মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৯
logo
চাঁদপুরের হাইমচরে নীলকমলে ভয়াবহ নদী ভাঙন
প্রকাশ : ২৩ আগস্ট, ২০১৭ ১৫:০৮:১২
প্রিন্টঅ-অ+
উজান থেকে নেমে আসা বন্যার পানির স্রোত আর মেঘনার প্রবল ঢেউয়ে চাঁদপুর হাইমচর উপজেলার নীলকমল ইউনিয়নের ভয়াবহ ভাঙন দেখা দিয়েছে।
গত ক’দিনের ভাঙনে ইউনিয়নের ইশানবালা বাজারের ৩২ নং উত্তর চর কোড়ালিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কেন্দ্রীয় মসজিদ, নৌ-পুলিশ ফাঁড়ি, হাট-বাজারসহ প্রায় ১৩শ’ মিটার এলাকা নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। বর্তমানে ওই ইউনিয়নের প্রায় সহ¯্রাধিক পরিবার ভাঙন আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে। ভাঙনস্থানে গিয়ে দেখা যায়, ভাঙন আতঙ্কে নদী পাড়ের শত শত পরিবার তাদের বসতঘর গুলো নিজেইরা ভেঙে অন্যত্র নিচ্ছে। এছাড়াও নদীতে বিলীন হয়ে যাওয়া ইশানবালা বাজারের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের দোকানিরা নদীপাড়ে বসে আর্তনাত করছে।
এ বিষয়ে হাইমচর উপজেলার ৪নং নীলকমল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সালাউদ্দিন আহমেদ জানান, আমার এই ইউনিয়নটি নদী-সিকিস্তি চর এলাকা। গত একমাস ধরে মেঘনার স্রোতে এই ইউনিয়নের ব্যাপক ভাঙন দেখা দিয়েছে। গত কয়েক ঘন্টার ভাঙনে ইশানবালা বাজার, ৩২ নং উত্তর চর কোড়ালিয়া সপ্রাবি, কেন্দ্রীয় মসজিদ, নৌ-পুলিশ ফাঁড়ি, বাজারের বেশকিছু দোকানসহ ৩০টি বাড়িঘর নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। ইতোমধ্যে ভাঙনে প্রায় ৩শ’ পরিবার গৃহহীন হয়েছে। বর্তমানের আরো প্রায় সহ¯্রাধিক পরিবার ভাঙন আতঙ্কে রয়েছে। ভাঙন প্রতিরোধে দ্রুত স্থায়ী প্রকল্প গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন তিনি।
এদিকে চাঁদপুর পানিউন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা যায়, বুধবার সকালে মেঘনার পানি বিপদসীমার ৫৯ সে.মি. ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এ অবস্থা চলতে থাকলে ভাঙনের চিত্র আরো ভয়াবহরূপ নিতে পারে বলে সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন।
উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক নুর হোসেন পাটওয়ারী জানান, ভাঙ্গন প্রতিরোধের ব্যবস্থা নিতে আমরা স্থানীয় সাংসদ ও জেলা প্রশাসন এবং পানি উন্নয়নবোর্ডকে অবহিত করেছি। উনারা বিষয়টি দ্রুত সমাধান করবেন বলে জানিয়েছেন।
উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শাহজাহান মিয়া পেদা বলেন, দ্রুত ব্যাবস্থা না নিলে আরো বড় ধরনের সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে।

চাঁদপুর : স্থানীয় সংবাদ এর আরো খবর