বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯
logo
ইরানিরা মুসলমান নয়
প্রকাশ : ০৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১১:৫১:১৯
প্রিন্টঅ-অ+
হাইলাইটস ওয়েব

রিয়াদ: সৌদি গ্রান্ড মুফতি আবদুল আজিজ আল-শায়খ বলেছেন, “ইরানিরা মুসলমান নয়।”
ইরানের শিয়াদের ‘প্রাক-ইসলামী’ বিশ্বাসের কথা তুলে ধরে গ্রান্ড মুফতি আবদুল আজিজ আল-শায়খ সংবাদমাধ্যমকে বলেন, “আমাদের অবশ্যই বুঝতে হবে এরা মুসলমান নয়। তারা মেজাই (খ্রীস্টধর্মালম্বীদের কাছে পবিত্র তিন সন্ত) এর বংশধর। ইসলামের সঙ্গে তাদের শত্রুতা প্রাচীন।” এছাড়া তিনি সুন্নি মতবাদকে ইসলামের মূল শাখা হিসেবেও উপস্থাপন করেন।
সৌদির হজ ব্যবস্থাপনা নিয়ে ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামেনির মন্তব্যের একদিন পর স্থানীয় সংবাদমাধ্যম মক্কা ডেইলির কাছে মসজিদে আল হারামের প্রধান ইমাম এই মন্তব্য করলেন।
হজ ব্যবস্থাপনা নিয়ে আয়াতুল্লাহ আলি খামেনির বক্তব্যের একদিন পরেই গ্রান্ড মুফতির এই পাল্টা জবাবকে ইরানের সঙ্গে সৌদি সরকারের সম্পর্কের শীতলতার বহিঃপ্রকাশ বলে মন্তব্য আন্তর্জাতিক বিশ্লেষকদের। গত সোমবার মুসলমানদের পবিত্র দুই নগরী মক্কা ও মদিনায় সৌদি ব্যবস্থাপনার বিষয়ে মুসলিম বিশ্বের আপত্তি জানানো উচিত বলে মন্তব্য করেছিলেন ইরানের সর্বোচ্চ এই ধর্মীয় নেতা।
এর আগে গেল বছর পবিত্র হজ পালনের সময় পদপিষ্টে আহত হজযাত্রীদের সৌদি আরব কর্তৃপক্ষ হত্যা করেছে বলে অভিযোগ করেছিল ইরান। এ বছর পবিত্র হজের আয়োজন চলার সময় এক বিবৃতির মাধ্যমে এই অভিযোগ জানানো হলো।
ব্রিটেনের প্রভাবশালী গণমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান জানিয়েছে, নিজের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে আয়াতুল্লাহ আলী খামেনি অভিযোগ করেন, “আহত হজযাত্রীদের ন্যূনতম চিকিৎসাসেবা বা তৃষ্ণা মেটানোর পানি না দিয়ে উল্টো মৃতদের সঙ্গে তাঁদের কনটেইনারে তালাবদ্ধ করে রাখে হৃদয়হীন এবং খুনি জাতি সৌদি। তারা ওই সব আহত হজযাত্রীদের হত্যা করেছে।”
২০১৫ সালের সেপ্টেম্বর মাসে হজ চলাকালে পদপিষ্ট হয়ে মারা যান দুই হাজার ৪২৬ জন হজযাত্রী। এর মধ্যে ৪৬৪ জন ইরানি ছিলেন জানিয়ে এ ঘটনার জন্য সৌদি আরবের ব্যবস্থাপনাকে দায়ী করে ইরান। এর আগে মক্কায় একটি ক্রেন দুর্ঘটনায় ১১১ জন নিহত হওয়ার ঘটনায়ও সৌদি আরবের কর্তৃপক্ষকে দায়ী করেন আয়াতুল্লাহ খামেনি। সে সময় তিনি সৌদি আরবের শাসকদের ‘শয়তান’ বলে অভিহিত করেন।

হাইলাইটস এর আরো খবর