বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০
logo
ধর্ম মানা যাবে না চীনের স্কুলে
প্রকাশ : ০৬ মে, ২০১৬ ১৯:১০:০৭
প্রিন্টঅ-অ+
আন্তর্জাতিক ওয়েব

চাঁদপুর: চীনের মুসলিম অধ্যুষিত প্রদেশ গানসুর স্কুলগুলোতে ধর্মচর্চা করা যাবে না বলে কঠোরভাবে জানিয়ে দিয়েছে প্রদেশটির সরকার। ধর্মের ওপর নিষেধাজ্ঞার বিষয়টির প্রতি যথাযথ আনুগত্য প্রদর্শন করতে হবে বলেও জানানো হয়েছে প্রাদেশিক সরকারের পক্ষ থেকে।


 


স্থানীয় একটি কিন্ডারগার্টেন স্কুলে কোরান তেলাওয়াত করা হচ্ছে- এমন একটি ভিডিও অনলাইনে ছড়িয়ে পড়ার পর বিষয়টি নিয়ে কঠোর অবস্থানে যায় গানসু প্রদেশ কর্তৃপক্ষ। কমিউনিস্ট রাষ্ট্র চীনের নাস্তিক্যবাদী সরকারের নিয়মানুসারে পাবলিক স্কুলের সব পর্যায়ে ধর্ম নিষিদ্ধের বিষয়টি পুনর্ব্যক্ত করে দেশটির উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় প্রদেশ গানসুর সরকার জানায়, এ ধরনের নিয়ম শিক্ষার্থীদের ধর্ম থেকে সুরক্ষিত রাখবে।


 


প্রাদেশিক সরকারের পক্ষ থেকে বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘ভিডিওটি দেখে অনেক লোকই ক্ষিপ্ত হয়েছেন। তারা এর সমালোচনা করেছেন। গানসুর শিক্ষা বিভাগ এ ধরনের কাজের নিন্দা জানায়। এটা তরুণদের মানসিক স্বাস্থ্যের ক্ষতি করবে। শিক্ষা বিভাগের দাবি, সব পর্যায়ের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কঠোরভাবে তাদের ক্যাম্পাসে ধর্মচর্চা নিষিদ্ধ করবে।’


 


অনলাইনে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে দেখা যায়, অপরিচিত এক বালিকা কালো একটি হিজাব পরে তার সহপাঠীদের সঙ্গে শ্রেণিকক্ষে বসে কোরান তেলাওয়াত করছে। তার সঙ্গে থাকা বাকিদেরও মুসলিম বলে মনে হচ্ছিল। তবে কোথায় এবং কখন ভিডিওটি ধারণ করা হয়েছে তা বোঝা যায়নি। ওই কিন্ডারগার্টেনটিকেও শনাক্ত করতে পারেনি সরকার।


 


উল্লেখ্য, বিশ্বের মোট জনসংখ্যার পাঁচ ভাগের একভাগই বাস করে জনবহুল রাষ্ট্র চীনে। সমাজতন্ত্র এবং নাস্তিক্যবাদী আদর্শে বিশ্বাসী এই দেশটির বেশিরভাগ লোক অজ্ঞেয়বাদী। কট্টর নাস্তিকের সংখ্যা ১৪ শতাংশের মতো। ধর্ম পালনের ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা আছে চীনে। স্কুলের বাইরে ধর্মীয় কাজে অংশ নিতে পারেনা চীনের তরুণেরা। বিশেষ করে ইসলাম এবং তিব্বতের বুদ্ধদের ব্যাপারে অত্যন্ত কঠোর চীনের সরকার।

আন্তর্জাতিক এর আরো খবর