শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯
logo
বেরোবিতে ছাত্রলীগের দুগ্রুপে সংঘর্ষ, আহত ২
প্রকাশ : ১০ আগস্ট, ২০১৬ ২২:১৮:২১
প্রিন্টঅ-অ+
শিক্ষা ওয়েব

রংপুর: ছাত্রদল ও সাধারণ ছাত্রদের পিটিয়ে বের করে দেয়ার ১০ দিন পর সেই সিট দখল নিয়ে রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ২ ছাত্রলীগ নেতা আহত হয়েছে।  
মঙ্গলবার রাতে এ ঘটনার জের ধরে এক পক্ষ সড়ক অবরোধ এবং অপর পক্ষ বিক্ষোভ করেছে। এনিয়ে ক্যাম্পাসে টানটান উত্তেজনা বিরাজ করছে।
পুলিশ, প্রত্যক্ষদর্শী ও ছাত্রলীগ সূত্র জানায়, তারেক রহমানের সাজার প্রতিবাদে ক্যাম্পাসে মিছিল করার প্রতিবাদে ছাত্রলীগ ২৩ জুলাই গভীর রাতে বঙ্গবন্ধু হলে ঘুমন্ত সাধারণ ছাত্রসহ ছাত্রদলের ১৫-১৬ জন নেতাকর্মীকে লোহা, রড়, ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে পিটিয়ে বের করে দিয়ে তাদের সিটগুলো নিজেদের দখল নেয়। দখল করা এসব সিটে বাণিজ্যের মাধ্যমে ছাত্রলীগ বিভিন্নজনকে উঠাতে থাকে।
এরই মধ্যে বহিষ্কৃত ছাত্রলীগ নেতা ও বিশ্ববিদ্যালয়সহ সভাপতি মোহাম্মদ আলী রাজের গ্রুপের স্থানীয় আহসান নামের এক ছাত্রলীগ নেতা একটি সিটে নিজের পছন্দের ছাত্রকে উঠাতে যায়।
এতে বাধা সৃষ্টি করে ছাত্রলীগ সভাপতি মেহেদী হাসান শিশির ও সেক্রেটারী মাহমুদ হাসানের সমর্থক ইমরান। ইমরান ম্যানেজমেন্ট বিভাগের ছাত্রলীগের সভাপতি। সোমবার রাতে এ নিয়ে ইমরানের সাথে এ নিয়ে আহসানের কথাকাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে আহসানকে মারধরও করে ইমরান।
এরই জের ধরে মঙ্গলবার রাতে মোহাম্মদ আলী রাজ গ্রুপের আহসান, হাবিব ও মিতিশের নেতৃত্বে ক্যাম্পাসের প্রধান ফটকের সামনে ইমরান এবং বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক শাওন আহমেদ শুভকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে বেধড়ক কোপায়। গুরুতর আহতাবস্থায় তাদের রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
এ ঘটনার প্রতিবাদে ছাত্রলীগ সভাপতি শিশির ও হাসানের নেতৃত্বে রাত সাড়ে ১০ টায় হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবিতে ক্যাম্পাসের সামনে সড়ক অবরোধ করে। রাত ১১ টায় সরদারপাড়া এলাকায় রাজ গ্রুপের নেতাকর্মীরা অস্ত্রে-শস্ত্রে সজ্জিত হয়ে অবস্থান নিলে পুলিশ সভাপতি সেক্রেটারী গ্রুপের লোকজনদের মহাসড়ক থেকে উঠিয়ে দেয়। এনিয়ে এখন সেখানে চরম উত্তেজনা চলছে।
এ ব্যাপারে বঙ্গবন্ধু হলের সহকারী প্রক্টর অধ্যাপক আপেল মাহমুদ জানান, ভিসির সাথে অসদাচরণ করায় ইতিহাস বিভাগের ছাত্র ফাহিমকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কার করে কর্তৃপক্ষ। ওই সিটটিতেই ছাত্রলীগের দুই পক্ষ ছাত্র ওঠাতে চায়।
এনিয়ে তাদের মধ্যে বিরোধের জেরে পার্কের মোড়ে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। আহতরা হাসপাতালে আছে। হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবিতে ছাত্ররা হল থেকে বেরিয়ে রাতে সড়ক অবরোধ করেছে। এখন হলে কোনো সমস্যা নেই। তিনি বলেন, নিয়মানুযায়ী ওই সিটে নতুন বরাদ্দ দেয়া হবে। কেউ অবৈধভাবে সিটে উঠতে পারবে না।
এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর শাহিনুর রহমান জানান, ঘটনার পর ক্যাম্পাসে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এখন পরিস্থিতি শান্ত।

শিক্ষাঙ্গন এর আরো খবর