শনিবার, ১৫ আগস্ট ২০২০
logo
অবশেষে জয়ে ফিরলো আবাহনী
প্রকাশ : ২৫ মে, ২০১৬ ১৬:৩১:৫৮
প্রিন্টঅ-অ+
ক্রিকেট ওয়েব

ঢাকা: গত ৪ মে ভিক্টোরিয়া স্পের্টি ক্লাবের বিপক্ষে নয় রানের জয় পেয়ছিল আবাহনী লিমিটড। এরপর টানা তিন ম্যাচে হেরেছে তামিম ইকবালের দল। অবশেষে তামিম ইকবালের ফিফটি এবং রজত ভাটিয়ার অলরাউন্ডিং পারফরম্যান্সের ওপর ভর করে ওয়ালটন ঢাকা প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগে জয়ে ফিরেছে আবাহনী। বুধবার সাভারের বিকেএসপিতে অনুষ্ঠিত বৃষ্টি বিঘ্নিত রিজার্ভ ডে’র ম্যাচে তামিমের দল ৩২ রানে হারিয়েছে গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সকে। এদিন দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরি করেও দলকে জেতাতে পারেনি গাজী গ্রুপের শামসুর রহমান শুভ। শেষ পর্যন্ত শুভ’র সেঞ্চুরিটি বিফলে গেছে।
এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ৫০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ২৭৬ রানের সম্মানজনক স্কোর গড়ে আবাহনী। জবাবে ৪৮.১ ওভারে ২৪৪ রানে অলআউট হয়ে যায় গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স। উভয় দলের এদিন ছিল লিগের অষ্টম ম্যাচ। আট খেলা শেষে ৮ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার ষষ্ঠ স্থানে থেকে সুপার সিক্সে খেলার আশাকে বাঁচিয়ে রেখেছে তামিমের আবাহনী। অপরদিকে সমসংখ্যক খেলা শেষে ৮ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার পঞ্চম স্থানে আছে গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স।
মঙ্গলবার আবাহনীর দেয়া ২৭৭ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে পারেনি গাজী গ্রুপ। কিন্তু ওই দিনের খেলার মধ্যাহ্ন বিরতির পর বিকেএসপিতে শুরু হয় বৃষ্টি। তবে এক পর্যায়ে বৃষ্টি থেমে গেলেও মাঠ খেলার অনুপযোগী হওয়ায় এদিনের খেলা পরিত্যক্ত বলে ঘোষণা করেন ম্যাচের দুই আম্পায়ার এবং ম্যাচ রেফারি। তাইতো আবাহনী ও গাজী গ্রুপের মধ্যকার ম্যাচটি বৃষ্টির কারণে বুধবার গড়িয়েছে রিজার্ভ ডেতে। শেষ পর্যন্ত রিজার্ভ ডেতে গড়ানো ম্যাচে ৩২ রানের জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে তামিম-তাসকিনরা।
মঙ্গলবার আবাহনীর দেয়া ২৭৭ রানের লক্ষ্যে বুধবার ব্যাট করতে নামে গাজী গ্রুপের দুই ওপেনার এনামুল হক বিজয় ও শামসুর রহমান শুভ। বিজয় শূন্য রানে তাসকিন আহমেদের বলে আউট হয়ে ফিরে যান সাজঘরে। তবে দলের অন্যান্য ব্যাটসম্যানদের নিয়ে লড়াই চালিয়ে যান শুভ। প্রথমে ফিফটি পরে কাঙ্ক্ষিত সেঞ্চুরিটি তুলে নেন গাজী গ্রুপের এই ডানহাতি ওপেনার।
শেষ পর্যন্ত শামসুর রহমান শুভ ব্যক্তিগত ১৩৬ রানে তাসকিন আহমেদের বলে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন। পরে দলনায়ক অলক কাপালি ১৫ রানে এবং ইলিয়াস সানি ১৩ রানে আউট ফিরে যান সাজঘরে। গাজী গ্রুপের লেজের সারির দুই ব্যাটসম্যান ফারুক হোসেন ২৯ রান এবং মোহাম্মাদ শরীফ ২৫ রান করলেও তা জয়ের জন্য যথেষ্ট ছিল না। ম্যাচের ১১ বল বাকি থাকতে ২৪৪ রানে দম ফুরিয়ে যায় গাজী গ্রুপের। আবাহনীর পক্ষে ডানহাতি পেসার তাসকিন আহমেদ ৩২ রানে ৪টি উইকেট তুলে নেন। এ ছাড়া ভারতীয় ক্রিকেটার রজত ভাটিয়া ও আবুল হাসান রাজু ২টি করে উইকেট পান।
এরআগে মঙ্গলবার সকালে গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সের অধিনায়ক অলক কাপালি টস জিতে প্রতিপক্ষকে ব্যাটিংয়ে পাঠান। টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নামে আবাহনী। দলীয় ১৫ রানে অভিষেক মিত্রর বিদায়ের পর দলের হাল ধরেন তামিম ইকবাল ও লিটন দাস। এ দুই ব্যাটসম্যানের ৯২ রানের জুটির পর পঞ্চম উইকেট জুটিতে শতরানের জুটি গড়েন ভারতীয় ব্যাটসম্যান রজত ভাটিয়া ও মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। ৮৮ বলে ৯টি চার ও ২টি ছক্কায় দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৯০ রান করেন ভাটিয়া। এ ছাড়া তামিম ইকবাল ৫৫ ও সৈকত ৪৭ রান করেন।
তবে এদিন লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে ছয় হাজার রানের মাইলফলক অতিক্রম করলেন আবাহনী লিমিটেডের বর্তমান অধিনায়ক তামিম। মঙ্গলবার সাভারের বিকেএসপিতে গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সের বিপক্ষে টস হেরে আগে ব্যাটিংয়ের সুযোগ পায় আবাহনী। আর তাতেই নতুন করে রেকর্ড বুকে নাম লেখান তামিম।
এদিন ৫ হাজার ৯৬২ রান নিয়ে ইনিংস শুরু করা তামিমের এ মাইলফলক অতিক্রম করতে প্রয়োজন ছিল ৩৮ রান। ডিপিএলে দারুণ ছন্দে থাকা তামিমের ব্যাট থেকে আসে ৫৫ রানের দারুণ এক ইনিংস। ফলে লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে বর্তমানে তার রান সংখ্যা দাঁড়ায় ৬০১৭। গাজী গ্রুপের অধিনায়ক অলক কাপালি এদিন তার নয় জন বোলারকে ব্যবহার করেন। দলের পক্ষে মেহেদী হাসান ৩২ রানে ২টি উইকেট তুলে নেন। শামসুর রহমান, ফারুক হোসেন ও অলক কাপালি ১টি করে উইকেট লাভ করেন।

ক্রিকেট এর আরো খবর