শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ২০১৯
logo
মহিলাদের শরীর সুস্থ রাখার ঘরোয়া আয়ুর্বেদিক উপায়
প্রকাশ : ২৯ অক্টোবর, ২০১৬ ১৫:৩৩:১০
প্রিন্টঅ-অ+
স্বাস্থ্য ওয়েব
চাঁদপুর: মেনস্ট্রুয়েশন, মেনোপজ, অ্যাকনে, অ্যানিমিয়া, অনিয়মিত পিরিয়ড, মোটা হয়ে যাওয়া প্রভৃতি বিভিন্ন সমস্যায় পড়তে হয় মেয়েদের। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই মহিলারা এই সমস্ত সমস্যা এড়িয়ে চলেন। কিন্তু এই সমস্ত সমস্যা এড়িয়ে না যাওয়াই উচিত্।
এই সমস্ত সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য বেশ কিছু ঘরোয়া আয়ুর্বেদিক উপায় রয়েছে। সেগুলি কী কী-

১) যন্ত্রণাদায়ক মেনস্ট্রুয়েশন- মেনস্ট্রুয়েশনের সময়ে প্রায় প্রত্যেকেই তলপেটে অসহ্য যন্ত্রণা, বমি, মাথা ঘোরা, কোষ্ঠকাঠিন্য, অরুচি, খিদে না পাওয়া প্রভৃতি সমস্যার সম্মুখীন হন। চিকিৎসকেরা এই সময়ে ‘সুন্দরী কল্প’ নামে একটি আয়ুর্বেদিক মিশ্রন মহিলাদের পরামর্শ দেন। এটি যেকোনও ওষুধের দোকানেই পাওয়া যায়। এই মিশ্রনের উপাদানগুলি মহিলাদের রক্ত পরিশুদ্ধ করতে এবং তাঁদের প্রজনন অঙ্গকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে। এছাড়া ‘অশোকারিষ্ঠা’ নামে আয়ুর্বেদিক টনিকটিও মহিলারা খেতে পারেন। মেনস্ট্রুয়েশনের সময়ে যাদের অতিরিক্ত রক্তপাতের প্রবনতা রয়েছে, তাঁদের জন্য এটি খুবই উপকারী।

২) মেনস্ট্রুয়েশনের আগের শারীরিক সমস্যা- অনেক মহিলারই মেনস্ট্রুয়েশনে আগে বিভিন্ন শারীরিক সমস্যা দেখা দেয়। যেমন কোমরে অসহ্য যন্ত্রণা। সেক্ষেত্রে রোজকার খাবারে তরল জাতীয় খাবার রাখার চেষ্টা করুন। যেমন, প্রচুর পরিমানে জল, স্যুপ বা ফ্রেশ জুস। এই সময়ে মদ এবং ধূমপান এড়িয়ে চলুন। ডায়েটের ক্ষেত্রে প্রসেসড খাবার এবং ফাস্ট ফুড এড়িয়ে চলুন। বাড়িতে তৈরি হালকা খাবার খান। ঠান্ডা জলে স্নান করুন।

৩) পাইলস- পাইলস প্রতিরোধ করতে হলে অবশ্যই প্রতিদিন প্রচুর পরিমানে জল খাওয়া প্রয়োজন। ফাইবার যুক্ত খাবার খাওয়ার পরিমান কম করুন।

৪) চুল সাদা হয়ে যাওয়া- আয়ুর্বেদ অনুযায়ী, অতিরিক্ত রাগ, গরম জলে স্নান, ঠান্ডা লাগার ধাত এবং সাইনাসের সমস্যা থেকে চুল সাদা হয়ে যায়। এক্ষেত্রে ‘মহাভৃঙ্গরাজ’ তেল ব্যবহার করতে পারেন। এই আয়ুর্বেদিক তেল শুধু আপনাকে চুল সাদা হয়ে যাওয়ার সমস্যা থেকেই বাঁচাবে না, আপনাকে উদ্বেগ, চিন্তা, মানসিক কষ্ট থেকেও মুক্তি দেবে। আর অবশ্যই ঠান্ডা জলে স্নান করুন।

৫) মেনোপজ- মেনোপজের সময়ে মহিলাদের ক্যালশিয়ামে ভর্তি খাবার খাওয়া খুবই প্রয়োজন। সঙ্গে পরিমিত ডায়েট এবং শরীর চর্চা করাও দরকার। যোগাসন করতে পারেন।

৬) ওবেসিটি- ‘গুগ্গুলু’ বা ‘কমিফোরা মুকুল’ এবং ‘পুনর্নভ’ ভেষজগুলি আপনাকে ওজন কমাতে সাহায্য করবে। তবে শুধু ভেষজ খেলেই চলবে না। এর সঙ্গে সঠিক ডায়েট এবং শরীর চর্চাও করা প্রয়োজন।

৭) অ্যাকনে- দারুচিনি, চন্দন, নিম, হলুদ এবং গুলঞ্চ অ্যাকনে প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে।

৮) ক্র্যাম্প- আয়ুর্বেদিক ওষুধ ‘আর্থ প্লাস’ ক্র্যাম্প প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে।

৯) অ্যানিমিয়া- আমলকী, অ্যালোভেরা এবং পুনর্নভ অ্যানিমিয়া প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে। এছাড়া আয়রন যুক্ত খাবার যেমন, পালং শাক, বাদাম, বীট, মাংস, আপেল, আমলকী প্রচুর পরিমানে খান।

স্বাস্থ্য এর আরো খবর