সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০
logo
শাকিবের এক্সপ্রেশন ভীষণ ভালো লাগে: শ্রাবন্তী
প্রকাশ : ২৪ জুন, ২০১৬ ১২:১২:৪৯
প্রিন্টঅ-অ+
বিনোদন ওয়েব

ঢাকা: আসছে ঈদে দেশজুড়ে মুক্তি পাচ্ছে জাজ মাল্টিমিডিয়ার বিগবাজেটের ছবি ‘শিকারি’। ছবিটির প্রধান দুটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন শাকিব খান ও কলকাতার অভিনেত্রী শ্রাবন্তী। ছবিটির প্রচারণায় অংশ নিতে গতকাল বাংলাদেশে উড়ে এসেছেন শ্রাবন্তী। বুধবার সন্ধ্যায় সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন তিনি। এতে ছবিটি নিয়ে নিজের প্রত্যাশা, শাকিবের সঙ্গে কেমিস্ট্রি নিয়ে কথা বলেন তিনি।
শিকারি’ সিনেমার ‘হারাবো তোকে’ গানটি রিলিজের পর দর্শকদের কাছ থেকে সাড়া পাচ্ছেন?
গানটা দেখে আমার কলিগরা তো অভিভূত! তারা বলছে, শাকিব-শাবন্তী জুটিটা বেশ জমবে এবার। আমি নিজেও গানটি দেখেছি বারবার। যতবার দেখি ততোবারই ভালো লাগে। একবারও বোর হচ্ছিনা। বারবারই মনে হচ্ছে নতুন কোন গান দেখছি। আমাদের জুটিটাকে দর্শকরা সত্যিই খুব ভালোবেসেছে।
গানটি দেখে মুগ্ধ দেব তো শিকারি টিমকে প্রশংসায় ভাসালো..
দেবের টুইটার পোস্টটি দেখে খুব খুশি হয়েছি। শুধু দেব নয় সবাই গানটির প্রশংসা করেছে। ইউটিইউবে অবিশ্বাস্য রকমের ভিউয়ার ছিলো। এটা আমাদের আরো অনুপ্রাণিত করছে। আমি চাই গানটি আরও ছড়াক। বাইরের দেশে যারা বাঙালীর আছে তারাও দেখুক।
দেব, জিৎ আর শাকিব-তিনজনের সঙ্গেই কাজ করলেন। তিনজনকে যদি মার্কিং করতে হয় কাকে কতো দেবেন?
কোন সময়ই এটা সম্ভব না আমার পক্ষে।
শাকিবকে রান্না করে খাওয়াতে চেয়েছিলেন। কী খাওয়ালেন?
কিছু একটু খাইয়েছিলাম। কিন্তু বলবো না। সেটা ওকেই জিজ্ঞাসা করুন।
কী থাকছে শিকারি’তে?
ইমোশন আছে, কমেডি আছে। বিশেষ করে খরাজ দা কমেডি ছিলো দেখার মতো। অ্যাকশন আছেন, রোমাঞ্চ আছে। এক কথায় ফাটাফাটি। একটি সিনেমার মধ্যে দর্শকরা এতো কিছু পেলে দর্শকরা তো দেখবেই। আমরা নিজেরও পুরো ছবিটা দেখতে ইচ্ছা করছে।
শিকারির আগে বাংলাদেশী সিনেমায় অফার পেয়েছিলেন কী?
অনেকবার কথা হয়েছে। সময় সুযোগ হয়নি। ডেটের প্রবলেম ছিলো বলে বাংলাদেশী সিনেমা করা হয়নি। শিকারি’ই হয়তো আমার ভাগ্যে লেখা ছিলো। শিকাররি দিয়েই বাংলাদেশে যাত্রা শুরু । ভালো লাগছে। আরও ছবি করতে চাই।
বাংলাদেশে আসার পর কী কেনাকাটা করলেন?
কিচ্ছু কেনাটাকা করিনি। শুধু খেয়েছি।
কী খেলেন?
ইলিশ আর ইলিশ। ইলিশ আমার খুব প্রিয়। পৃথিবীর ফেভারিট মাছ ইলিশ ।  
শাকিবের সঙ্গে এবারই প্রথম কাজ করলেন। অভিজ্ঞতা কেমন?
প্রথমদিন থেকেই আমরা খুব সাবলীল ছিলাম। পুরো অ্যাক্টরের গুণটা আছে ওর মধ্যে। ওর এক্সপ্রেশন ভীষণ ভালো লাগে। ড্যান্সিং ভালো করে।
শুটিংয়ে কোন ঘটনাটা মনে পড়ছে?
গরমের মধ্যে শুটিং করেছিলাম কয়লার খনিতে।  শাকিব তো ঘেমে অস্থির। এতো ফর্সা সুন্দর দেখতে একজন সে কী না কয়লার খনিতে শুটিং করছিলো। টিমের সবাই কঠোর পরিশ্রম করেছি। বিশেষ করে শাকিবের পরিশ্রম ছিলো সবচেয়ে বেশি।
শাকিবের সঙ্গে ছবি করতে গিয়ে শৈশবের কোন প্রেমিকের কথা মনে পড়েছে?
কতো স্টোরি আছে! সে না হয় থাক আরেকদিন।
শাকিব খানের ভালো ও মন্দ দিকগুলো কী?
খারাপ দিক দেখিনা। তার তো সবই ভালো। ভালো ব্যবহার। ভেরি গুড অ্যাক্টর, ভেরি গুড ড্যান্সার।
আপনার পৈতৃক বাড়ি বরিশালে। এবার তাহলে বরিশাল যাচ্ছেন?
বাবার কাছে অনেক শুনেছিলাম বরিশালের গল্প। এবার যাওয়ার খুব ইচ্ছা ছিলো। কিন্তু যেতে পারছি না। টাইম খুব কম। পরে আবার এলে অবশ্যই যাবো।

বিনোদন এর আরো খবর