শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৯
logo
কারি উবায়দুল্লাহ আর নেই
প্রকাশ : ২১ ডিসেম্বর, ২০১৬ ১৫:৫৫:০১
প্রিন্টঅ-অ+
দেশ ওয়েব
ঢাকা: কোরআনের শিল্পী কারি উবায়দুল্লাহ আর নেই (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রজিউন)।
 
মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় ধানমন্ডিতে মেয়ের বাসায় মারা যান তিনি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮২ বছর।
 
দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থতায় ভুগছিলেন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন এ আলেম।
 
চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলার কোদালা গ্রামে ১৯৪৪ সালে জন্মেছিলেন কারি উবায়দুল্লাহ। ১৯৬২ সাল থেকে ২০০৬ সালে অসুস্থ হওয়ার আগ পর্যন্ত চকবাজার শাহী মসজিদে খতিবের দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি।
 
বিভিন্ন সময় বাংলাদেশের প্রতিনিধি হিসেবে বিশ্বের ৩৩টি দেশ সফর করেছেন তিনি। বাংলাদেশ বেতার ও বাংলাদেশ টেলিভিশনে নিয়মিত কোরআন তেলাওয়াত করতেন কারি উবায়দুল্লাহ। তার রেকর্ড করা আজান দীর্ঘদিন প্রচারিত হয়েছে বিটিভি ও বাংলাদেশ বেতারে।
 
১৯৬২-এর এক মাহেন্দ্রক্ষণে রেডিও পাকিস্তানে হৃদয়ের সব সুর মিশিয়ে সূরা ফাতেহায় টান দিয়েছেন সুরের জাদুকর কারি উবায়দুল্লাহ। তাই তো তৎকালীন পাকিস্তানের বহু মানুষ প্রতিদিন ফজরের পর বা সকাল ৬টা সাড়ে ৬টায় কান পেতে বসে যেতেন রেডিও হাতে।
 
রেডিও পাকিস্তান বা ১৯৬৫ সালে শুরু হওয়া পাকিস্তান টেলিভিশন যত দিন ছিল ততদিন কারি উবায়দুল্লাহ কোরআনের সুর দিয়েই মাতিয়ে রেখেছিলেন হাজার হাজার প্রাণ। স্বাধীনতা উত্তর বাংলাদেশ বেতারে প্রথম যে সুর ধ্বনি বেজে উঠল সেও কারি উবায়দুল্লাহর কণ্ঠে ‘জালিকাল কিতাবু লা রাইবা ফিহ’। ১৯৭৫ সালে বিটিভি যার তেলাওয়াতের মাধ্যমে উদ্বোধন হল তিনিও কারি উবায়দুল্লাহ।
 
বাংলাদেশ পার্লামেন্টের সেই শুরুর অধিবেশন থেকে ৯ম পার্লামেন্ট পর্যন্ত আমাদের জাতীয় সংসদকেও কোরআনের মধুর সুরে মুখরিত করে রেখেছিলেন তিনি। কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন, নিউমার্কেট, হোটেল শেরাটনসহ জাতীয় অসংখ্য স্থাপনার উদ্বোধন হয়েছে তার তেলাওয়াতের মাধ্যমে।
 
কারি উবায়দুল্লাহ সৌদি আরব, কাতার, দুবাই, লিবিয়া, বাহরাইন, সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া, পাকিস্তানসহ বিশ্বের অন্তত ২০-২৫টি দেশে আন্তর্জাতিক কোরআন প্রতিযোগিতায় বারবার ১ম স্থান অর্জন করে বাংলাদেশের জন্য বয়ে আনেন বিরল মর্যাদা। যথাক্রমে সৌদি বাদশাহ ফয়সাল ও খালেদ দুইবার তাকে কোরআনের শিল্পী বা কারি হিসেবে বিশেষ সম্মাননা প্রদান করেন।
 
আজও বাংলাদেশ বেতার ও টেলিভিশনে মিষ্টস্বরে হৃদয়গ্রাহী যে আজান ধ্বনি প্রচারিত হয় সেটিও কারি উবায়দুল্লাহর কণ্ঠে।

দেশ এর আরো খবর