রোববার, ২৫ আগস্ট ২০১৯
logo
সোলারের আলোতে আলোকিত রাজরাজেশ্বর
প্রকাশ : ০৫ এপ্রিল, ২০১৭ ১০:১৪:৪১
প্রিন্টঅ-অ+
চাঁদপুর ওয়েব
চাঁদপুর: চাঁদপুর সদর উপজেলার চরাঞ্চলগুলোতে এখন সোলারের আলোতে আলোকিত হয়ে আছে। এর মধ্যে রাজরাজেশ্বর ইউনিয়ন পরিষদ অন্যতম। এ ইউনিয়নটি মেঘনা অববাহিকায় বিশাল জলরাশির মাঝে দাঁড়িয়ে আছে। এখানেও সোলারের আলোকে আলোকিত এ ইউনিয়নটি। আর এ আলোর ঝিলিকে রূপকার বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ভিশন-২০২১ বাস্তবায়নে এ পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০২১ সালের মধ্যে দেশের প্রতিটি ঘরে  ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেয়ার যে অঙ্গীকার করেছিলেন তার জন্য তিনি বিভিন্নভাবে বিদ্যুৎ সরবরাহের কাজ করছেন। দেশের যেসব স্থানে নদী অববাহিকার অঞ্চল রয়েছে সেসব অঞ্চলে বিদ্যুৎ পৌঁছতে না পারায় সরকার সোলারের মাধ্যমে ঘরে ঘরে বিদ্যুতের আলো পৌছে দিচ্ছে। তার জন্য ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে সোলার স্থাপনের ব্যবস্থা করেছেন।
            চাঁদপুর সদর উপজেলার অবহেলিত আর নদী সিকস্তি একটি ইউনিয়নের নাম হলো রাজরাজেশ্বর ইউনিয়ন। এ ইউনিয়নটি নদী ভাঙ্গনের সাথে যুদ্ধ করতে হচ্ছে দীর্ঘ বছর ধরে। এ ইউনিয়নে কোনোভাবেই তারের সাহায্যে বিদ্যুৎ পৌঁছাতে পারছে না। এর কারণ হলো ঃ বিশাল নদীর জলরাশি ডিঙ্গিয়ে বিদ্যুতের তার যেতে পারছে না। রাজরাজেশ্বর ইউনিয়নটি ১১টি গ্রাম নিয়ে গঠিত। উল্লেখযোগ্য গ্রামগুলো  হলোঃ ল¹ীমারা, জাহাজমারা, মুগাদী, ঘোড়ামারা, বাঁশগাড়ি, বলিয়ারচর, গোয়ালনগর, চরসুরেশ, ঢালীকান্দি, রাজারচর, বেপারী কান্দি, চিরারচর, লক্ষীরচর, শিলারচর, খাসকান্দি, মজিদ কান্দি, বলাশিয়াসহ মোট ২১টি গ্রাম। এ গ্রামের মানুষ দীর্ঘদিন ধরে আলোর দেখা পায়নি। বর্তমানে তারা সোলারের সাহায্যে বিদ্যুতের চাহিদা পূরণ করে আলোর ঝিলিক দেখছে। আর এ আলোর ঝিলিকে এ ইউনিয়নের কোমলমতি শিক্ষার্থীরা রাতের আধারে বই পড়ে শিক্ষা গ্রহণ করতে পারছে। এতে করে শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যত জীবন সোলারের আলোর মতই শিক্ষার আলোয় আলোকিত হচ্ছে। রাজরাজেশ্বর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী হযরত আলী বেপারী জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছ থেকে স্থানীয় সংসদ সদস্য ডাঃ দীপু মনি এমপির মাধ্যমে প্রায় দেড় শতাধিক সোলার পাওয়া গেছে। এসব সোলার ইউনিয়ন পরিষদে সদস্যদের মাধ্যমে ওয়ার্ডগুলোতে বিতরণ করা হয়েছে। তাছাড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হাজী হযরত আলী বেপারী নিজস্ব উদ্যোগে প্রায় ৩০টির মত সোলার অসহায় মানুষের মাঝে বিতরণ করেছেন। এসব সোলারের আলোতে রাজরাজেশ্বর আলোকিত হচ্ছে। তাছাড়া রাজরাজেশ্বর ইউনিয়ন পরিষদের তথ্যসেবা কেন্দ্রটি কম্পিউটার, প্রিন্টার ও ফটোকপির মেশিন সোলারের সাহায্যেই সচল রাখা হয়েছে। একজন নারী উদ্যোক্তা এ তথ্য সেবা কেন্দ্রটি পরিচালনা করছেন। তিনি আরও জানান, ব্যক্তিগত উদ্যোগে ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন রাজরাজেশ্বর বাজারটিতে সোলারের মাধ্যমে পাকা খুঁটি বসিয়ে তার ভেতর ছোট লাইট লাগিয়ে আলোর ব্যবস্থা করেছেন। সন্ধ্যা হলেই এ বাজারে দোকানী ও ক্রেতারা এ আলো দেখতে পাচ্ছে। এমনিভাবে রাজরাজেশ্বর ইউনিয়ন আলোর দেখা পাচ্ছে। a

চাঁদপুর : স্থানীয় সংবাদ এর আরো খবর