বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯
logo
নিরাপত্তা নেই, ক্রিকেটও নেই পাকিস্তানে!
প্রকাশ : ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৪:৫৭:২৭
প্রিন্টঅ-অ+
ক্রিকেট ওয়েব

লাহোর: ২০০৯ সালের মার্চ৷ লাহোর টেস্ট ম্যাচ চলাকালীন শ্রীলঙ্কার টিম বাস লক্ষ্য করে হামলা চালিয়েছিল জঙ্গিরা। বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার তাতে গুরুতর আহত হয়েছিলেন৷ মৃত্যুর আশঙ্কা পর্যন্ত করা হয়েছিল৷ ওই নিন্দনীয় ঘটনার পর থেকে দেশের মাটিতে আর পূর্ণাঙ্গ টেস্ট সিরিজ খেলার সুযোগ পায়নি পাকিস্তান। ‘হোম সিরিজ’ খেলছেন সংযুক্ত আরব আমিরশাহিতে। নিজেদের দেশের মাটিতে পাক ক্রিকেটাররা ফের কবে আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলবেন তা কারও জানা নেই৷ জঙ্গি কার্যকলাপের জন্য এককথায় ‘নিষিদ্ধ’ পাকিস্তান৷
পিসিবি কর্তারা অবশ্য এই কয়েক বছরে কম চেষ্টা করেননি, পাক ভূমিতে ক্রিকেট ম্যাচ করানোর৷ কিন্তু তা সম্ভব হয়নি৷ ফলে প্রবল আর্থিক ক্ষতির সম্মুখিন হয়েছে পাকিস্তান বোর্ড৷
যতদিন না নিরাপত্তা পরিস্থিতির উন্নতি হচ্ছে, ততদিন পাকিস্তানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলা হবে না বলে আরও একবার সাফ জানিয়ে দিল আইসিসি৷ বিশ্ব ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ামক সংস্থার চিফ এগজিকিউটিভ ডেভ রিচার্ডসন এই প্রসঙ্গে বলেছেন, ‘পাকিস্তানে ক্রিকেট নিয়ে প্রবল উন্মাদনার কথা আমাদের অজানা নয়৷
সেই কারণে পাকিস্তানে আসতে আমার সবসময় ভাল লাগে। কিন্তু নিরাপত্তা পরিস্থিতিই ঠিক করে দেবে, ফের কবে থেকে আবার পাকিস্তানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ম্যাচ দেখা যাবে।’
এই মুহূর্তে টেস্টের পয়লা নম্বর দল পাকিস্তান। সেই কারণে পাক অধিনায়ক মিসবা-উল হকের হাতে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ পুরস্কার তুলে দিয়েছেন রিচার্ডসন। লাহোরের গদ্দাফি স্টেডিয়ামে এক অনুষ্ঠানে এই পুরস্কার প্রদান করা হয়েছে।
এদিকে, বিদেশের মাটিতে খেলেও টেস্টে এক নম্বর হওয়ার জন্য পাকিস্তানের প্রশংসা করেছেন রিচার্ডসন। তাঁর আশা, পাকিস্তানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফিরবে। পাক বোর্ড সেই চেষ্টা চালাচ্ছে। তবে তার জন্য নিরাপত্তা সংক্রান্ত সমস্যা দূর হওয়া দরকার। তারপর বিষয়টি নিয়ে ভাবনা-চিন্তা করবে আইসিসি৷-বিবিসি

ক্রিকেট এর আরো খবর