বৃহস্পতিবার, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০
logo
সদ্য সংবাদ :

আত্মঘাতী স্কোয়াডের তিন নারী জেলহাজতে
প্রকাশ : ০৬ জুলাই, ২০১৬ ১০:৪৭:৩০
প্রিন্টঅ-অ+
জেলা ওয়েব

টাঙ্গাইল: টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলা থেকে গ্রেপ্তার হওয়া জেএমবির সুইসাইড স্কোয়াডের তিন নারী সদস্যকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। কঠোর গোপনীয়তা ও নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে জামাআতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশের (জেএমবি) তিন নারী সদস্যকে মঙ্গলবার (৫ জুলাই) বিকেলে পুলিশ আদালতে আনে। পরে আদালত তাদের তিনজনকে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
গত সোমবার (৪ জুলাই) রাতে পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করে। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- রোজিনা বেগম (৩০), সাজিদা আক্তার (২২) ও জান্নাতী ওরফে জেমি (১৮)।
কালিহাতী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খন্দকার আখেরুজ্জামান জানান, সম্প্রতি দেশের বিভিন্ন স্থানে গুপ্তহত্যার সঙ্গে জড়িত জেএমবির একটি দল টাঙ্গাইলে অবস্থান করছে এমন খবরের ভিত্তিতে গোয়েন্দা তৎপরতার মাধ্যমে তাদের অবস্থান জানা যায়। সোমবার (৪ জুলাই) রাতে কালিহাতীর যোকারচর রেলগেটের পাশের একটি বাড়ি থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। অভিযানের সময় তাদের কাছ থেকে দুইটি চাপাতি, একটি ছোড়া, মোবাইল ফোন, মানুষ গলা কেটে হত্যা করার জিহাদি ভিডিওচিত্র ও বোমা তৈরির কলাকৌশল লেখা একটি খাতা উদ্ধার করা হয়।
ওসি আরো জানান, গ্রেপ্তার রোজিনা বেগমের স্বামীর নাম মোখছেদুল ইসলাম ওরফে মোজাম্মেল হারেজ (৩৫)। তার বাড়ি গাইবান্ধা জেলার সাঘাটা উপজেলার পশ্চিম রাখবপুর ভূতমারা গ্রামে। সাজিদা আক্তারের স্বামী নজরুল ওরফে বাইক নজরুল ওরফে পারভেজ ওরফে হাসান (২৯)। তার বাড়ি পঞ্চগড় জেলার দেবীগঞ্জ উপজেলার ছোবাহার গজপুরী গ্রামে। জান্নাতী ওরফে জেমির স্বামী আবু সাইদ ওরফে সবুজ (২৪)। তার বাড়ি বগুড়ার জেলার শেরপুর উপজেলার বাগরা কুসুমদী গ্রামে। রোজিনার সঙ্গে তার দুই শিশু সন্তান এবং জান্নাতী ওরফে জেমির সঙ্গে এক শিশু সন্তান রয়েছে।
টাঙ্গাইল জেলা পুলিশের আদালত পরিদর্শক আনোয়ারুল ইসলাম জানান, গ্রেপ্তারকৃতদের মঙ্গলবার (৫ জুলাই) বিকেলে টাঙ্গাইল বিচারিক হাকিম আদালতে হাজির করে পুলিশ তিন দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন। আদালতের বিচারক অঞ্জন কান্তি দাস তাদের জেলহাজতে পাঠানোর আদেশ দেন। রিমান্ড আবেদনের শুনানি ঈদের ছুটির পর আদালত খুললে অনুষ্ঠিত হবে বলে জানা যায়।
কালিহাতী থানার উপ-পরিদর্শক কুতুব উদ্দীন বাদী হয়ে সন্ত্রাস দমন আইনে গ্রেপ্তারকৃত তিন নারী জেএমবি সদস্য ও তাদের স্বামীদের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় উল্লেখ করা হয়, তারা জেএমবির সুইসাইড স্কোয়াডের সদস্য। তিনজনই দেশের বিভিন্ন স্থানে সংঘটিত গুপ্তহত্যার সঙ্গে জড়িত।

জেলা এর আরো খবর