বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯
logo
পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১৭, আহত ৪০
প্রকাশ : ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৩:২৬:৫৮
প্রিন্টঅ-অ+
দেশ ওয়েব

চাঁদপুর: সারা দেশে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় ১৭ জনের প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে। আর আহত হয়েছেন অন্তত ৪০ জন। সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতের মধ্যে ব্রাহ্মণবাড়িয়া ৮ জন, টাঙ্গাইলে ৫ জন, মাদারীপুরে ৪ জন।
ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি জানান, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে বাস ও মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে শিশুসহ আটজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় ১০ জন আহত হন।
শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে শশৈ ইসলামপুর এলাকায় এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে নিহত সবাই মাইক্রোবাসের যাত্রী। তারা ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদরে বরযাত্রী হিসেবে একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে যাচ্ছিলেন বলে জানা গেছে।
প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা সিলেটগামী এনা পরিবহনের একটি বাসের সঙ্গে বিপরীত দিক থেকে আসা বরযাত্রীবাহী মাইক্রোবাসটির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই মাইক্রোবাসের শিশুসহ সাতজন নিহত হন। হাসপাতালে নেয়ার পর আরেকজনের মৃত্যু হয়।
আহত সাতজনকে হবিগঞ্জ স্থাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং বাকিদের ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
হাটিহাতা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. হুমায়ুন কবির জানান, হতাহত ব্যক্তিদের পরিচয় এখনো জানা যায়নি। দুর্ঘটনার পর ফায়ার সার্ভিস আহতদের উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় মহাসড়কে দীর্ঘক্ষণ যান চলাচল বন্ধ থাকে।
ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদরের ব্যবসায়ী সাদিকুর রহমান বলেন, দুর্ঘটনাকবলিত মাইক্রোবাসের যাত্রীরা যে বিয়ের অনুষ্ঠানে যাচ্ছিলেন, সেখানে তারও যাওয়ার কথা ছিল।
টাঙ্গাইল প্রতিনিধি জানান, ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাস উল্টে নিহতের সংখ্যা ৫ জনে দাঁড়িয়েছে। সুমন (২৫) নামের আরো এক যুবকের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত আরো ১৮ জন।
 
শুক্রবার ভোর ৫টার দিকে টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার পৌলীতে এ দুর্ঘটনাটি ঘটে।
 
এর আগে নিহতরা হলেন- লালমনিরহাট জেলার পাটগ্রাম উপজেলার ফিরোজ মিয়ার স্ত্রী আসমা আক্তার, একই উপজেলার করিম উদ্দিনের ছেলে মমিনুর (৪০), আব্বাস আলীর ছেলে আসাদুল হাবীব (১৫) এবং সিদ্দিকুর রহমানের ছেলে রিপন মিয়া (৩০)।
 
এলেঙ্গা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ সার্জেন্ট জাহাঙ্গীর আলম নতুন বার্তাকে জানান, উত্তরবঙ্গ থেকে ছেড়ে আসা গাজীপুরগামী কালিয়াকৈর পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস ভোরে উপজেলার পৌলী ব্রিজের নিকট পৌঁছালে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে যায়।
 
এ সময় ঘটনাস্থলেই বাসের ৪ জন যাত্রী নিহত হয়। পরে আরেকজনের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন ১৮ জন। আহতদেরকে উদ্ধার করে টাঙ্গাইল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে।
 
এ ঘটনায় টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসক মাহবুব হোসেন জানান, নিহত ও আহতদের প্রত্যেককে ২০ হাজার করে টাকা দেয়া হবে।
 
মাদারীপুর প্রতিনিধি জানান, মাদারীপুরে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের মাহিন্দ্রর সাথে যাত্রীবাহী বাসের সংঘর্ষে ৪ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় অন্তত ১২ জন আহত হয়েছেন।
শুক্রবার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে রাজৈর উপজেলার কালিবাড়ি নামকস্থানে এ দুর্ঘটনাটি ঘটে।
এ পর্যন্ত নিহত ২ জনের পরিচয় জানা গেছে। একজন মাহিন্দ্র পরিবহনের চালক বিল্লাল হোসেনের (৪০) বাড়ি রাজৈর উপজেলার সানেরপাড় গ্রামে। অপর যাত্রী বিল্লাল হোসেনের (৩৫) বাড়ি রাজৈর উপজেলার হাসানকান্দি গ্রামে বলে পুলিশ নিশ্চিত করেছেন।
এ ছাড়া নিহত অপর দুজনের কোনো পরিচয় জানা জানাতে পারেনি পুলিশ।
পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, একটি যাত্রীবাহী বাসের সাথে মাহিন্দ্র পরিবহনের মুখোমুখি সংঘর্ষে ঘটনাস্থলে ২ জন নিহত হয়। এ ছাড়াও আহত হয়েছে কমপক্ষে ১২ জন। আহতদের উদ্ধার করে রাজৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরো ২ জন মারা গেছেন।
নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করে রাজৈর থানার এসআই রমজান হোসেন নতুন বার্তাকে বলেন, নিহতের সংখ্যা বাড়তে পারে। রাজৈর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উদ্ধার কার্যক্রম পরিচালনা করছে। এ ঘটনার পর থেকেই ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কে এ পর্যন্ত যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। উভয় দিকে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

দেশ এর আরো খবর