শনিবার, ১৫ আগস্ট ২০২০
logo
অস্ট্রেলিয়াকে ওয়ানডে খেলার প্রস্তাব দেবে বিসিবি
প্রকাশ : ২৭ জুলাই, ২০১৫ ২১:৫৫:০৬
প্রিন্টঅ-অ+
ক্রিকেট ওয়েব

ঢাকা: আগামী অক্টোবরে মাত্র দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলার জন্য বাংলাদেশে আসছে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল। টেস্ট সিরিজ খেলেই আবার ফিরে যাবে তারা। নির্ধারিত সূচীতে অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে কোন ওয়ানডে কিংবা টি২০ ম্যাচ নেই বাংলাদেশের। তবে, একটি বেসরকারি টেলিভিশনের সঙ্গে সাক্ষাৎকারে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন জানিয়েছেন, ওয়ানডে ম্যাচ খেলার জন্য ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়াকে (সিএ) প্রস্তাব দিতে যাচ্ছে বিসিবি।
২০১১ সালে বাংলাদেশ সফরে এসে তিন ওয়ানডের সঙ্গে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলার কথা ছিল অসিদের। কিন্তু ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার অনুরোধে সেবার শুধু তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলতে রাজী হয় স্বাগতিক বাংলাদেশ। প্রস্তাব ছিল বাকী দুই টেস্ট ম্যাচ, পরবর্তী সুবিধা মতো যে কোন সময়ে আয়োজন করা হবে। চার বছর পর সেই দুটি টেস্ট ম্যাচই খেলতে বাংলাদেশ সফরে আসবে অস্ট্রেলিয়া।
তবে, ওয়ানডে ক্রিকেটে বাংলাদেশের সাম্প্রতিক ফর্ম ক্রিকেট বিশ্বের ভাবনাই যেন পাল্টে দিয়েছে। একের পর এক পাকিস্তান, ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকাকে সিরিজ হারানোর পর এখন যে কোন প্রতিপক্ষের বিপক্ষেই খেলার জন্য মুখিয়ে টিম বাংলাদেশ। বিশ্বকাপে অসাধারণ পারফরম্যান্সের পর বদলে যাওয়া বাংলাদেশের সময়টা যাচ্ছে যেন স্বপ্নের মত। এ কারণেই অস্ট্রেলিয়াকে টেস্ট সিরিজের সঙ্গে একটি ওয়ানডে সিরিজ খেলারও প্রস্তাব দেওয়ার চিন্তা করছে বিসিবি। বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল ‘মাছরাঙা টিভি’র সাথে এক সাক্ষাৎকারে এমন তথ্য জানান বিসিবি সভাপতি।
বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেন, ‘এখানে বসে এসব বললে তো আর লাভ হবে না। দুবাইয়ে যে আইসিসি মিটিং আছে, ওখানে দ্বিপাক্ষিক সিরিজের ব্যাপারে আলাপ হবে। যেহেতু দুটি টেস্ট আছে, ওয়ানডে খেলানোর জন্য রাজি করানো খুব কঠিন হবে না। যদি ওদের উইন্ডো ওপেন থাকে। আমরা চাইলাম, কিন্তু ওদের খেলার মতো ফ্রি সময় থাকলো না, তাহলে তো আর হবে না। অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক ভালো। আশা করি আমাদের প্রস্তাবে তারা রাজী হবে।’
ওয়ানডেতে ধারবাহিকভাবে ভালো খেলায় বেশ কয়েকটি দল বাংলাদেশের বিপক্ষে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলতে আগ্রহী বলেও জানিয়েছেন বিসিবি সভাপতি। তিনি বলেন, ‘আগামী বছর ভারতের টেস্ট খেলতে যাওয়ার কথা রয়েছে আমাদের। সেই সিরিজে ওয়ানডে সংযুক্ত করার ব্যাপারে চেষ্টা চালাচ্ছি। ওদের রাজী না হওয়ারও কোন কারণ নেই। শ্রীলংকাও আমাদের সঙ্গে সিরিজ খেলার আগ্রহ দেখিয়েছে। সবকিছু ঠিক করবো আইসিসির পরবর্তী মিটিংয়ে গিয়ে।’
অক্টোবরে অনুষ্ঠিতব্য দুই টেস্টের সিরিজের জন্য এরই মধ্যে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ডের কর্মকর্তারা অগ্রবর্তী দল হিসেবে বাংলাদেশ সফর করে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে গেছেন। এ প্রসঙ্গে নাজমুল হাসান বলেন, ‘অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, ভারত যারা ক্রিকেটে এগিয়ে আছে, এই তিনটা বোর্ড সব সময় বাংলাদেশ ক্রিকেটের পাশে ছিলো। এখনও আছে। আগে ওদের কাছে গেলে মনে হতো আমাদের ফেভার করছে। কিন্তু এখন এরকম পারফরমেন্সের পর ওদের সামনে বুক ফুলিয়ে দাঁড়াতে পারবো।’
আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহে দুবাইতে বসার কথা আইসিসির পরবর্তী মিটিং। প্রায় এক বছর আগে নির্ধারিত এই সফরসুচীতে পরিবর্তনের আবেদনে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ড সাড়া দেয় কি না সেদিকেই তাকিয়ে বাংলাদেশ।
 

ক্রিকেট এর আরো খবর