মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯
logo
পাসের হার, জিপিএ-৫ দুটিই বেড়েছে
প্রকাশ : ১৮ আগস্ট, ২০১৬ ১৩:০৬:১৯
প্রিন্টঅ-অ+
শিক্ষা ওয়েব

ঢাকা: এ বছরের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় গত বছরের চেয়ে পাসের হার ও জিপিএ-৫ দুটোই বেড়েছে।
এবার দেশের ৮টি সাধারণ এবং মাদ্রাসা, কারিগরিসহ ১০টি শিক্ষা বোর্ডে পাসের হার ৭৪.৭০ শতাংশ। গত বছরের চেয়ে এবার পাসের হার ৫.১০ শতাংশ বেশি।
এ বছর এইচএসসি ও সমমানে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৫৮ হাজার ২৭৬ জন শিক্ষার্থী। গত বছর জিপিএ-৫ পেয়েছিলেন ৪২ হাজারের কিছু বেশি শিক্ষার্থী।
এ বছর ১০ বোর্ডে পরীক্ষা দিয়েছিল ১২ লাখ ৩ হাজার ৬৪০ জন পরীক্ষার্থী। এর মধ্যে পাস করেছেন ৮ লাখ ৯৯ হাজার ১৫০ জন।
৮টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডেও এ বছর পাসের হার ও জিপিএ-৫ দুটোই বেড়েছে। পাসের হার ৭২ দশমিক ৪৭ শতাংশ। গত বছর চেয়ে পাসের হার ৬ দশমিক ৬০ শতাংশ বেড়েছে। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৪৮ হাজার ৯৫০ জন। গত বছর পেয়েছিলেন ৩৪ হাজার ৭২১ জন।
মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডে এ বছর পাসের হার ৮৮ দশমিক ১৯ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ২ হাজার ৪১৪ জন।
বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে গণভবনে পরীক্ষার ফলাফলের অনুলিপি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে তুলে দেয়া হয়।
শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের নেতৃত্বে বিভিন্ন শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানরা এই অনুলিপি তুলে দেন। এ সময় শিক্ষামন্ত্রী এবারের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফলে বিভিন্ন তথ্য সংক্ষেপে তুলে ধরেন।
বেলা ১টায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ফলাফলের বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরবেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। এর পরপরই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে ফলাফল প্রকাশ করা হবে।
ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান জানিয়েছেন, এ বছর এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফলে জিপিএর পাশাপাশি প্রাপ্ত নম্বরও দেয়া হবে।
গ্রেড পদ্ধতিতে ফলাফল দেয়া শুরু হওয়ার পর থেকে নম্বর দেয়া বন্ধ করা হয়েছিল। শুধু একজন শিক্ষার্থী কত জিপিএ পেত, তা দেয়া হতো।
ঢাকা বোর্ডের চেয়ারম্যান জানান, একজন শিক্ষার্থী সৃজনশীল, বহুনির্বাচনী ও ব্যবহারিক অংশে কত নম্বর পেল, তা-ও আলাদাভাবে অনলাইনে দেয়া হবে।
উল্লেখ্য, গত ৩ এপ্রিল এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হয়ে শেষ হয় জুনে।

শিক্ষাঙ্গন এর আরো খবর