিকেলে রিখটার স্কেলে ৬.৮ তীব্রতার একটি বড় সড় ভূমিকম্প আঘাত হানার পর বাংলাদেশ ও পূর্ব ভারতের বিভিন্ন অংশেও সেই তীব্র কম্পনের রেশ অনুভূত হয়েছে।
ভূমিকম্পে মিয়ানমারের বাগান শহরের বহু মন্দির ও প্যাগোডা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।
ইউ এস জিওলজিক্যাল সার্ভে জানিয়েছে, এই ভূমিকম্পের এপিসেন্টার ছিল মিয়ানমারে চাউক শহরের ২৫ কিলোমিটার পশ্চিমে।
এর খুব কাছেই রয়েছে প্রত্নতাত্ত্বিকভাবে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ মিয়ানমারের বাগান শহর, যেখানে অন্তত হাজার দুয়েক প্রাচীন বৌদ্ধ মন্দির ও প্যাগোডা রয়েছে এবং এর অনেকগুলোই শত শত বছরের পুরনো।
‘বাগান টেম্পলস’ নামে পরিচিত এই মন্দির ও প্যাগোডাগুলোকে অনেকে কাম্বোডিয়ার বিখ্যাত আংকোর ওয়াট মন্দিরের সঙ্গেও তুলনা করে থাকেন।
মিয়ানমারের আর্কিওলজিক্যাল ডিপার্টমেন্টের পক্ষ থেকে বিবিসিকে জানানো হয়েছে, ভূমিকম্পে বিভিন্ন প্যাগোডার অন্তত ৬৬টি ‘স্তূপ’ ভেঙে পড়েছে বা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।
তবে ভূমিকম্পে হতাহতের খবর এখনও তেমন একটা পাওয়া যায়নি – শুধু মধ্য মিয়ানমারের পাকোক্কু শহর শহরে একজন নিহত হয়েছেন বলে নিশ্চিত করা গেছে।
এছাড়া মিয়ানমারের রাজধানী নেপিদও-তে পার্লামেন্ট ভবনটিও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। তা ছাড়া দেশের বিভিন্ন জায়গায় আরও বহু বাড়ি ও ভবনেও ফাটল ধরেছে।
 
মিয়ানমার সম্প্রতি পশ্চিমী পর্যটকদের জন্য দরজা খুলে দেওয়ার পর প্রাচীন বাগান শহরটি ইদানীং ব্যাকপ্যাকার ও কম বাজেটের পর্যটকদের মধ্যে ভীষণ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে – তাদের অনেকে সেখান থেকে বিভিন্ন প্যাগোডার ক্ষয়ক্ষতির চবিও সোশ্যাল মিডিয়াতে পোস্ট করছেন।
এদিকে এই ভূমিকম্পের জেরে বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা ও পশ্চিমবঙ্গের কলকাতা-সহ একটা বিস্তীর্ণ এলাকা কেঁপে ওঠে, আতঙ্কে ওই দুই শহরের বহুতল ভবনগুলো থেকেই বহু মানুষ নিচে নেমে আসেন।
ঢাকা ও কলকাতা দুটো শহর থেকেই বিবিসির সংবাদদাতারা জানিয়েছেন, বেশ শক্তিশালী এই ভূমিকম্পটি বেশ কয়েক সেকেন্ড স্থায়ী হয়েছিল। ভূমিকম্পের ফলে দুই শহরেই রীতিমতো আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।
এদিনের ভূমিকম্পটি আঘাত হানে বাংলাদেশের স্থানীয় সময় বিকেল ৪টে ৩৫ মিনিট ও ভারতে স্থানীয় সময় ৪টে ৫ মিনিট নাগাদ। গতকাল মঙ্গলবার সকালেও বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকায় ভূমিকম্প অনুভূত হয়েছিল।
এদিন ভূমিকম্প টের পাওয়া গেছে ভারতের পাটনা, শিলিগুড়ির মতো মিয়ানমার থেকে অনেক দূরবর্তী শহরেও।
অন্য দিকে এপিসেন্টার থেকে ১০০০ কিলোমিটার দূরে থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাঙ্ককেও মানুষজন ভূমিকম্পের রেশ টের পেয়েছেন। -বিবিসি।

আন্তর্জাতিক এর আরো খবর