শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯
logo
বর্ণচোরা নাট্যগোষ্ঠীর ‘গিট্ঠু’ নাটকের ৫০তম মঞ্চায়ন।
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর এ দেশের শিল্প-সংস্কৃতিকে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে : আলহাজ্ব ওচমান গণি পাটোয়ারী
প্রকাশ : ৩০ মার্চ, ২০১৭ ১২:০৩:৫৫
প্রিন্টঅ-অ+
চাঁদপুর ওয়েব
নাট্যগোষ্ঠীর সভাপতি শুকদেব রায়ের নির্দেশনায় গতকাল ২৯ মার্চ বুধবার সন্ধ্যা ৭টায় জেলা শিল্পকলা একাডেমি মঞ্চে নাটকটি মঞ্চস্থ হয়। নাটক মঞ্চায়নের পূর্বে বর্ণচোরা নাট্যগোষ্ঠীকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশানভুক্ত চাঁদপুরের নাট্য সংগঠন অনন্যা নাট্যগোষ্ঠী, অনুপম নাট্যগোষ্ঠী, বর্ণমালা থিয়েটার। এছাড়াও চাঁদপুর মেঘনা থিয়েটার ও স্বরলিপি নাট্যদল শুভেচ্ছা জানান।
            শুকদেব রায়ের সভাপতিত্বে ও অনন্যা নাট্যগোষ্ঠীর সভাপতি শহীদ পাটোয়ারীর সঞ্চালনায় সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ওচমান গণি পাটোয়ারী। তিনি বক্তব্যে বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এ দেশ স্বাধীন করেছেন। স্বাধীনতার তিন বছর পর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে পরিবারসহ হত্যা করা হয়েছে। এ হত্যার মাধ্যমে স্বাধীন বাংলাদেশের শিল্প-সংস্কৃতিকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু চেয়েছিলেন সংস্কৃতির মাধ্যমে এদেশ পরিচালিত করতে। আমাদের দেশ ও সমাজ থেকে এখন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বরা হারিয়ে যাচ্ছে। মুক্ত চিন্তার মানুষগুলো এসব সাংস্কৃতিক সংগঠনের সাথে সম্পৃক্ত আছে বলেই সংগঠনগুলো পরিচালিত হচ্ছে। সংস্কৃতির মন-মানসিকতার সরকার আছে বলেই এদেশ সুখ-শান্তিতে পরিচালিত হচ্ছে। তিনি আরো বলেন, স্বাধীনতার ৪৬ বছর পরও এখন আবার দেশে জঙ্গিবাদ মাথা চাড়া দিয়েছে। আমরা মনে করি নাটক হলো সমাজের দর্পণ। এর মাধ্যমে সমাজ, দেশ ও জাতির কথা ফুটে উঠবে। এর মাধ্যমেই এদেশকে জঙ্গিবাদ মুক্ত করা হবে। জাতির পিতা স্বপ্নের দেশ রেখে গেছেন। এ দেশ যেনো সুন্দরভাবে পরিচালিত হতে পারে সেজন্যে নাটকের বিকল্প নেই। মুক্তিযুদ্ধের মুক্ত চিন্তা যেনো আমাদের সবার মধ্যে বিরাজ করে। নাটকের মাধ্যমে সমাজের কথা যেনো তুলে ধরা হয়, তবেই দেশে জঙ্গিবাদ মুক্ত করা সম্ভব হবে।
            এ সময় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মুন্সীগঞ্জ হিরন-কিরন থিয়েটার ও থিয়েটার সার্কেলের প্রতিষ্ঠাতা মোঃ জাহাঙ্গীর আলম ঢালী, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক জিএম শাহীন। আরো বক্তব্য রাখেন বর্ণচোরা নাট্যগোষ্ঠীর সাবেক সভাপতি মোঃ রুহুল আমিন, বর্ণচোরা নাট্যগোষ্ঠীর সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা কামাল, অনুপম নাট্যগোষ্ঠীর সাধারণ সম্পাদক গোবিন্দ মন্ডল ও বর্ণমালা থিয়েটারের সাধারণ সম্পাদক মাহবুব আলম প্রমুখ। পরে বর্ণচোরা নাট্যগোষ্ঠীর পরিবেশনায় ৪৫তম প্রযোজনায় মলিয়ের কমেডি ও হাসির নাটক বিশ্ব নাট্য দিবস উপলক্ষে গিটঠু নাটকের অর্ধশত মঞ্চায়ন হয়। নাটকের বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেন ঃ শরীফ চৌধুরী, দেবব্রত সরকার বিজয়, শান্ত সূত্রধর, নাজমুল হোসেন বাপ্পী, কামরুজ্জামান মারুফ, হ্যাপি আক্তার, সাজান্না চৌধুরী তানহা, রেবেকা সুলতানা রাইসা, জাফরুন নাহার পৃথা, শাহাদাত হোসেন সাব্বির, এসএম চাইমন, সিয়াম খান, নুরে আলম নয়ন, প্রনব ঘোষ। নির্দেশনায় ও আলোক পরিকল্পনায় শুকদেব রায়। পোশাক পরিকল্পনায় বিচিত্রা সাহা। আবহ সঙ্গীতে মামুন হোসেন শুভ প্রমুখ।

চাঁদপুর : স্থানীয় সংবাদ এর আরো খবর