মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০
logo
দানব উইঠা সব লণ্ডভণ্ড করে দিছে
প্রকাশ : ১৭ জুলাই, ২০১৬ ১৪:০৪:০৮
প্রিন্টঅ-অ+
জেলা ওয়েব

লক্ষ্মীপুর: আমগো এহানে দানব উইঠা সব লণ্ডভণ্ড করে দিছে। আম গাছ উপরে উঠাইয়া নতুন করে রোপন করছে। ঘরের দেয়াল ভাইঙ্গা পালাইছে। আবার দোকানের টিনও উড়াইয়া লইয়া গেছে।
লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলায় হঠাৎ ভয়াবহ ঘূর্ণিঝরের বর্ণনা দিতে গিয়ে এভাবে কথাগুলি বলছিলেন দালাল বাজার ডিগ্রি কলেজের ২য় বর্ষের ছাত্র মো. সাওয়ান হোসেন।
গতকাল শনিবার বিকেল পৌনে ৪টার দিকে সদর উপজেলার দালাল বাজারের খোয়া সাগর দিঘির পাড়ে হঠাৎ করেই আঘাত হানে ঘূর্ণিঝড় (টর্নেডো)। ৩০ সেকেন্ড স্থায়ী এই টর্নেডোতে প্রায় শতাধিক দোকান ঘর, ঘর-বাড়ি ও গাছপালা লণ্ডভণ্ড হয়ে যায়। এ সময় এদিক-ওদিক ছুটাছুটি করতে গিয়ে স্কুলছাত্রী মরিয়ম, লাকী আক্তার ও অটোরিকশা চালক ফারুকসহ অন্তত ২০ জন আহত হয়। আহতদের লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালসহ বিভিন্ন ক্লিনিকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শনিবার বিকেলে হঠাৎ করে কালো ধোঁয়ার মতো কী যেনো খোয়া সাগর দিঘির পাড় থেকে বাতাসের সাথে ঘুরতে ঘুরতে উপরে উঠে। এক পর্যায়ে দ্রুত গতির বাতাস ও কালো ধোঁয়ায় ওই এলাকার অন্তত ২০০টি গাছ বিধ্বস্ত, অর্ধশতাধিক ঘর, দোকানপাট ও দেয়াল ক্ষতিগ্রস্ত হয়। হঠাৎ ঘূর্ণিঝড়ের ঘটনায় জনমনে কৌতুহলের সৃষ্টি হয়। অনেকেই এ ঘূর্ণিঝড়কে দানব নামে চিহ্ণিত করে গুজব ছড়াচ্ছেন।
এদিকে ঘূর্ণিঝড়ে বিধ্বস্ত ওই এলাকা পরিদর্শন করেছেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, পানি উন্নয়ন বোর্ড ও বিদুৎ বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।
দালাল বাজারের ব্যবসায়ী শাহ আলম বলেন, ‘জীবনের প্রথম ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড় নিজের চোখে দেখেছি। মাত্র কয়েক সেকেন্ড স্থায়ী ঝড়টি দালাল বাজারের আশপাশের গ্রামগুলিকে মুহূর্তের মধ্যে লণ্ডভণ্ড করে দেয়।’
স্থানীয় দালাল বাজার ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান সোহেল জানান, টর্নেডোর আঘাতে খোয়া সাগর দিঘি এলাকার ২ শতাধিক গাছ, দোকানঘরসহ প্রায় ২০টি বাড়িঘর লণ্ডভণ্ড হয়।
এ বিষয়ে লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ নুরুজ্জামান জানান, ঘূর্ণিঝড়ে এখন পর্যন্ত কোনো প্রাণহানীর খবর পাওয়া যায়নি। তবে কয়েকটি বাড়ি ঘর বিধ্বস্ত হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্তদের সরকারিভাবে সহযোগিতা করা হবে।

জেলা এর আরো খবর