শনিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭
logo
হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ কেন্দ্রে পরীক্ষার্থীদের ভাংচুরের চেষ্টা অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন
প্রকাশ : ১১ এপ্রিল, ২০১৭ ১০:১৩:৪৮
প্রিন্টঅ-অ+
চাঁদপুর ওয়েব
চাঁদপুর::হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজে এইচএসসি পরীক্ষা কেন্দ্রে পরীক্ষা চলাকালে হাজীগঞ্জ মডেল কলেজের শিক্ষার্থীরা ভাংচুরের চেষ্টা চালায়। ভাংচুরে ব্যর্থ হয়ে পরীক্ষার্থীরা হুঙ্কার দেয় শিক্ষক ও দায়িত্বে থাকা সরকারি কর্মকর্তাদের। গতকাল সোমবার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি পরীক্ষা চলাকালে এবং পরীক্ষা শেষে পরীক্ষার্থীরা উত্তেজিত হয়ে হুঙ্কার দিতে দিতে ডিগ্রি কলেজে ভাংচুরের চেষ্টা চালায়। অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন থাকায় উত্তেজিত ছাত্ররা পিছু হটতে বাধ্য হয়। এছাড়াও বেলা ১২টার দিকে জেলা প্রশাসক ও হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি আব্দুস সবুর মন্ডল কেন্দ্র পরির্দশনে আসেন। এ সময় তিনি একজন শিক্ষিকাকে মোবাইল নিয়ে কেন্দ্রে প্রবেশের অপরাধে অব্যাহতি প্রদানের নির্দেশ দেন।


সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, সোমবার কম্পিউটার শিক্ষা ১ম পত্র এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি পরীক্ষার শুরু থেকেই ছাত্ররা শিক্ষকদের সাথে অশোভন আচরণ করতে থাকে। পরীক্ষা চলাকালে কেন্দ্রের ২৪নং হলে নৈর্ব্যক্তিকের সময় শেষ হলেও কয়েকজন ছাত্র প্রশ্নপত্র জমা দিতে অস্বীকৃতি জানায়। শিক্ষক-ছাত্র বাকবিত-া দেখে কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা উপজেলা বিআরডিবি অফিসার দেলোয়ার হোসেন এগিয়ে যান। দেলোয়ার হোসেনও পরীক্ষার্থীদের বাড়তি সময় দিতে অস্বীকৃতি জানান। এতে ছাত্ররা উত্তেজিত হয়ে শিক্ষক ও কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা উপজেলা বিআরডিবি অফিসার দেলোয়ার হোসেনের সাথে অশোভন আচরণ করে।


হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ পরীক্ষা কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ মাসুদ আহম্মদ তাৎক্ষণিক উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে বিষয়টি অবহিত করেন। কিছুক্ষণ পরেই হাজীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাবেদুল ইসলাম কেন্দ্র পরির্দশন করে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করেন।


পরীক্ষা শেষে পরীক্ষার্থীরা ১৬নং হলের দায়িত্বে থাকা কাঁকৈরতলা জনতা কলেজের সহকারী অধ্যাপক আমিনুল ইসলামকে প্রকাশ্যে হুমকি দেয় এবং তেড়ে আসে। পুলিশের হস্তক্ষেপে আমিনুল ইসলাকে নিরাপদে অধ্যক্ষের কক্ষে নিয়ে যাওয়া হয়।


কেন্দ্রে আইন শৃঙ্খলার দায়িত্বে থাকা হাজীগঞ্জ থানার উপ-পরির্দশক এসআই সাঈদ চাঁদপুর কণ্ঠকে জানান, পরীক্ষা শেষে ছাত্ররা জড়ো হওয়ার চেষ্টা করেছিলো। আমরা ছাত্রদের জড়ো হতে দেইনি।


উপজেলা বিআরডিবি অফিসার দেলোয়ার হোসেন জানান, ছাত্রদের অন্যায় আবদার রাখিনি বলেই তারা উত্তেজিত হয়ে পড়ে এবং কলেজে ভাংচুরের চেষ্টা করে।


উল্লেখ্য, হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ কেন্দ্রে গত বছরও মডেল কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থীরা ব্যাপক ভাংচুর চালায়।

চাঁদপুর : স্থানীয় সংবাদ এর আরো খবর