বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০
logo
সেই ৩ ইন্স্যুরেন্স কর্মকর্তা-কর্মচারীকে ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ!
প্রকাশ : ১৯ মার্চ, ২০১৬ ১১:৪৪:৪৭
প্রিন্টঅ-অ+
জেলা ওয়েব

বগুড়া : সোনার পুতুল কিনতে গিয়ে আটক হওয়া ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির তিন কর্মকর্তা-কর্মচারীকে ছেড়ে দিয়েছে বগুড়ার গোয়েন্দা পুলিশ। অভিযোগ উঠেছে তাদেরকে ছেড়ে দেয়ার বিনিময়ে ঘুষ লেনদেন হয়েছে চার লাখ টাকা।
শুক্রবার (১৮ মার্চ ) রাত ৯টায় গোয়েন্দা কার্যালয় থেকে তাদের পরিবারের জিম্মায় ছেড়ে দেয়া হয়। যাদের ছেড়ে দেয়া হয়েছে তারা হলেন-ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি রাজশাহী ডিভিশনাল ইনচার্জ আব্দুল মান্নান, জোনাল ইনচার্জ শরিফ উদ্দিন ও গাড়িচালক মাসুদ রানা।
শুক্রবার দুপুরে গোয়েন্দা পুলিশ দুপচাঁচিয়া থানার তালুচ ঝাঝিড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে কোম্পানির মাইক্রোবাসসহ তাদের আটক করে। এছাড়াও নকল সোনার মূর্তি ব্যবসায়ী আব্দুর রহিমকেও আটক করা হয়। পরে তার হেফাজত থেকে উদ্ধার করা হয় ১২টি নকল সোনার মূর্তি। আটককৃতদের বগুড়ায় গোয়েন্দা কার্যালয়ে নিয়ে আসার পর ইন্স্যুরেন্স কর্মকর্তাদের ছেড়ে দেয়া নিয়ে শুরু হয় দরকষাকষি।
বিকেল ৫টায় গোয়েন্দা কার্যালয়ে গিয়ে এ বিষয়ে তথ্য জানতে চাইলে সংশ্লিষ্টরা সাংবাদিকদের এড়িয়ে চলেন। অফিসে উপস্থিতি কর্মকর্তারা জানান, এ বিষয়ে শনিবার সংবাদ সম্মেলন করে বিস্তারিত জানানো হবে। রাত ৯টায় ফারইস্টের জোনাল ইনচার্জ শরিফ উদ্দিন মুক্তি পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন।
এদিকে, ফারইস্ট ইন্স্যুরেন্সের একটি সূত্র জানায়, গোয়েন্দা পুলিশের পক্ষ থেকে তাদের কাছে মুক্তির জন্য ১০ লাখ টাকা দাবি করা হয়। শেষ পর্যন্ত চার লাখ টাকায় তিনজনের মুক্তি মেলে। ডিবি পুলিশের দাবিকৃত টাকা সংগ্রহের জন্য দুপুরের পর থেকে ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির ডিভিশনাল ইনচার্জের নির্দেশে কয়েকজন কর্মকর্তা বগুড়া শহরের বড়গোলোয় তাদের অফিস খুলে বসেন। সেখানে মহাস্থান এবং কাহালু অফিস থেকে টাকা পাঠানো হয়। এরপরেও টাকা ঘাটতি হওয়ায় ডিবি পুলিশ তাদের হেফাজতে থাকা দুই কর্মকর্তাকে নিয়ে ব্যাংকের বুথ থেকে এটিএম কার্ড দিয়ে টাকা সংগ্রহ করে। চার লাখ টাকা পরিশোধের পর রাত ৯টায় তাদের ছেড়ে দেয়া হয়।
 
জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিরুল ইসলাম জানান, ইন্স্যুরেন্স কর্মকর্তারা নকল সোনার মূর্তি কিনতে যাওয়া একটি চক্রকে সহযোগিতা করার জন্য সেখানে যায়। পরে পুলিশের হাতে আটক হয়। তিনি পারিবারিক কাজে অফিসের বাহিরে থাকায় টাকা লেনদেনের বিষয়টি জানেন না বলে জানান।

জেলা এর আরো খবর